কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৫ ডিসেম্বর ২০১৬, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, সোমবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

কবিতা

প্রকাশিত : ১০ এপ্রিল ২০১৫

কবিতাভ্রমণ

স্মরণ : অরুণাভ সরকার

ফারুক মাহমুদ

অহরহ, ধোঁয়া ছড়ানো চা

ভালোবাসতে খুব

সারাদিন। মধ্যরাত। পেয়ালার পেছনে পেয়ালা

পরুনো ধোঁয়ার সাথে জড়াজড়ি নতুন ধোঁয়ার

দু’-এক চুমুক মাত্র। যোগ হতো নতুন পেয়ালা, নতুন চুমুক

চা জুড়িয়ে জল

পুড়ে পুড়ে আগুনের ছাই-ভস্ম মুখ

তোমার তখন ভেসে চলা

তোমার তখন ডুবে যাওয়া

কবিতার স্রোতে

নতুন পেয়ালা হাতে পাশ ঘেঁষে দাঁড়াল কি কেউ

তুমি কি দেখনি তাকে

তোমার লেখার দিকে চেয়ে থাকা চোখ!

সেদিন : সেদিন তুমি চলে গেলে কবিতার অবমুক্ত পথে

সেদিনও এসেছিল সন্ধ্যা-পেয়ালা চা

ধোঁয়া উড়ছে, বই-খাতা পড়ে আছে থেমে থাকা কলমের পাশে

সময় প্রশস্ত হল। নতুন চায়ের জন্য ‘মানু, কোথায়...’ ডাকলে না কেন?

এত ধৈর্য! কখনও তা ছিল কি তোমার?

প্রান্তরের হাওয়ায় গন্তব্যের পতাকা ওড়ে

মাসুদ মুস্তাফিজ

আমি স্পষ্টতই বুঝতে পারছিÑ আমাদের নিমজ্জিত বিবিধ স্বপ্নের যে ক্রোধ আর

প্রেতলোকের জনসমুদ্রে হাওয়া-

তা আজ মৃত্যুলোকে বিষাদ শূন্যে জমে যাচ্ছে প্রতিদিন

নদীর উন্মত্ত বুকে এভাবেই কালের সূর্য ওঠে আর আমরা প্রতিদিন দিগন্তের রক্তিম

মিছিলে কুচিকুচি স্বপ্ন বুনি... কেঁপে উঠি

বুঝতে পারি না-স্বাধীনতা কার

বুঝতে পারি না-স্বাধীনতা কী

বুঝতে পারি না-স্বাধীনতা কেন

আর আমাদের মুক্তিযুদ্ধের মমার্থ-

সেই নির্মম স্মৃতি যেনো জীবনক্রোধে সংগীত নির্মাণ হচ্ছে চাঁদোয়ার দিবালোকে

মরমি সহজিয়া গানের নিদারুণ গন্তব্যে পতাকা ওড়ে

স্বাধীনতা আমি তোমাকে বাঁধতে চাই না-গাঁথতেও চাই না- নকল ফুলের

নির্গন্ধের কষ্টের কোনো মালাতে

তুমি আছো বলেই

আজো বুকের মধ্যে মনোহর শব্দকলি........

তোমার উর্বর অধীর আদরের ঠোঁটে বিস্ময়ের কাঁপনি

তুমি আছো বলেই-

আমাদের মলিন স্মৃতিগুলো অপহৃত দিন খোঁজে উদ্বেলিত স্বপ্নের মিছিলে

শহীদের রক্তাক্ত একাডেমি

সুজন হাজারী

হোয়াইট ওয়াশ ঘরের ধবধবে দেয়াল দেখে

সাদা কাগজের নেশা জাগে নেশাগ্রস্ত ঘ্রাণে

সাদা পাতা বন্দী মলাটে হাত পড়ে

খুলে ফেলি পৃষ্ঠাগুলো।

সাদা ঘ্রাণে ভোজনের আধেক তৃপ্তি দুধের স্বাদ মিটে

ক্ষুধাতুর বাছুর দৌড়ায় সারামাঠে।

পেনিট্রেটিং চোখে কালো কালো অক্ষরের কাগজে কথামালা

পথের বটগাছের ঝুলে পড়া ডালে সবুজ পাতা

হিমানী বাতাসে দুলে ওঠে।

মজা পুকুরের জলছায়া তলানিতে ম্রিয়মাণ

গঙাডুবে মায়াবতি বাংলাদেশ তৃষ্ণার মরুতে

সতীদাহের চিতায় পোড়ে সতী মা বেহুলা।

মাথার উপরে ফুটে থাকা ফুল মান্দার পলাশ টকটকে লাল

কৃষ্ণচূড়ায় মধুলোভী মৌটুসী নাচে আমের মৌল ঝরে

রক্তে ভেজা বালিমাখা মাঠিতে

স্মৃতিময় বর্ধমানে কাজীবাড়ির খোলা বারান্দায়

ফাগুন বিকালে বিদায়ী রোদের মিটি মিটি খেলা ।

অনুভবে মাখা পুরানো আবেগ একই উচ্চারণে অনূদিত

ফুটন্ত ফুলের লাল রঙে মন কেমন করে,

সালাম রফিক বরকতের রক্ত ঋণ ঘন হয়ে আসে

ভাষা শহীদের রক্তাক্ত একাডেমি প্রাঙ্গণে ।

প্রকাশিত : ১০ এপ্রিল ২০১৫

১০/০৪/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: