আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৭ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বুধবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

বিনিয়োগ বোর্ডকে গ্যাস বিদ্যুত বিতরণের ক্ষমতা দেয়া হচ্ছে

প্রকাশিত : ১০ এপ্রিল ২০১৫

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ বিনিয়োগ আকর্ষণে আগামী বাজেটে বাংলাদেশ বিনিয়োগ বোর্ডকে গ্যাস ও বিদ্যুত বিতরণের ক্ষমতা দেয়া হবে। দেশের মোট সরবরাহের দুই শতাংশ গ্যাস ও বিদ্যুত বিতরণ করতে পারবে বিনিয়োগ বোর্ড।

গত বুধবার রাতে রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় দেশের বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদদের সঙ্গে প্রাক-বাজেট আলোচনা শেষে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত সাংবাদিকদের একথা জানান। মন্ত্রী বলেন, কোম্পানিগুলোই গ্যাস ও বিদ্যুত সরবরাহ করবে। তবে এর দুই শতাংশ বিতরণের ক্ষমতা থাকবে বিনিয়োগ বোর্ডের হাতে। আর বিনিয়োগ বোর্ডকে যে ক্ষমতা দেয়া হচ্ছে তার শতভাগ বছরজুড়ে তারা বিতরণ করতে পারবে।

আলোচনায় কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সাবেক গবর্নর ড. ফরাসউদ্দিন দেশে সরাসরি বিদেশী বিনিয়োগের (এফডিআই) প্রসঙ্গ টেনে বলেন, সারাবিশ্বে বছরে ১৮০০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার এফডিআই হচ্ছে। সেখানে বাংলাদেশে তা আসে মাত্র এক বিলিয়ন মার্কিন ডলার।

বিনিয়োগ আকৃষ্ট করতে এই অর্থনীতিবিদ বিনিয়োগ বোর্ডের কাছে গ্যাস ও বিদ্যুতের দুই শতাংশ বিতরণের ক্ষমতা দেয়ার প্রস্তাব করেন। এ প্রস্তাবের বিষয়ে অর্থমন্ত্রী বলেন, ড. ফরাসউদ্দিনের প্রস্তাবটি খুবই ভাল। এটি আগামী বাজেটে অবশ্যই বাস্তবায়ন করা হবে।

ড. ফরাসউদ্দিন আহমেদ বলেন, বিদেশী যেসব ঋণ আসছে তা বিনিয়োগ হচ্ছে কিনা তার সঠিক নজিরদারি হচ্ছে না। এর উত্তরে অর্থমন্ত্রী বলেন, বিষয়টি বাংলাদেশ ব্যাংককে জানানো হয়েছে।

আলোচনায় অর্থনীতিবিদরা টাকার বিনিময় হার নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন। বর্তমানে আন্তর্জাতিক বাজারে বিভিন্ন মুদ্রার মান কমেছে। কিন্তু টাকার মান স্থিতিশীল রয়েছে। এ ধরনের স্থিতিশীলতা অর্থনীতির জন্য ভাল নয়। আন্তর্জাতিক বাজারের সঙ্গে সমন্বয় রেখে টাকার মান কমা উচিত বলে অর্থনীতিবিদরা মনে করছেন।

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেছেন, বর্তমানে টাকার বিনিময় হার স্থিতিশীল রয়েছে। এ ধরনের স্থিতিশীলতা ভাল নয়। আন্তর্জাতিক মুদ্রার সঙ্গে সমন্বয় রেখে টাকার মান কমা উচিত। ভারত যেভাবে ডলারের বিপরীতে রুপীর মান অবমূল্যায়িত করেছিল সেভাবে টাকার মান অবমূল্যায়িত করা হবে কিনা- এমন প্রশ্নের জবাবে অর্থমন্ত্রী বলেন, ঠিক তা না, তবে আমরা যেভাবে টাকার মান স্থিতিশীল রাখছি তা অপ্রয়োজনীয়। ইউরো ও আন্তর্জাতিক বাজারের সঙ্গে সমন্বয় রেখে টাকার মানও অবমূল্যায়িত হওয়া প্রয়োজন ছিল।

স্থানীয় সরকারের বিষয়ে মন্ত্রী বলেন, ২০১৪ সালের পরিকল্পনায় স্থানীয় সরকারের বিষয়টি ছিল। পরিকল্পনা অনুযায়ী, সরকারী কাজের একটি বড় অংশ সম্পাদন করবে স্থানীয় সরকার। তবে গত তিন মাসে স্থানীয় সরকারের বিষয়ে আমরা কিছু করিনি। এটি আমার করার কথা ছিল। কিন্তু আমি সময় দিতে পারিনি। এটি আমাদের ব্যর্থতা।

তিনি আরও বলেন, এখন আমি বাজেট নিয়ে ব্যস্ত থাকব। তাই এখন আমি এ বিষয়ে সময় দিতে পারব না। আমার জন্য সব থেকে ভাল সময় হলো নবেম্বর থেকে ডিসেম্বর। সুতরাং, আমাদের এক বছর অপেক্ষা করতে হবে। তবে শেখ হাসিনার সরকারের ইচ্ছা ছিল স্থানীয় সরকারের কাঠামোটা এ বছরই ঠিক করা।

আলোচনায় সাবেক অর্থমন্ত্রী সাইদুজ্জামান, ড. রেহমান সোবহান, ড. সালেহউদ্দিন আহমেদ, সিপিডির সম্মানিত ফেলো ড. দেবপ্রিয় ভট্টাচার্য্য, ড. খলিকুজ্জমান, অধ্যাপক জামিলুর রেজা চৌধুরী, খন্দকার বজলুর রহমান প্রমুখ অংশগ্রহণ করেন।

অর্থমন্ত্রী জানান, আলোচনায় সাবেক অর্থমন্ত্রী সাইদুজ্জামান ব্যাংক ও শেয়ারবাজারের প্রতি নজর দিতে বলেছেন। তিনি দক্ষতা বৃদ্ধির প্রতিও গুরুত্ব আরোপ করেন। ড. খলিকুজ্জমান বাজেটে পুষ্টি ও স্বাস্থ্যের ওপর বিশেষ গুরুত্ব দিতে বলেছেন। হতদরিদ্রদের প্রতিও নজর দিতে বলেছেন তিনি।

আলোচনায় বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গবর্নর ড. সালেহউদ্দিন আহমেদ বলেন, আমরা ঋণ নিচ্ছি। কিন্তু মূলধনী বিনিয়োগ হচ্ছে না। এর উত্তরে অর্থমন্ত্রী বলেন, আমাদের উচ্চ মূলধনী বিনিয়োগ রয়েছে। অধ্যাপক জামিলুর রেজা চৌধুরী শিক্ষা খাতে গুরুত্ব দিতে বলেন। তিনি মেট্রোরেলের বিষিয়েও কথা বলেন।

প্রকাশিত : ১০ এপ্রিল ২০১৫

১০/০৪/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

অর্থ বাণিজ্য



ব্রেকিং নিউজ: