কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৫ ডিসেম্বর ২০১৬, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, সোমবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

সম্পর্ক উন্নয়ন, বাণিজ্য ও যোগাযোগ বৃদ্ধি সম্পর্কে আলোচনা হবে

প্রকাশিত : ৮ এপ্রিল ২০১৫
  • ঢাকায় ত্রিদেশীয় সম্মেলন ১২ ও ১৩ এপ্রিল

স্টাফ রিপোর্টার ॥ বাংলাদেশ, ভারত ও মিয়ানমারের মধ্যে বহুমুখী সম্পর্ক উন্নয়নের লক্ষে ঢাকায় ত্রিদেশীয় সম্মেলনের আয়োজন করা হয়েছে। আগামী ১২-১৩ এপ্রিল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে এই সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। এতে তিন দেশের বিশেষজ্ঞ যোগ দেবেন। মঙ্গলবার ঢাকার ভারতীয় হাইকমিশনের এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

সেমিনারে তিন দেশের মধ্যে সম্পর্ক উন্নয়ন, বাণিজ্য ও আন্তঃদেশীয় যোগাযোগ বৃদ্ধি, সমুদ্র অর্থনীতি, পর্যটন ও সংস্কৃতি উন্নয়ন, ভবিষ্যতে সহযোগিতার লক্ষে পদক্ষেপ ইত্যাদি বিষয় নিয়ে আলোচনা হবে। সম্মেলনের আয়োজকরা জানিয়েছেন, তিন দেশের মধ্যে বহুমুখী সম্পর্ক উন্নয়নের লক্ষে এই সম্মেলনের আয়োজন করা হচ্ছে। ঐতিহাসিকভাবেই এই তিনদেশের সঙ্গে সম্পর্ক রয়েছে। সে সম্পর্ক আরও কিভাবে বৃদ্ধি করা যায় সেটা আলোচনা করাই এই সম্মেলনের মূল উদ্দেশ্য। এতে তিন দেশের প্রতিনিধি যোগ দেবেন। সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিন শতাধিক প্রতিনিধি যোগ দেবেন বলে জানা গেছে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, কোলকাতার মাওলানা আবুল কালাম আজাদ ইনস্টিটিউট, ঢাকার রিসার্চ এ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট কালেকটিভ (আরডিসি), বাংলাদেশ-ভারত ফাউন্ডেশন যৌথভাবে এই সম্মেলন আয়োজন করেছে। ত্রিদেশীয় এই সম্মেলনের উদ্বোধনী পর্বে প্রধান অতিথি থাকবেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী। এতে অতিথি হিসেবে যোগ দেবেন ঢাকায় নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার পঙ্কজ শরন, ঢাকায় নিযুক্ত মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূত উ মিউ মিন্ট থান, ভারতের মাওলানা আবুল কালাম আজাদ ইনস্টিটিউটের পরিচালক শ্রীরাধা দত্ত। উদ্বোধনী পর্বে সভাপতিত্ব করবেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক। এতে স্বাগত বক্তব্য রাখবেন আরডিসির সভাপতি অধ্যাপক মেসবাহ কামাল। দুই দিনের সেমিনারের সাতটি অধিবেশন অনুষ্ঠিত হবে। সূত্র জানায়, তিন দেশের মধ্যে এখনও বেশ কিছু অমীমংসিত সমস্যা রয়ে গেছে। কয়েক দশক ধরে ঝুলে থাকা এসব সমস্যা সমাধান নিয়ে তিন দেশের প্রতিনিধিরা আলোচনা করবেন। তারা এসব সমস্যা সমাধানের মাধ্যমে আগামী দিনের সম্পর্ক গতিশীল রাখতে দিক নির্দেশনা প্রদান করবেন।

সেমিনারের প্রথম দিনে বাংলাদেশ, ভারত ও মিয়ানমার সম্পর্ক নিয়ে একটি পর্ব অনুষ্ঠিত হবে। এতে মিয়ানমারে নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার গৌতম মুখোপাধ্যায়, ভারতের সাবেক পররাষ্ট্র সচিব কৃষ্ণান শ্রীনিবাসন, বাংলাদেশ ইতিহাস সম্মিলনীর সভাপতি ড. মুনতাসীর মামুন ও ঢাকায় নিযুক্ত ভারতের ডেপুটি হাইকমিশনার সন্দীপ চক্রবর্তী উপস্থিত থাকবেন। ত্রিদেশীয় সেমিনারে বাণিজ্য ও আন্তঃদেশীয় যোগাযোগ নিয়ে বক্তব্য রাখবেন ভারতের সাবেক স্বরাষ্ট্র সচিব পিপি শীভাস্তাভা, যাতবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের অধ্যাপক ওমপ্রকাশ মিশ্র, মিয়ানমারের তাম্পাদিপা ইনস্টিটিউটের পরিচালক খিন জো উইন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. আসাদুল আলম প্রমুখ।

সেমিনারের সমাপনী অধিবেশনে প্রধান অতিথি থাকবেন শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু। এই অধিবেশনে বিশেষ অতিথি থাকবেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম। এতে আরও বক্তব্য রাখবেন মিয়ামারের ঢাকায় নিযুক্ত কাউন্সিলর কিয়ো সোয়া, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. ইমতিয়াজ আহমেদ, আরডিসির সাধারণ সম্পাদক জান্নাত ই ফেরদৌসি ।

ত্রিদেশীয় সম্মেলনের সমন্বয়ক অধ্যাপক মেসবাহ কামাল মঙ্গলবার জনকণ্ঠকে বলেন, বাংলাদেশ, ভারত ও মিয়ানমারের মধ্যে ঐতিহাসিক সম্পর্ক রয়েছে। এই সম্পর্কের নানা দিক আলোচনার মাধ্যমে দেশগুলো আরও পরস্পরের মধ্যে কিভাবে সহযোগিতা বাড়াতে পারে, সেসব দিক নিয়ে আলোচনা করা হবে। তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশ ও মিয়ানমার দক্ষিণ ও দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার সেতুবন্ধন হিসেবে কাজ করছে।

প্রকাশিত : ৮ এপ্রিল ২০১৫

০৮/০৪/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: