কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৫ ডিসেম্বর ২০১৬, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, সোমবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

পুঁজিবাজারে বিনিয়োগকারীদের অংশগ্রহণ বেড়েছে

প্রকাশিত : ৫ এপ্রিল ২০১৫
  • সাপ্তাহিক বাজার পর্যালোচনা

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ গত সপ্তাহে দেশের প্রধান পুঁজিবাজারে বিনিয়োগকারীদের অংশগ্রহণ বেড়েছে। পুরো সপ্তাহে প্রধান বাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) লেনদেন বাড়লেও কমেছে সব ধরনের মূল্যসূচক। আলোচিত সপ্তাহে ডিএসইতে লেনদেন বেড়েছে ৫০ দশমিক ৯৮ শতাংশ। বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটের হরতাল-অবরোধের মাঝেও বিনিয়োগকারীদের বাজারকে নিয়ে আশাবাদ বেড়ে গেছে, যার কারণে গত সপ্তাহে চলতি বছরের সর্বোচ্চ লেনদেনের ঘটনাও ঘটেছে। ঢাকা স্টক একচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

জানা গেছে, আগের সপ্তাহের চেয়ে ডিএসইতে লেনদেন বেড়েছে ৬০৬ কোটি ১৪ লাখ ৩ হাজার ৯২৯ টাকার। আলোচিত সপ্তাহে ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ১ হাজার ৭৯৫ কোটি ৬ লাখ ৪৫ হাজার ২৩৮ টাকার। আর আগের সপ্তাহে লেনদেন হয়েছিল ১ হাজার ১৮৮ কোটি ৯২ লাখ ১১ হাজার ৩০৯ টাকার।

সমাপ্ত সপ্তাহে ‘এ’ ক্যাটাগরির কোম্পানির শেয়ার লেনদেন হয়েছে ৮৫ দশমিক ৪৮ শতাংশ। ‘বি’ ক্যাটাগরির কোম্পানির লেনদেন হয়েছে ১ দশমিক ৪৬ শতাংশ। ‘এন’ ক্যাটাগরির কোম্পানির শেয়ার লেনদেন হয়েছে ৮ দশমিক ১২ শতাংশ। ‘জেড’ ক্যাটাগরির লেনদেন হয়েছে ৪ দশমিক ৯৫ শতাংশ। এদিকে, ডিএসইর সার্বিক সূচক বা ডিএসইএক্স সূচক কমেছে শূন্য দশমিক ৮২ শতাংশ বা ৩৭ দশমিক ১৬ পয়েন্ট। সপ্তাহের ব্যবধানে ডিএস-৩০ এর সূচক কমেছে শূন্য দশমিক ৬৩ শতাংশ বা ১০ দশমিক ?৮০ পয়েন্ট। অপরদিকে, শরিয়াহ বা ডিএসইএসের সূচক কমেছে শূন্য দশমিক ৭৩ শতাংশ বা ৭ দশমিক ৯৮ পয়েন্ট।

সপ্তাহজুড়ে ডিএসইতে তালিকাভুক্ত মোট ৩২২টি কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের শেয়ার লেনদেন হয়েছে। এরমধ্যে দর বেড়েছে ১০৯টির, কমেছে ১৯২টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ১৮টির। আর লেনদেন হয়নি তিনটি কোম্পানির শেয়ার।

এদিকে, গত সপ্তাহে ডিএসইতে সার্বিক সূচকের পতন ঘটায় ডিএসইর সার্বিক মূল্য আয় অনুপাত (পিই রেশিও) কমেছে ৩ দশমিক ২৯ শতাংশ। আলোচিত সপ্তাহে ডিএসইতে পিই রেশিও দশমিক ৫৫ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ১৬ দশমিক ২৬ পয়েন্টে। আগের সপ্তাহে ডিএসইতে পিই রেশিও ছিল ১৬ দশমিক ৮১ পয়েন্ট।

বিশ্লেষকদের মতে, গত সপ্তাহে বেশিরভাগ শেয়ারের দরপতনের কারণে পিই রেশিও কমে গেছে। সপ্তাহ শেষে খাতভিত্তিক ট্রেইলিং পিই রেশিও বিশ্লেষণে দেখা যায়, ব্যাংক খাতের পিই রেশিও অবস্থান করছে ৭ দশমিক ৪০ পয়েন্টে, সিমেন্ট খাতের ৩১ দশমিক ৫০ পয়েন্ট, সিরামিক খাতের ২৮ দশমিক ৬ পয়েন্টে, প্রকৌশল খাতের ১৯ পয়েন্টে, খাদ্য ও আনুষঙ্গিক খাতের ৩৭ দশমিক ২ পয়েন্টে, জ্বালানি ও বিদ্যুত খাতের ১২ দশমিক ৮ পয়েন্টে, সাধারণ বীমা খাতের ১০ দশমিক ৭ পয়েন্টে, তথ্য ও প্রযুক্তি খাতের ২৩ দশমিক ৮ পয়েন্টে, পাট খাতের ১৬০ দশমিক ৩ পয়েন্টে, বিবিধ খাতের ৩৮ পয়েন্টে, এনবিএফআই খাতের ১৭ দশমিক ২ পয়েন্টে, কাগজ খাতের ৬ দশমিক ৮ পয়েন্টে, ওষুধ ও রসায়ন খাতের ২৮ দশমিক ৯ পয়েন্টে, সেবা ও আবাসন খাতের ৩২ দশমিক ৪ পয়েন্টে, চামড়া খাতের ২১ দশমিক ৪ পয়েন্টে, টেলিযোগাযোগ খাতের ৩২ দশমিক ৪ পয়েন্টে, বস্ত্র খাতের ১০ দশমিক ৯ পয়েন্টে এবং ভ্রমণ ও অবকাশ খাতের ১১ দশমিক ১ পয়েন্টে অবস্থান করছে।

প্রকাশিত : ৫ এপ্রিল ২০১৫

০৫/০৪/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: