কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৪ ডিসেম্বর ২০১৬, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

আর্সেনালের কাছে নাকাল লিভারপুল

প্রকাশিত : ৫ এপ্রিল ২০১৫

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ গত বছর লিভারপুলের মাঠে প্রথম সাক্ষাতে ড্র করে ফেরাটাই যেন শক্তিতে বলীয়ান করল আর্সেনালকে। লন্ডনের বিখ্যাত এমিরেটস স্টেডিয়ামে তাই লিভারপুলকে পেয়ে ভালভাবেই চেপে ধরল আর্সেন ওয়েঙ্গারের দল। ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগের গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে অল রেডদের ৪-১ গোলে বিধ্বস্ত করে পূর্ণ ৩ পয়েন্ট সংগ্রহ করল আর্সেনাল। এ জয়ের ফলে ৩১ ম্যাচে ৬৩ পয়েন্ট নিয়ে তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে উঠে আসল গানার্স শিবির। যদিও এক ম্যাচ কম খেলে গত আসরের চ্যাম্পিয়ন ম্যানচেস্টার সিটি ৬১ পয়েন্ট নিয়ে সামান্যই পিছিয়ে। আর যথারীতি শীর্ষে আছে শিরোপা পুনরুদ্ধারের মিশনে দুর্দান্ত খেলে যাওয়া চেলসি। আর বড় এই পরাজয়ের পর লিভারপুল সমান ৩১ ম্যাচে ৫৪ পয়েন্ট নিয়ে পঞ্চম স্থানেই থাকল। হারের সঙ্গে আরেকটি বিষাদ যোগ হয়েছে অল রেড শিবিরের জার্মান মিডফিল্ডার এমরে ক্যান লালকার্ড পাওয়াতে। এমিরেটসে প্রথম থেকেই সফরকারীদের চেপে ধরে আর্সেনাল। গানার্স আক্রমণ ভাগ সাঁড়াশির মতো চেপে বসে অল রেডদের রক্ষণদুর্গের ওপর। প্রথম মিনিটেই গোলের সুযোগ তৈরি হয়ে যায়। কিন্তু চিলির ফরোয়ার্ড এ্যালেক্সিস সানচেজ পোস্টের বাইরে দিয়ে মারলে সে যাত্রা বেঁচে যায় লিভারপুল। ৪ মিনিটের সময় সান্তি ক্যাজোরলার তীব্র শট ঝাঁপিয়ে পড়ে রুখে দেন লিভারপুলের বেলজিয়ান গোলরক্ষক সাইমন মিগনোলেট। এরপর প্রায় প্রতিমুহূর্তেই মিগনোলেটকে অগ্নিপরীক্ষায় ফেলেছেন আর্সেনালের আক্রমণভাগ। তবে তাঁর দক্ষতায় বার বার বেঁচে গেছে লিভারপুল। ১০ মিনিটের সময় অবশ্য নিজেরাও একটা প্রতি আক্রমণ থেকে সুযোগ তৈরি করেছিল। কিন্তু জর্ডান হেন্ডারসনের শট লক্ষ্যভেদ করতে পারেনি গানার্স রক্ষণভাগের দৃঢ়তায়। এর পরই মূলত কিছুটা যেন নিজেদের গুছিয়ে নিতে শুরু করে লিভারপুল। খেলা চলে আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণে। তবে বেশিক্ষণ সময় লাগেনি অল রেডদের আরও বিপর্যস্ত পরিস্থিতিতে ফেলে দেয়ার জন্য ওয়েঙ্গার শিষ্যদের। প্রথমার্ধের শেষদিকে কিছুটা যেন জিমিয়ে পড়ে অল রেড শিবির। সেই সুযোগে ৩৭ মিনিটের সময় এ্যারন রামসের কাছ থেকে বল পেয়ে বক্সের ভেতর থেকে কোণাকোণি বাঁকানো শটে লক্ষ্যভেদ করেন হেক্টর ব্যালেরিন (১-০)। গোল হজম করে কোণঠাসা হয়ে পড়েন লিভারপুল। তাদের আরও চেপে ধরে উজ্জীবিত আর্সেনাল। ৪০ মিনিটে ফ্রি কিক থেকে আর্সেনালের জার্মান মিডফিল্ডার মেসুত ওজিল গোল করেন (২-০)। থামেনি গানার্সরা। প্রথমার্ধের একেবারে শেষ বাঁশি বাজার আগে সংঘবদ্ধ আক্রমণ থেকে বল পেয়ে লিভারপুলের জালে বল জড়িয়ে দেন সানচেজ (৩-০)।

প্রথমার্ধে বড় ব্যবধানে পিছিয়ে থাকলেও দ্বিতীয়ার্ধে অনেক গোছানো ফুটবল উপহার দিতে থাকে লিভারপুল। হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হতে থাকে। তবে সুযোগ তৈরি করেও গোল পাচ্ছিল না ব্রেন্ডন রজার্সের দল। অবশেষে ৭৬ মিনিটে সংঘবদ্ধ আক্রমণ ঠেকাতে গিয়ে বক্সের মধ্যে ফাউল করলে পেনাল্টি পায় লিভারপুল। হেন্ডারসন গোল করে ব্যবধান কমান (৩-১)। ব্যবধান কমানোর পরে ম্যাচে ফিরে আসার জন্য তীব্র প্রচেষ্টা চালায় অল রেডরা। কিন্তু ৮৪ মিনিটের সময় আর্সেনালের আক্রমণ ঠেকাতে গিয়ে ড্যানি ওয়েলবেককে পেছন থেকে টেনে ধরে ফেলে দেন এমরে ক্যান। সরাসরি লালকার্ড দেখে মাঠ ছাড়তে হয় তাঁদের। এরপর আর কোন আক্রমণ তীব্র হয়নি লিভারপুলের। উল্টো ১০ জনের লিভারপুলকে ঠেসে ধরে নতুন করে গানার্সরা। শেষ বাঁশি বাজার ঠিক আগ মুহূর্তে ইনজুরি সময়ে আর্সেনালের হয়ে আরেকটি গোল করেন অলিভার গিরড (৪-১)। বড় পরাজয় নিয়েই মাঠ ছাড়তে হয় অল রেডদের।

প্রকাশিত : ৫ এপ্রিল ২০১৫

০৫/০৪/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



ব্রেকিং নিউজ: