কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৩ ডিসেম্বর ২০১৬, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

টিফিন উধাও!

প্রকাশিত : ৪ এপ্রিল ২০১৫
  • সাইফুল ইসলাম জুয়েল

রাফিনদের ক্লাসে মজার এক ঘটনা ঘটেছে। দেড়টা থেকে ২টা পর্যন্ত ওদের টিফিন পিরিয়ড। ও সময়ের ক্লাসের সবাই হয় মাঠে নয়ত ইনডোরে খেলাধুলা নিয়ে ব্যস্ত থাকে। আর এই সময়ের মধ্যে ওদের ক্লাসে নাকি চোর পড়েছে। বেচারা চোর! আর কিছু পেল না। ওদের ক্লাসের মোটা করে ছেলেটা, নাম রতন, ওর টিফিনবক্সটা পুরোই খালি করে দিয়ে গেছে! রতনটা ওর স্বাস্থ্যের কারণে খেলতেও যায় না। টিফিন টাইমেও ক্লাসে চুপচাপ বসে থাকে। কাল এক টিচারের সঙ্গে দেখা করতে গিয়েছিল, আর সেই সময়েই চোর নাকি কা-টা ঘটিয়ে ফেলেছে। বেচারা তো কেঁদে কেটেই একাকার করে ফেলল। বন্ধুদের মধ্যেই কেউ এটা করেছেÑ এমনটাই ধারণা ওর। কিন্তু বন্ধুদের তো আর চোর বলা যায় না, তাই ও পরোক্ষভাবে সবাইকে হুমকি দিয়েছে, ‘কালকের মধ্যে যদি স্বীকার না করোÑ কে টিফিন খেয়েছ, তাহলে হেডসারের কাছে বিচার দেব!’ ক্লাসের সবাই ভয়ে তটস্থ। হেডস্যারের কাছে বিচার দিলে কি আর ওদের ক্লাসের মানইজ্জত থাকবে! শেষে স্কুলজুড়ে সবাই জানবেÑ ওদের ক্লাসের ছাত্ররা টিফিন চোর! ছিঃ কী লজ্জার কথা!

রাফিন অবশ্য গতকাল স্কুলে আসেনি। মাঝে মাঝেই স্কুল ফাঁকি দেয় ও। ভাল ছাত্র। তাই স্যাররাও কিচ্ছু বলেন না ওকে। রাফিন বলে, স্কুল ফাঁকি দিয়ে ও তখন এ্যাডভেঞ্চারে বের হয়। সে এক ভিন্ন মজা। কত অভিজ্ঞতাই না হয়। এ্যাডভেঞ্চার মানেই রহস্য আর রহস্য। এসব কাজে মাঝে মাঝে টিচাররাও ওর শরণাপন্ন হন। সে যাই হোক, আজ স্কুলে যেতেই ও টের পেলÑক্লাসটা কেমন যেন থমথমে হয়ে আছে। ঠিক অন্য দিনের মতো নয়। বুঝল, নিশ্চিত কিছু একটা হয়েছে। কি হয়েছেÑ ধারণা করার চেষ্টা করল ও। কারও আত্মীয়স্বজন এ্যাক্সিডেন্ট করেনি তো? না, তাহলে অবশ্য সবাই হাসপাতালে যাওয়ার জন্যই আলোচনা করত। তাহলে? আর বেশি ভাববার দরকার হলো না ওর। ক্লাসের ক্যাপ্টেন রাহাত এসে ওকে এক পাশে ডেকে নিয়ে সব কিছু গুছিয়ে বলল। কেউ দোষ স্বীকার না করলে রতনটা আজ টিফিনের পরে হেড স্যারের কাছে যাবেই যাবে!

প্রথম ক্লাস শুরু হয়ে গেছে। তাতে কী, রাফিনের গোয়েন্দাগিরিও থেমে নেই। একে একে সবাইকে পরখ করছে ও। কে ঘন ঘন নখে দাঁত বসাচ্ছে, কার বাম হাতের আঙুলগুলো কাঁপছে, কে রতনকে চোরা চোখে বার বার দেখছেÑ কোন কিছুই চোখ এড়িয়ে যাচ্ছে না ওর। দুটো ক্লাস শেষ হতে না হতেই রাফিন সোজা রতনের সামনে গিয়ে দাঁড়াল। রাহাতের দিকে তাকিয়ে জোর গলায় বলল, ‘টিফিন রহস্য উদঘাটন!’

সবাই বড় বড় চোখ করে ওর দিকে তাকাল। কেউ কেউ তো ওকে সন্দেহ করলÑ নিজেকে জাহির করার জন্য নিশ্চয়ই উল্টাপাল্টা কিছু বের করেছে! সবাই রতন আর ওকে ঘিরে দাঁড়াল। রতন ত্বরিত বলল, ‘উদঘাটন হয়েছে তো নাম বলে ফেল! স্যারের কাছে যাব না। বেচারাকেও কিচ্ছু বলব না।’

‘চোরটা হলো’, এটুকু বলে থেমে গেল ও। সবার কৌতূহলটা উপলব্ধি করে মজা নিতে চাইছে। কয়েকজন তো উত্তেজনায় সঙ্গে সঙ্গে বলেই ফেলল, ‘আরে কে চুরি করেছে বল না!’

‘বলছি বলছি। তার আগে রতনের কাছে একটা প্রশ্ন করার ছিল, রতন, আজকে টিফিনে কী এনেছিস? নুডলস?’

রতনের চোখ দুটো গোল গোল হয়ে গেল। ‘ইয়ে মানে... তুই জানলি কী করে?’

‘বলছি, তার আগে তোকে আমার একটা উপদেশ দেবার ছিলÑ তুই খেলাধুলা শুরু কর। স্বাস্থ্যের ব্যাপারে একটু সচেতন হও।’

রতনটা একটু ক্ষ্যাপাস্বরে বলল, ‘উপদেশ পরে দে। আগে টিফিন চোরের নাম বল।’

রাফিন হেসে বলল, ‘বলছি বলছি। আমাদের মহামান্য টিফিন চোর হলেন’, একটু থেমে তারপর ও রতনের দিকে ইঙ্গিত করে বলল, ‘ইনি!’

সবাই অবাক। রতন বিস্ময়ে বসা অবস্থা থেকে মুহূর্তেই উঠে দাঁড়াল। ‘মানে?’ জানতে চাইল ও।

রাফিন বেশ রহস্য করে বলল, ‘তোমার দাঁত দেখাও।’

রতন ইতস্তত ওর মুখ খুলল। সবার দিকে চোখ বুলিয়ে রাফিন বলল, ‘বন্ধুরা, তোমরা কি কিছু দেখতে পাচ্ছ?

‘মুখটা হলদেটে। কি যেন লেগে আছে দাঁতে’, কেউ একজন জবাব দিল।

‘হ্যাঁ, ঠিক ধরেছো। ওটা নুডলসের অংশ। রতন, তোমার টিফিন বক্সটা একবার খোল তো।’

রতন ভয়ে ভয়ে ওর টিফিন বক্সটা খুলল। কিন্তু গতকালের মতো তার ভেতরটা আজও খালি! রতনসহ সবাই অবাক।

‘তার মানে আজও কেউ একজন ওর টিফিন সাবাড় করে দিয়েছে?’ বাকিদের মধ্য থেকে একজন জানতে চাইল।

‘হ্যাঁ। আর সেই জন হলেনÑ আমাদের রতন। বেচারা খিদের চোটে ক্লাস চলাকালীনই টিফিন বক্স খুলে অল্প অল্প করে খেয়ে শেষ করে ফেলেছে। গতকালও একই অবস্থা করেছিল। কিন্তু নিজের কীর্তি নিজেই টের পায়নি। পরে টিফিন পিরিয়ডে বক্স খালি দেখে অবাক হয়েছে। আজকেও যে কালকের মতো কা- করে ফেলেছে, সেটা ও ঘূণাক্ষরেও বুঝতে পারত না। ভাগ্যিস, ওর দাঁতের ফাঁকে নুডলস আটকে ছিল!’

সেদিন লজ্জা পেয়ে রতন নিয়মিত খেলাধুলায় অংশ নিতে লাগল। কয়েকমাসের মধ্যে ওজন কমিয়ে ফেলল অর্ধেকে। আর কখনও ওদের ক্লাসের কারও টিফিন চুরি যায়নি। তবে সেদিনের পর থেকে একটি কথা ওরা প্রায়ই বলে, ‘চোর ধরা পড়েছে দাঁতের ফাঁকে’!

প্রকাশিত : ৪ এপ্রিল ২০১৫

০৪/০৪/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: