মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
৯ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

বিসিএল শুরু রবিবার

প্রকাশিত : ৪ এপ্রিল ২০১৫

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ বিশ্বকাপ শেষ করেও খুব বেশি বিশ্রামের ফুরসত নেই জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের। পাকিস্তান ক্রিকেট দল ১৩ এপ্রিল আসছে পূর্ণাঙ্গ সিরিজ খেলতে। সময় হয়েছে প্রস্তুতি নেয়ার। সিরিজের প্রথমেই তিন ওয়ানডে থাকায় চিরাচরিত অনুশীলনের চেয়ে ম্যাচ প্র্যাকটিসের দিকেই মনোযোগ দিয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। সে জন্য প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেট আসর বাংলাদেশ ক্রিকেট লীগ (বিসিএল) প্রথমবারের মতো ওয়ানডে ফরমেটে শুরু হচ্ছে রবিবার থেকে। বিসিএলের চার দল- বিসিবি উত্তরাঞ্চল, প্রাইম ব্যাংক দক্ষিণাঞ্চল, ওয়ালটন মধ্যাঞ্চল ও ইসলামী ব্যাংক পূর্বাঞ্চল পরস্পরের বিরুদ্ধে একটি করে ম্যাচ খেলবে। তাই বিশ্বকাপ স্কোয়াডে থাকা এবং স্কোয়াডের বাইরে থাকা ক্রিকেটারদের মধ্যে আরেকটি অগ্নিপরীক্ষা। আসন্ন সিরিজে দলে সুযোগ পাওয়ার প্রচেষ্টা। ম্যাচগুলো অনুষ্ঠিত হবে মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় স্টেডিয়াম ও ফতুল্লার খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়ামে। দিবারাত্রির ম্যাচগুলো শুরুর সময় দুপুর ১টা ৩০ মিনিটে। সেরা দুটি দল আগামী শনিবার খেলবে ফাইনাল।

মূলত ১৯ মার্চ শেষ হয়ে যায় মাশরাফি বিন মর্তুজা শিবিরের বিশ্বকাপ। কোয়ার্টার ফাইনাল থেকে বিদায় নেয় বাংলাদেশ দল। এরপর দেশে ফিরে প্রায় দুই সপ্তাহ বিশ্রাম পেয়েছেন সবাই। কিন্তু আবার ব্যাট-বল হাতে নেয়ার সময় হয়েছে। জাতীয় দলের বাইরে থাকা ক্রিকেটাররাও প্রায় এক মাস মাঠের বাইরে। জাতীয় ক্রিকেট লীগ শেষ করে সবাই ছিলেন যার যার মতো বিশ্রামে। তবে এবার আরেকটি প্রতিযোগিতা। যারা জাতীয় দলে সুযোগ পাওয়ার অপেক্ষায় আছেন বা পাইপ-লাইনে তাদের জন্য দারুণ একটি সুযোগ নিজ দক্ষতা ও সামর্থ্যরে প্রমাণ দেয়ার। দারুণ কিছু করতে পারলে হয়ত সুযোগটা মিলেও যেতে পারে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে সিরিজে জাতীয় দলের জার্সি গায়ে চড়ানোর।

বিশ্বকাপের আগে যেমনটি দেখা গেছে সাব্বির রহমান রুম্মান ও নাসির হোসেনের মধ্যে এক অঘোষিত লড়াই, সেটা এখানেও থাকবে। আবার ওপেনার এনামুল হক বিজয় ইনজুরির কারণে বিশ্বকাপ থেকে ছিটকে গিয়েছিলেন। বিসিএলেও খেলতে পারছেন না, সিরিজেও তাকে পাওয়া নিয়ে সংশয় আছে। তার বদলে বিশ্বকাপে সুযোগ পেয়েও কাজে লাগাতে পারেননি ইমরুল কায়েস। তার জায়গায় অন্য কারও সুযোগ মিলে যেতে পারে ভাল কিছু করে দেখাতে পারলে। পেসার আল আমিন হোসেনের একটা দুঃখ থেকে গেছে মাঝপথে একটি ভুলের কারণে তাকে দেশে ফিরতে হয়েছে। স্বপ্নের বিশ্বকাপ খেলা হয়নি শৃঙ্খলা ভঙ্গের কারণে। একই কষ্ট আছে অভিজ্ঞ পেসার শফিউল ইসলামেরও, আলআমিনের পরিবর্তে দলে ঠাঁই করে নিলেও কোন ম্যাচে নামা হয়নি। এবার এ দু’জনেরও গর্জে উঠে নিজেকে প্রমাণ করার সুযোগ। টপঅর্ডারে মুমিনুল হক সৌরভ বিশ্বকাপে মাত্র একটি ম্যাচ খেলার সুযোগ পেয়েছেন। ব্যাট হাতে দারুণ কিছু করে নিজের সামর্থ্যরে প্রমাণ দেয়ার একটি উপলক্ষ তারও। অথবা এদের জায়গায় অন্য কারও ঢুকে গেলেও অবাক হওয়ার কিছু থাকবে না। সে জন্যই ওয়ানডে ফরমেটে পাকদের বিরুদ্ধে সিরিজের আগে বিসিএল। সবমিলিয়ে সিরিজের আগেই দারুণ আকর্ষণীয় একটি ওয়ানডে আসর হতে যাচ্ছে দেশের মাটিতে।

অফ ফর্ম শব্দটা বাংলাদেশী ওপেনারদের সঙ্গে এখন প্রাত্যহিক সঙ্গী হয়ে গেছে। বিশ্বকাপেও ওপেনাররা দারুণ শুরু এনে দিতে পারেননি দলকে। বিশেষ করে নির্ভরযোগ্য ওপেনার তামিম ইকবালের ফর্মহীনতা নিয়ে টিম বাংলাদেশকে পুরো বিশ্বকাপেই ভুগতে হয়েছে। এবার নিজেকে ফিরে পাওয়ার একটা উপলক্ষ হিসেবেও নিতে পারেন তিনি। আরেকটি সিরিজের আগেই রানে ফেরার সুযোগ তার বিসিএল দিয়ে। তাই তামিমের জন্য বেশ বড় পরীক্ষা এই বিসিএল। বিশ্বকাপ স্কোয়াডে ছিলেন না অভিজ্ঞ বাঁহাতি স্পিনার আব্দুর রাজ্জাক। তবে জাতীয় লীগে দারুণ নৈপুণ্য দেখিয়েছেন। এছাড়া তরুণ উদীয়মান লেগস্পিনার জুবায়ের আহমেদ লিখনও ঠাঁই পাননি। এবার তাদের জন্যও লড়াই। তবে এসব লড়াইয়ে থাকছেন না দেশসেরা ক্রিকেটার, অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। সিরিজের আগে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লীগে (আইপিএল) কয়েকটি ম্যাচ খেলার জন্য তিনি এখন ভারতে। গত আসরের চ্যাম্পিয়ন কলকাতা নাইট রাইডার্সের হয়ে খেলবেন তিনি সিরিজ শুরুর আগ পর্যন্ত।

বিসিএলের চারটি দল

প্রাইম ব্যাংক দক্ষিণাঞ্চল ॥ মাশরাফি বিন মর্তুজা (অধিনায়ক) আব্দুর রাজ্জাক, ইমরুল কায়েস, সৌম্য সরকার, মোহাম্মদ মিঠুন, তুষার ইমরান, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত, নুরুল হাসান সোহান, জিয়াউর রহমান, শাহরিয়ার নাফিস, সোহাগ গাজী, এনামুল হক জুনিয়র, রুবেল হোসেন ও আলআমিন হোসেন।

বিসিবি উত্তরাঞ্চল ॥ মুশফিকুর রহীম (অধিনায়ক) নাঈম ইসলাম, জুনায়েদ সিদ্দিকী, নাসির হোসেন, সাব্বির রহমান, মাহমুদুল হাসান, মাইশুকুর রহমান, তাইহুল ইসলাম, মুক্তার আলী, ফরহাদ রেজা, দেলোয়ার হোসেন, আরিফুল হক, সাঞ্জামুল ইসলাম ও জহুরুল ইসলাম।

ওয়ালটন মধ্যাঞ্চল ॥ মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ (অধিনায়ক), শামসুর রহমান, আব্দুল মজিদ, রনি তালুকদার, মেহরাব হোসেন, মোশাররফ হোসেন, ইলিয়াস সানি, মোহাম্মদ শহীদ, মোহাম্মদ শরীফ, শুভাগত হোম, ধীমান ঘোষ, তাসকিন আহমেদ, মার্শাল আইয়ুব ও নাদিফ চৌধুরী।

ইসলামী ব্যাংক পূর্বাঞ্চল ॥ তামিম ইকবাল (অধিনায়ক), মেহেদী হাসান মারূফ, সাদমান ইসলাম, অলক কাপালী, নাবিল সামাদ, আসিফ আহমেদ, আরাফাত সানি, আবুল হাসান রাজু, শফিউল ইসলাম, কামরুল ইসলাম রাব্বী, লিটন কুমার দাস, জুবায়ের আহমেদ ও তাসামুল হক।

প্রকাশিত : ৪ এপ্রিল ২০১৫

০৪/০৪/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



ব্রেকিং নিউজ: