রৌদ্রজ্জ্বল, তাপমাত্রা ২৩.৯ °C
 
৯ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

‘সেরেনা উইলিয়ামসের ৭০০’

প্রকাশিত : ৩ এপ্রিল ২০১৫
‘সেরেনা উইলিয়ামসের ৭০০’

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ আরেকটি মাইলফলক স্পর্শ করলেন সেরেনা উইলিয়ামস। জার্মানির সাবিনে লিসিকিকে হারিয়ে ক্যারিয়ারের ৭০০তম ম্যাচ জয়ের অবিস্মরণীয় কীর্তি গড়লেন আমেরিকান টেনিসের এই জীবন্ত কিংবদন্তি। তবে মিয়ামি ওপেনে জয়টা সহজে আসেনি তার। বুধবার টুর্নামেন্টের কোয়ার্টার ফাইনালে বিশ্ব টেনিস র‌্যাঙ্কিংয়ের নাম্বার ওয়ান তারকা ৭-৬ (৭/৪), ১-৬ এবং ৬-৩ গেমে হারান জার্মানির তরুণ প্রতিভাবান খেলোয়াড় সাবিনে লিসিকিকে। আর লিসিকিকে হারিয়ে ক্যারিয়ারে ৭০০ ম্যাচ জয়ের পর দারুণ উচ্ছ্বসিত সেরেনা উইলিয়ামস।

মিয়ামি ওপেনের সেমিফাইনালে এখন সেরেনা উইলিয়ামসের প্রতিপক্ষ রোমানিয়ার সিমোনা হ্যালেপ। তৃতীয় বাছাই হ্যালেপ টুর্নামেন্টের কোয়ার্টার ফাইনালে সেরেনা উইলিয়ামসেরই স্বদেশী সেøায়ানে স্টিফেন্সকে হারিয়ে শেষ চারের টিকেট নিশ্চিত করেন। শেষ আটের লড়াইয়ে হ্যালেপ ৬-১ এবং ৭-৫ গেমের সহজেই হারান স্টিফেন্সকে। সেরেনা উইলিয়ামস এবং সিমোনা হ্যালেপের লড়াইটা এবার জম্পেশই হবে বলে টেনিসপ্রেমীদের ধারণা। কেননা গত মাসে ইন্ডিয়ান ওয়েলসের সেমিফাইনালেও একে অপরের প্রতিপক্ষ ছিলেন এই দুই তারকা। কিন্তু হাঁটুর ইনজুরির কারণে টুর্নামেন্ট থেকেই নাম প্রত্যাহার করে নেন সেরেনা উইলিয়ামস। এর ফলে ফাইনালে জায়গা করে নিয়েছিলেন হ্যালেপ। ইন্ডিয়ান ওয়েলসের শিরোপা জয়ের লড়াইয়ে হ্যালেপ জেলেনা জাঙ্কোভিচকে হারিয়ে শিরোপা জয়ের স্বাদ পান।

বর্তমান বিশ্ব মহিলা টেনিসে সেরেনা উইলিয়ামস এবং সিমোনা হ্যালেপ দুজনই দারুণ ফর্মে রয়েছেন। মৌসুমের প্রথম গ্র্যান্ডসøাম টুর্নামেন্ট অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে দুর্দান্ত পারফর্মেন্স করেই চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করেন তিনি। সেইসঙ্গে ৩৩ বছর বয়সী সেরেনা উইলিয়ামস টানা ১৯ ম্যাচে অপরাজিত আছেন। আর রোমানিয়ার হ্যালেপ এবারের মৌসুমে ২৬ ম্যাচ খেলে তার ২৪টিতেই জয়ের স্বাদ পেয়েছেন। মিয়ামি ওপেনে সাতবার চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন সেরেনা উইলিয়ামস। এই নিয়ে অষ্টমবারের মতো মায়ামি শিরোপা জয়ের লক্ষ্যেই কোর্টে নামবেন তিনি। কোয়ার্টার ফাইনালে জয় পেতে রীতিমতো ঘাম ঝড়াতে হয়েছে তাকে। প্রতিপক্ষ ২৭তম বাছাই জার্মান তারকার কাছে প্রথম সেটেও কঠিন লড়াইয়ের মুখে পড়েছিলেন। সেটটি টাইব্রেকে যুক্তরাষ্ট্রের শীর্ষ বাছাই সেরেনা জয় করে নিলেও দ্বিতীয় সেটে তাকে দাঁড়াতেই দেয়নি লিসিকি। শেষ সেটে সেরেনার বেশ আনফোর্সড এররসের সুযোগে লিসিকি ব্রেকপয়েন্টসহ আগের সেট মিলিয়ে টানা ছয় ম্যাচে জয়ী হয়ে এগিয়ে যান। কিন্তু টানা দুইবারের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন সেরেনা স্বরূপে ফিরতে খুব বেশি সময় নেননি। কঠিন সময়ে জাত চ্যাম্পিয়নের মতো খেলে ব্রেক পয়েন্ট অর্জন করে ম্যাচে ফিরেন তিনি।

আর সাবিনে লিসিকির বিপক্ষে জয়ের ফলে ডব্লিউটিএর ইতিহাসে অষ্টম খেলোয়াড় হিসেবে ৭০০ ম্যাচ জয়ের রেকর্ড গড়েন সেরেনা উইলিয়ামস। ১৪৪২ ম্যাচ জিতে এই তালিকায় শীর্ষে রয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক তারকা মার্টিনা নাভ্রাতিলোভা। কষ্টার্জিত জয়ের পর উচ্ছ্বসিত সেরেনা উইলিয়ামস। কোর্টে কেক কেটেই জয় উদযাপন করেন আমেরিকান তারকা। তবে তিনি যে ৭০০ জয়ের আভিজাত্য ক্লাবে উঠেন তা তিনি নাকি জানতেনই না। এ বিষয়ে ম্যাচ শেষের সংবাদ সম্মেলনে সেরেনা উইলিয়ামস বলেন, ‘এই রেকর্ডের বিষয়ে আমি কিছুই জানতাম না। আমি শুধু নিজের সেরা খেলাটা উপহার দেয়ার জন্যই কোর্টে নামি। ইতিবাচক খেলার চেষ্টা করি। সবসময়ই ম্যাচ জয়ের লক্ষ্য নিয়েই খেলতে থাকি।’ তাই মিয়ামির সেমিফাইনালেও কঠিন লড়াইয়ের প্রত্যাশা করছেন সেরেনা। সেরেনার বিপক্ষে একটি জয় পেয়েছিলেন হ্যালেপ। গতবছরের অক্টোবরে। অভিজ্ঞ সেরেনার বিপক্ষে এবারের লড়াইটা যে কঠিন হবে তা মানছেন হ্যালেপও। এ বিষয়ে তিনি বলেন, ‘আমি তার বিপক্ষে কেবল একটি ম্যাচে জয় পেয়েছিলাম। তাই আমি মনে করি বিশ্বের সেরা খেলোয়াড়ের বিপক্ষে কঠিন লড়াই হবে। কেননা সে একজন অভিজ্ঞতাসম্পন্ন খেলোয়াড়।’ মিয়ামি ওপেনের কোয়ার্টার ফাইনালে পুরুষ এককে জয়ের দেখা পেয়েছেন গ্রেট ব্রিটেনের এ্যান্ডি মারে এবং চেক প্রজাতন্ত্রের টমাস বার্দিচ। টুর্নামেন্টের তৃতীয় বাছাই মারে ৩-৬, ৬-৪ এবং ৬-১ গেমে হারান অস্ট্রেলিয়ার ডোমিনিক থিয়েমকে। আর টমাস বার্দিচ ৬-৩, ৬-৪ গেমে সহজেই পরাজিত করেন আর্জেন্টিনার জোয়ান মোনাকোকে।

প্রকাশিত : ৩ এপ্রিল ২০১৫

০৩/০৪/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



ব্রেকিং নিউজ: