কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৩ ডিসেম্বর ২০১৬, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

খালেদার সঙ্গে আপোস মানেই গণতন্ত্রের মৃত্যুদণ্ড স্বাক্ষর করা ॥ তথ্যমন্ত্রী

প্রকাশিত : ২ এপ্রিল ২০১৫, ০১:২৭ এ. এম.

সংসদ রিপোর্টার ॥ তথ্যমন্ত্রী ও জাসদের সভাপতি হাসানুল হক ইনু জঙ্গী-আগুনসন্ত্রাসীদের সঙ্গে কোন ধরনের সংলাপের সম্ভাবনা নাকচ করে দিয়ে বলেছেন, বাংলাদেশকে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে মানুষ মেরে খালেদা জিয়া প্রকাশ্য জনগণের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেছেন। খালেদা জিয়ার সঙ্গে আপোস করা মানেই গণতন্ত্রের মৃত্যুদণ্ডে স্বাক্ষর করা। তাই দেশে এখন কঠিন যুদ্ধ চলছে। এ যুদ্ধে খালেদা জিয়া জিতলে বাংলাদেশ পাকিস্তান-আফগানিস্তান, তালেবানী, বোকো হারাম, জঙ্গী-আইএসের রাজত্বে পরিণত হবে।

স্পীকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে বুধবার সংসদ অধিবেশনে রাষ্ট্রপতির ভাষণের ওপর সাধারণ আলোচনায় অংশ নিয়ে তিনি এসব কথা বলেন। আলোচনায় আরও অংশ নেন সরকারী দলের এ্যাডভোকেট আবদুল মতিন খসরু ও নজরুল ইসলাম বাবু।

তথ্যমন্ত্রী বিএনপি-জামায়াত জোটের কঠোর সমালোচনা করে বলেন, একদিকে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে জাদুকরী উন্নয়ন চলছে, অন্যদিকে উন্নয়ন ঠেকাতে খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে নিষ্ঠুরতম ধ্বংসাত্মক কর্মকা- চলছে। তিনি বাংলাদেশকে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দিতে প্রকাশ্য যুদ্ধ ঘোষণা করেছেন।

তথ্যমন্ত্রী আরও বলেন, খালেদা জিয়া চক্রান্ত-ষড়যন্ত্র চান, গণতন্ত্র-নির্বাচন বা শান্তি চান না। উনি সংলাপ চান যুদ্ধাপরাধীদের রেহাই দেয়ার জন্য? খালেদা-তারেকের মামলা থেকে রক্ষার জন্য? কিন্তু পোড়া মানুষের স্তূপের ওপর দাঁড়িয়ে শেখ হাসিনার সরকার কোন সংলাপ করতে পারেন না।

তিনি প্রশ্ন রেখে বলেন, সংলাপপন্থীদের এজেন্ডা কী? সংলাপের কথা বলেন ২১ আগস্ট মামলা, যুদ্ধাপরাধীদের রক্ষা, অস্বাভাবিক সরকার আনা কিংবা মাইনাস হয়ে যাওয়া খালেদা জিয়াকে সংলাপন্থীরা কী রক্ষা করতে চান? পারবেন না, হবে না।

হাসানুল হক ইনু বলেন, খালেদা জিয়া এখন রাজনীতিক নন, তিনি এখন সন্ত্রাসী। বিএনপি রাজনৈতিক দল নয়, এটা একটা সন্ত্রাসীদের চক্র। এই সন্ত্রাসী খালেদা জিয়াকে গণতন্ত্রের বাজারে বিচরণ করতে দিলে গণতন্ত্রকেই আগুন দিয়ে ধ্বংস করে দেবে। উনি গণতন্ত্রের জন্য বিপদ। গণতন্ত্রকে রক্ষা করতে হলে খালেদা জিয়াকে রাজনীতির বাইরে রাখতে হবে।

সাবেক আইনমন্ত্রী আবদুল মতিন খসরু বলেন, খালেদা জিয়া আজ রাজনীতি থেকে হারিয়ে গেছেন। খালেদা জিয়া দেশের যা ক্ষতি করেছেন তা এক শ’ বছরেও পূরণ হবে না। এই জঙ্গীবাদী-সন্ত্রাসী বিএনপি-জামায়াত মানবতা, গণতন্ত্র ও দেশের শত্রু। ১৩০ জন মানুষ হত্যার জন্য খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে ১৩০টি হত্যা মামলা হওয়া উচিত।

মহাতীর্থ লাঙ্গলবন্দের দখলকৃত জায়গা উদ্ধারের দাবি ॥ এর আগে পয়েন্ট অব অর্ডারে দাঁড়িয়ে সম্প্রতি নারায়ণগঞ্জের মহাতীর্থ স্থান লাঙ্গলবন্দে পদদলিত হয়ে ১০ পুণ্যার্থীর মৃত্যুর ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করে সরকারী দলের পঞ্চানন বিশ্বাস বলেন, হাজারো বছরের হিন্দু সম্প্রদায়ের তীর্থস্থান হচ্ছে এই লাঙ্গলবন্দ। এই দুঃখজনক ঘটনার তদন্তে নেপথ্যের কারণ হিসেবে উঠে এসেছে ভয়াবহ ঘটনা। তিনি বলেন, প্রতিবছর দেশ-বিদেশের লাখ লাখ পুণ্যার্থী এখানে স্তান করে পূর্ণ লাভ করেন। এই লাঙ্গলবন্দ তীর্থস্থানের মোট ৬৬ একর জায়গার মধ্যে শুধু কয়েকটি মন্দির আর স্থানঘাট ছাড়া সমস্ত সম্পত্তিই দখল হয়ে গেছে। যখনই যে সরকার আসে, সেই সরকারের লেবাস পরে ভূমিদস্যুরা এসব অপকর্ম করে যাচ্ছে। সিএসেও মন্দিরের এই বিপুল সম্পত্তির কথা নথিভুক্ত রয়েছে। কিন্তু দখলকারীরা সেসব নথি গায়েব করে দিয়েছে। তিনি প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলেন, হিন্দু সম্প্রদায়ের এই মহাতীর্থ স্থানের দখলকৃত জায়গা উদ্ধার করে মন্দির কমিটির কাছে হস্তান্তর করলে শুধু দেশবাসীই নয়, দেশ-বিদেশের সকল মানুষই আনন্দিত হবে।

প্রকাশিত : ২ এপ্রিল ২০১৫, ০১:২৭ এ. এম.

০২/০৪/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: