মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১০ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

শহীদের হায়দার হয়ে ওঠার গল্প

প্রকাশিত : ২ এপ্রিল ২০১৫
  • নিবিড় লতিফুল বারী

সময়কাল ২০০৩। বলিউডে মুক্তি পেল এক নবাগত নায়ক অভিনীত ছবি ‘ইশক ভিশক’। শুধু নবাগত নয়, তার মাঝে আছে চকলেট বয় লুক। সেই নায়ক ২০১৪ তে এসে একজন অভিনেতা হিসেবে আত্মপ্রকাশ করল। নিজেই অনুভব করল জীবনের সেরা কাজ করা হয়ে গেল মাত্র। হ্যাঁ, কথা হচ্ছিল শহীদ কাপুরকে নিয়ে। যিনি হায়দার ছবিতে অসামান্য অভিনয় করে মন ভরিয়েছেন দর্শকদের, তাদের মনের মণিকোঠায় স্থান করে নিয়েছেন চিরতরে। আর এই হায়দার সম্প্রতি ৫টি ক্যাটাগরিতে ৬২তম ইন্ডিয়ান ন্যাশনাল ফিল্ম এ্যাওয়ার্ডে জয়ী হয়েছে। আসছে মে মাসের ৩ তারিখে বিজয়ীদের হাতে তুলে দেয়া হবে এ সম্মাননা।

শুরুর দিকে এই চকলেট বয়ের মাঝে সবাই কিং খান শাহরুখ খানকে খুঁজে পেত। আর খুঁজে পাবেই না কেন, চেহারায় গঠনে খানিক ভাব রয়ে গেছে আর শহীদের মুভি লিস্টগুলোও শাহরুখের শুরুর মতো। কিন্তু ব্যাটে বলে মেলে না। কপাল মিলে যায় অজয় দেবগনের সঙ্গে, অসম্ভব মেধাবী হওয়া সত্ত্বেও আটকা পরে ক্যারিয়ার।

তবে কিছু হিট মুভি দিয়ে নিজেকে টিকিয়ে রেখেছিলেন। নাচে গানে ভরপুর সেসব ছবি তখন শহীদকে দর্শকদের বিনোদিত করেছে ভালভাবেই। কিন্তু কেন যেন কিছু একটায় ঘাপলা থেকে যাচ্ছিল। মাঝে কারিনার সঙ্গে জমজমাট প্রেম আবার ভাঙ্গনের সুর এই সবের মাঝেও শহীদ একে একে উপহার দেন ‘বিবাহ’, ‘জব উই মেট’, ‘কামিনী’ ইত্যাদি।

গত বছর শহীদ খুঁজে পান তার অভিনয় জীবনের চূড়ান্ত মুহূর্তকে যে ক্ষেত্রে তিনি নিজেই বলছেন, ‘এটিই আমার সেরা কাজ।’ হ্যাঁ, সেই ছবিটিই হায়দার, কাশ্মীরের প্রেক্ষাপটে নির্মিত এই ছবি যা কিনা শেক্সপিয়ারের অমর কীর্তি হ্যামলেট দ্বারা অনুপ্রাণিত। কি বলছেন শহীদ এই ছবি স¤পর্কে? ‘এখন পর্যন্ত করা আমার সেরা কাজ হায়দার।’ আর পরিচালক বিশাল ভরদ্বাজের মতে, ‘শহীদ বর্তমান সময়ে সবচেয়ে মেধাবী অভিনেতাদের মাঝে একজন আর এটা আমার সৌভাগ্য যে আমি এ মেধা নিয়ে নাড়াচাড়া করার সুযোগ পেয়েছি।’

হ্যাঁ বর্তমান সময়ে বলিউডে নাচ গান আর আইটেম সং নির্ভর যেসব ছবি নির্মিত হচ্ছে হায়দার সেসব ঘরানার বাইরের ছবি। ভালবাসা ও প্রতিশোধের অপূর্ব মিশেল এ ছবিতে অভিনয় করে শহীদ কুড়িয়েছেন বলিউডের অসংখ্য সেলিব্রিটির প্রশংসা বাণী। এদের মাঝে একজন, একই ছবিতে গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয় করা আরেক গুণী অভিনেরা ইরফান খান। তিনি এক শহীদ স¤পর্কে টুইট করতে যেয়ে বলেন, ‘শহীদ শুধু নাম ভূমিকায় অভিনয়ই করেনি বরং তার মেধা ঠিকরে পড়েছে আগ্নেয়গিরির লাভার মতো। নিঃসন্দেহে বলিউডের ইতিহাস নতুন করে শুরু হলো।’ অপরদিকে ফারহান আখতার টুইট করে জানাচ্ছেন, হায়দারের অসাধারণ মিউজিকের কথা। শহীদের প্রতি শুভকামনার এই লিস্টে আছেন করণ জোহর, বরুণ ধাওয়ান, হুমা কুরেশি প্রমুখ ব্যক্তিত্ব। এমনকি ঋত্বিক রোশানের ব্যাং ব্যাং ও হায়দার মুক্তি পেয়েছে একই দিনে যেখানে ঋত্বিক হলে যেয়ে উপভোগ করেছেন হায়দার ছবিটি। এক টুইট বার্তায় এমনই লিখেছেন তিনি সেই সঙ্গে অভিনন্দন জানিয়েছেন টিম হায়দারকে। সর্বশেষ ফিল্ম ফেয়ার এ্যাওয়ার্ডে সেরা অভিনেতার পুরস্কার পাওয়া শহীদ কাপুর মনে করছেন এই ছবিতে অভিনয়ের মাধ্যমে বলিউডে নতুন অভিনেতারা অনেক অনুপ্রাণিত হবে। আর তিনি নিজে তো আরও শক্তিমান অনুভব করছেন এই ছবিতে অভিনয়ের পর থেকে। আশাবাদ ব্যক্ত করলেন এমন ছবিতে আর অভিনয়ের ব্যাপারে।

কিন্তু কিভাবে এই পরিবর্তন একজন পরিণত অভিনেতা হিসেবে আবির্ভাব? শহীদ প্রতিটি ছবিতে চরিত্রের প্রয়োজনে নিজেকে পাল্টে ফেলেন। তা হোক হেয়ার স্টাইল কিংবা পোশাক। হায়দার তার প্রমাণ যেখানে সিনেমার একটা নির্দিষ্ট অংশ থেকে তাকে ভিন্ন লুকে পাওয়া যায়। দর্শকের কাছে জনপ্রিয়তার কারণ খুঁজতে গেলে তার বিনয়কে মাথায় রাখতে হবে। পুরনো কোন দাওয়াত বা প্রোগ্রামে যোগ দেয়া থেকে বিরত থাকেন না শহীদ এমনকি ফেলে আসা কলেজের কোন অনুষ্ঠানেও তা সে যতই ব্যস্ত থাকুক না কেন। পরিণত অভিনেতা হতে গেলে তাকে বিনয়ী ও হেল্পফুল মন মানসিকতার হতে হয়। শহীদের মাঝে এ গুণ রয়েছে বেশ ভালভাবেই বিশেষ করেসহ অভিনেতা বা অভিনেত্রীর ক্ষেত্রে এমনকি ব্যাকগ্রাউন্ড ড্যান্সারের ক্ষেত্রেও। কারণ তার শুরুটাও ছিল একজন ড্যান্সার হিসেবেই। আর আছে অতীতের ভুল থেকে শিক্ষা নেয়ার মানসিকতা। যেমন ধরা যাক ‘ফাটা পোস্টার নিকলা হিরো’ ও ‘তেরি মেরি কাহানি’ ছবির কথা। সমালোচকদের মতে, এই ছবিগুলো শহীদের ভুল সিদ্ধান্ত ছিল যা কিনা তার ক্যারিয়ারের উত্থানে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করেছে। সুতরাং আরও বেশি বেছে সাবধানে মুভি সিলেকশন, আর বেশি পরিণতবোধ, ফলাফল ‘হায়দার’ যা কিনা শহীদের আগামী দিনের শুরুর মাইলফলক হয়ে থাকল।

প্রকাশিত : ২ এপ্রিল ২০১৫

০২/০৪/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: