কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৫ ডিসেম্বর ২০১৬, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, সোমবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

কাউন্সিলর পদে কোন দল একক প্রার্থী নিশ্চিত করতে পারছে না

প্রকাশিত : ২ এপ্রিল ২০১৫

মোয়াজ্জেমুল হক, চট্টগ্রাম অফিস ॥ চসিকের আসন্ন নির্বাচনে ৪১ ওয়ার্ডে ও সংরক্ষিত আসনে সর্বমোট প্রার্থীর সংখ্যা ৩৭২। এর মধ্যে সাধারণ কাউন্সিলর প্রার্থী ২৮৮, সংরক্ষিত ১৪ আসনে ৭১ জন। এদের অধিকাংশই দলীয় সমর্থনের দাবিদার। পাশাপাশি স্বতন্ত্র প্রার্থীর সংখ্যাও রয়েছে। প্রধান দুই রাজনৈতিক দল আওয়ামী লীগ ও বিএনপি সমর্থিত প্রার্থীর সংখ্যা বিপুল। উভয় দল বিশেষ করে আওয়ামী লীগ ইতোপূর্বেই ঘোষণা দিয়েছে প্রত্যেক ওয়ার্ডে দলীয় সমর্থনের একজন কাউন্সিলর থাকবেন। তবে বিএনপি এখনও এ ধরনের কোন ঘোষণা দেয়নি। আর জামায়াতকে দিতে হয়নি। কারণ, জামায়াত সমর্থিত যেসব প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন তাদের মধ্যে কোন প্রতিদ্বন্দ্বিতা নেই।

বিএনপি ও আওয়ামী লীগ সমর্থিত ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রার্থীদের নিয়ে উভয় দল সঙ্কটে রয়েছে। স্থানীয় হাইকমান্ড এ ঘটনা নিয়ে কোন সিদ্ধান্তে আসতে পারছে না। তবে প্রচেষ্টা চালানো হচ্ছে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত সে চেষ্টা সফল না হওয়ার সম্ভাবনাই বেশি। আওয়ামী লীগ ও বিএনপি দলীয় একাধিক সূত্রে জানা গেছে, কাউন্সিলর পদে উভয় দলের পক্ষে একজন করে কাউন্সিলরকে সমর্থন দেয়া হলে বাকিরা বেঁকে বসবেন এবং এতে দল সমর্থিত মেয়র প্রার্থীরা ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হবেন। সেদিক বিবেচনায় রেখে কাউন্সিলর পদে এককভাবে কাউকে নির্দিষ্ট করে দেয়া সম্ভব নাও হতে পারে। অতীতে চসিক নির্বাচনে কাউন্সিলর পদে এককভাবে কাউকে সুনির্দিষ্টভাবে সমর্থন দেয়া সম্ভব হয়নি। সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলরের ১৪ পদে ১৪ জন বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করলেও কোন কোন ওয়ার্ডে একাধিক প্রার্থী হয়েছেন।

এ ব্যাপারে বিএনপির পক্ষে জনপ্রিয় একজনকে সুনির্দিষ্ট করে বাকিদের প্রত্যাহারের চেষ্টায় নেমেছে। গেলবারের মতো এবারও কাউন্সিলর পদে জামায়াত সমর্থিত প্রার্থীর সংখ্যা একেবারে নগণ্য। জামায়াত বরাবরই তাদের কৌশলগত দিক নির্ধারণ করে এগিয়ে যায়। এবারও সে পথে এগিয়েছে। কয়েকটি ওয়ার্ডে তাদের প্রার্থিতা চূড়ান্ত করার পর অন্য ওয়ার্ডগুলোতে তাদের নেতাকর্মী ও সমর্থকরা বিএনপি সমর্থিত কাউন্সিলরদেরই ভোট দেয়ার সম্ভাবনা বেশি। ২০১০ সালের নির্বাচনে এ ধরনের পরিস্থিতির কারণে আওয়ামী লীগ সমর্থিত কাউন্সিলরদের ভরাডুবির ঘটনা ঘটে। এমনকি মেয়র পদটি হাতছাড়া হয়ে যায়।

প্রকাশিত : ২ এপ্রিল ২০১৫

০২/০৪/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: