কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৫ ডিসেম্বর ২০১৬, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, সোমবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

চট্টগ্রামে ভোটকেন্দ্র প্রভাবমুক্ত করতে মাঠে নেমেছে পুলিশ

প্রকাশিত : ২ এপ্রিল ২০১৫
  • ১৬ থানায় মতবিনিময় করবে

মাকসুদ আহমদ, চট্টগ্রাম অফিস ॥ চট্টগ্রাম সিটি মেয়র নির্বাচনকে সামনে রেখে বিভিন্ন কর্মসূচী নিয়ে মাঠে নামছে পুলিশ। যে কোন মূল্যে আসন্ন নির্বাচনকে সফল করতে আইনের সর্বোচ্চ প্রয়োগের কথা নগরবাসীকে মতবিনিময় সভার মাধ্যমে জানানো হচ্ছে। নগরীর ১৬ থানার তালিকাভুক্ত সন্ত্রাসী থেকে শুরু করে অস্ত্রের যোগানদাতা পর্যন্ত অপরাধীদের উদ্দেশে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন সিএমপি কমিশনার আবদুল জলিল ম-ল। যে কোন মূল্যে ভোট গ্রহণ ও গণনা স্বচ্ছ এবং প্রভাবমুক্ত করার জন্য পুলিশ সদস্যদের নির্দেশনা দেয়া হচ্ছে।

এসব অপরাধী আসন্ন চসিক নির্বাচনকে ঘিরে রাজনৈতিক দলের ব্যানারে থেকে নির্বাচন কলুষিত করার সম্ভাবনা রয়েছে। এ ধরনের অপরাধীরা ভোটকেন্দ্র ও চট্টগ্রামের আঞ্চলিক নির্বাচন কমিশন দফতরের ওপর প্রভাব ফেলতে না পারে সেদিকে পুলিশকে তৎপর থাকার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। নগরীর চারটি থানা এলাকায় সিএমপি কমিশনার প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে প্রার্থী ও ভোটারদের সচেতন করার জন্য মতবিনিময় সভা করা হয়েছে। আরও ১২ থানায় আগামী ২৮ এপ্রিলের আগে মতবিনিময় করা হবে। এসব মতবিনিময় সভায় সিএমপি কমিশনার নিজে উপস্থিত থেকে স্বচ্ছ ভোটগ্রহণ ও ভোটাধিকার প্রয়োগের বিষয়ে আলোচনা করবেন।

সিএমপি সূত্রে জানা গেছে, মহানগরীর ১৬ থানা এলাকায় পুলিশের কড়া নজরদারি শুরু হয়েছে। আগামী ২৮ এপ্রিলের নির্বাচনকে কেন্দ্র করে নগরীর ১৬ থানা এলাকার সাধারণ মানুষের সঙ্গে মতবিনিময় সভার আয়োজন করা হচ্ছে শুধু সচেতনতা বৃদ্ধির জন্য। এরই ধারাবাহিকতায় ২১ মার্চ বাকলিয়া থানা এলাকার মধ্য দিয়ে শুরু হয়েছে নির্বাচনী এ কার্যক্রম। পুলিশ ও এলাকাবাসীর মধ্যে নির্বাচনভিত্তিক সমস্যা ও সমাধানমূলক এ কার্যক্রম অনেকটা ব্যতিক্রমী। কারণ, চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের চারটি মেয়াদে শেষ হওয়া ২০ বছরের পরিচালনায় এ ধরনের কার্যক্রম আগে চোখে পড়েনি। ফলে পুলিশের এ ধরনের কর্মসূচীকে জনগণ সাধুবাদ জানাচ্ছে।

নগরীর চার থানা এলাকার মতবিনিময় সভা বিশ্লেষণে দেখা গেছে, সিএমপির প্রায় সাড়ে ছয় হাজার পুলিশ সদস্য নির্বাচন উপলক্ষে ভোট কেন্দ্রগুলোতে কাজ করবে। আগামী ২৮ এপ্রিলে চসিকের পঞ্চম মেয়াদের মেয়র ও কাউন্সিলর নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। ব্যতিক্রমী এ কার্যক্রমে ১৬ থানা এলাকায় অনুষ্ঠেয় মতবিনিময় সভায় সিএমপি কমিশনার প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখবেন। এমনকি স্ব স্ব থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এ সব মতবিনিময় সভায় সভাপতিত্ব করবেন। এরই মধ্যে ২১ মার্চ বাকলিয়া থানা, ২৫ মার্চ সদরঘাট থানা, ২৮ মার্চ চান্দগাঁও থানা ও ৩১ মার্চ হালিশহর থানা এলাকায় নির্বাচন উপলক্ষে মতবিনিময় সভা হয়।

মতবিনিময় সভায় মূল বক্তব্য উপস্থাপনে পুলিশ আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে এবং ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্রগুলোকে প্রভাবমুক্ত করতে এলাকার ভোটারদের ও জনসাধারণকে সচেতন করার চেষ্টা চালিয়েছে। ঝুঁকিপূর্ণ পরিস্থিতিতে পুলিশ সচেতন নাগরিকদের সহায়তা কামনা করেছে। শুধু তাই নয়, এ ক্ষেত্রে পুলিশ কমিশনার প্রত্যেকটি এলাকার সম্ভাব্য প্রার্থী, সাবেক কাউন্সিলর ও ভোটারদের সঙ্গে খোলামেলা মতবিনিময় করেছেন। জনগণের পক্ষ থেকে উত্থাপিত প্রশ্নের উত্তর প্রদানের পাশাপাশি কেন্দ্রগুলোকে ঝুঁকিমুক্ত করতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপের বিষয়েও ঘোষণা দেয়া হয়েছে। এ ক্ষেত্রে যে কোন মূল্যে পুলিশ নির্বাচনকে স্বচ্ছ ও ভয়ভীতিমুক্ত করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন উপস্থিত ব্যক্তিবর্গের কাছে।

সাবেক ওয়ার্ড কাউন্সিলর, সম্ভাব্য প্রার্থী ও ভোটারদের পক্ষ থেকে আইনশৃঙ্খলা বিষয়ে পুলিশের কাছে জানতে চাওয়া হলে পুলিশ ভোট কেন্দ্রগুলোকে দখলমুক্ত রাখতে আইনের সর্বোচ্চ প্রয়োগ করবে বলে জানিয়েছে। পুলিশের এ ধরনের কর্মসূচীকে ভোট প্রত্যাশীরা সাধুবাদ জানানোর পাশাপাশি পুলিশকে সহায়তার ঘোষণা দিয়েছেন।

সিএমপি কমিশনার আবদুল জলিল ম-ল এসব মতবিনিময় সভায় জানান, কোনভাবেই ভোট কেন্দ্রে প্রভাব ফেলা যাবে না। এ ক্ষেত্রে পুলিশ নির্বাচনী বিধিমালা অনুযায়ী প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবে। কোন ধরনের ঝুঁকির বিষয়ে কারও জানা থাকলে পুলিশকে তথ্য দেয়ার আহ্বান জানান তিনি।

চট্টগ্রামের উন্নয়নে যোগ্যপ্রার্থী নির্বাচনে ভোটাধিকার প্রয়োগে কোন ধরনের বাধা যেন না আসে, সেক্ষেত্রেও সচেষ্ট থাকার আহ্বান জানান উপস্থিত লোকজনকে।

সিএমপি কমিশনারের বিরুদ্ধে অভিযোগ ॥ আচরণবিধি লঙ্ঘনের কথা ব্যক্ত করে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের কমিশনার আবদুল জলিল ম-লের বিরুদ্ধে রিটার্নিং অফিসারের কাছে অভিযোগ দায়ের করেছে বিএনপি নেতা ও মেয়র পদপ্রার্থী এম মনজুর আলমের চট্টগ্রাম উন্নয়ন আন্দোলন।

তার বিরুদ্ধে অভিযোগ- তিনি গত ৩০ মার্চ কালুরঘাট শিল্প এলাকায় উচ্ছেদকৃত হকার পুনর্বাসন প্রকল্প উদ্বোধনকালে বলেন, চসিকের দায়িত্বে থাকা ব্যক্তিরা তাদের দায়িত্ব যথাযথ পালন না করায় আমাকে (আবদুল জলিল ম-ল) রাস্তায় ময়লা পরিষ্কার করতে নামতে হয়েছে। যদিও এটি আমার নিয়মিত দায়িত্বের মধ্যে পড়ে না। যোগ্যপ্রার্থী নির্বাচিত করুন, নইলে আমাকে আবারও ঝাড়– হাতে নামতে হবে।’ পুলিশ কমিশনারের এ বক্তব্য সাবেক মেয়র ও বর্তমান মেয়র পদপ্রার্থী বিএনপির এম মনজুর আলমকে উদ্দেশ করে বলা হয়েছে বলে দাবি চট্টগ্রাম উন্নয়ন আন্দোলন নেতৃবৃন্দের। এ অভিযোগের পর আচরণবিধি লঙ্ঘন হয়েছে বলে অভিযোগ এনে রিটার্নিং অফিসারের দফতর থেকে তাকে কারণ দর্শাতে বলা হয়েছে।

প্রকাশিত : ২ এপ্রিল ২০১৫

০২/০৪/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: