রৌদ্রজ্জ্বল, তাপমাত্রা ২৩.৯ °C
 
৮ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

ভারতের প্রধান কোচ শচীন টেন্ডুলকর!

প্রকাশিত : ২ এপ্রিল ২০১৫
ভারতের প্রধান কোচ শচীন টেন্ডুলকর!

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ভারতীয়দের ক্রিকেট-দেবতা, বিশ্ব ক্রিকেটের অপার বিস্ময়, ব্যাটিং মায়েস্ত্রো, রেকর্ডের বরপুত্রÑ সর্বোচ্চ বিশেষণও যার পাশে বেমানান, তিনি শচীন রমেশ টেন্ডুলকর। ২০১৩ সালের ১৪ নবেম্বর জন্মস্থান মুম্বাইয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টেস্টে জীবনের শেষ ইনিংস খেলে ফেরার পরই প্রশ্নটা করা হয়েছিল, সুযোগ পেলে ভারতের কোচ হবেন কি না? উত্তরে বলেছিলেন, ‘একটু নিঃশ্বাস নিতে দিন। অবশ্যই ভবিষ্যতে এমন সুযোগ আমি লুফে নেব।’ খুব বেশি দিন অপেক্ষা করতে হলো না। বুধবার দেশটির ক্রিকেটে বোর্ডের (বিসিসিআই) সভায় জীবন্ত কিংবদন্তিকে প্রধান কোচ হিসেবে বেছে নেয়ার চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত গৃহীত হলো। প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে বিসিসিআই শচীনের নিয়োগ চূড়ান্ত করে বলে স্থানীয় সংবাদ মাধ্যম আইবিএনের খবরে জানানো হয়েছে। ‘বিসিসিআইর তরফ থেকে নিশ্চিত করা হয়েছে। মঙ্গলবারই শচীন টেন্ডুলকর আগামী তিন বছরের জন্য ভারত জাতীয় ক্রিকেট দলের প্রধান কোচ হিসেবে চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন। একইসঙ্গে আইসিসির (ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিল) ব্র্যান্ড এ্যাম্বাসেডর হিসেবেও দায়িত্ব পালন করে যাবেন ৪২ বছর বয়সী শচীন।’ আইবিএনের খবরে উল্লেখ করা হয়। আইবিএন ছাড়া ইন্ডিয়া ডট কম ও পাকিস্তানভিত্তিক সংবাদ মাধ্যম ‘দুনিয়া নিউজ’এও একই খবর প্রকাশিত হয়। অবশ্য বেশিরভাগ খবরে সূত্র হিসেবে আইবিএনকে ব্যবহার করা হয়েছে। শচীনের পাশাপাশি রাহুল দ্রাবিড় ভারতের কোচ হতে পারেন এমন গুজব গত এক বছর ধরেই শোনা যাচ্ছিল। এ সময় দায়িত্বে ছিলেন ইংলিশ ডানকান ফ্লেচার। মঙ্গলবার ছিল বিসিসিআইর ওয়ার্কিং কমিটির বিশ্বকাপ পরবর্তী প্রথম সভা। ওই সভা শেষেই বিজ্ঞপ্তি দিয়ে জানানো হয়, শচীনকে আগামী তিন বছরের জন্য মোড়ল দেশটির পরিচর্যার দায়িত্বে দেখা যাবে। দরজায় কড়া নাড়া আইপিএল (ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লীগ) শেষে (৮ এপ্রিল-২৪ মে) জাতীয় দলের সঙ্গে কোচ হিসেবে যোগ দেবেন তিনি। আইবিএন-এক ঘনিষ্ঠ সূত্রের বরাত দিয়ে আরও উল্লেখ করে, অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনি ও বড় তারকা বিরাট কোহলির বিশেষ অনুরোধেই নাকি শচীনকে বেছে নেয়া হয়েছে। যেখানে সাবেক সতীর্থ সম্পর্কে ধোনির মূল্যায়ন, ‘তিনি খেলোয়াড় হিসেবে যেমন পরিশ্রমী, সুশৃঙ্খল ও অনন্য ছিলেন, কোচিংয়ের ক্ষেত্রেও তেমনটা হবেন। যা ভারতকে একটি সেরা দল হিসেবে গড়ে তুলতে সাহায্য করবে।’ খবরে বিসিসিআইর বর্তমান সভাপতি জগমোহন ডালমিয়ার উদ্ধৃতিও তুলে ধরা হয়।

সাবেক আইসিসি প্রধান ও ভারতীয় ক্রিকেটের বড় ব্যক্তিত্ব ডালমিয়া বলেন, ‘অনেক চিন্তাভাবনা এবং আলাপ-আলোচনার পর ওয়ার্কিং কমিটির বৈঠকে আমি এবং বিসিসিআই সেক্রেটারি শচীনের নাম প্রস্তাব করে। তাছাড়া বোর্ড তাকে চূড়ান্ত নিয়োগের আগে সাবেক বিসিসিআই প্রধান এন শ্রীনিবাসন (বর্তমান আইসিসি প্রধান) এবং টিম ডিরেক্টর রবি শাস্ত্রীর সঙ্গেও আলোচনা করেছে। আশা করছি এটা আমাদের ক্রিকেটের জন্য একটা যুগান্তকারী সিদ্ধান্ত।’ সদ্য সমাপ্ত ২০১৫ বিশ্বকাপে টানা দ্বিতীয়বারের মতো বিশ্বকাপের শুভেচ্ছা দূত হিসেবে ছিলেন লিটল মাস্টার শচীন টেন্ডুলকর। ২০১১ সালে ধোনির নেতৃত্বে দীর্ঘ ২৮ বছর পর বিশ্বকাপ পুনরুদ্ধার করে ভারত। ওই দলের সদস্য হিসেবে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখেন শচীন। এবার অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যাল্ডে শিরোপা ধরে রাখার দৌড়ে অনেক দূর এগিয়েও গিয়েছিল তারা। সেমিতে স্বাগতিক অস্ট্রেলিয়ার কাছে হারে তীরে এসে তরী ডোবে ক্রিকেট মোড়লদের। পাশাপাশি বিতর্ক সঙ্গী হয় তাদের। কোয়ার্টারে বাংলাদেশের বিপক্ষে জয়ে আম্পায়ারদের বিতর্কিত সিদ্ধান্তগুলো ভারতের পক্ষে যায়। এ নিয়ে এখনও ক্রিকেট বিশ্বে তোলপাড় চলছে। মাঠের নৈপুণ্যের পাশাপাশি বিশ্বে ভারতের ইমেজ পুনরুদ্ধারের জন্য কী শচীন টেন্ডুলকরের মতো একজন দেবতাতুল্য ব্যক্তিকে কোচ করল মাথা মোটা বিসিসিআই? জবাবটা সময়েই মিলবে। ১৯৮৯-এর নবেম্বর টেস্ট দিয়ে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে পা রাখেন শচীন। অপূর্ব ব্যাটিংশৈলীতে ক্রিকেট বিশ্বে বিরল এক ‘আইকনে’ পরিণত হন তিনি। দীর্ঘ দুই যুগের ক্যারিয়ারে ব্যাট হাতে তাবত ভক্তদের জাদুকরের মতো মুগ্ধ করে রাখেন শচীন। গড়েন রেকর্ডের পর রেকর্ড। ইতিহাসের ২০০ টেস্ট খেলা এক ক্রিকেটার শচীনের দুই ভার্সন মিলিয়ে রয়েছে ১০০ সেঞ্চুরি! ওয়ানডেতে মোট রান ১৫৯২১ টেস্টে ১৮৪২৬! এমন আরও রেকর্ড, যার কথা অন্যরা কল্পনাও করতে পারেন না। অবশ্য কোচ হওয়ার অনুভূতি জানিয়ে তার কোন প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।

প্রকাশিত : ২ এপ্রিল ২০১৫

০২/০৪/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



ব্রেকিং নিউজ: