রৌদ্রজ্জ্বল, তাপমাত্রা ২৩.৯ °C
 
৯ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

বিক্ষোভ মিছিলের চেষ্টাও করেনি বিএনপি

প্রকাশিত : ২ এপ্রিল ২০১৫

স্টাফ রিপোর্টার ॥ আগাম ঘোষণা দিয়েও বুধবার রাজধানীর কোথাও বিক্ষোভ মিছিল করেনি বিএনপি জোট। এমনকি রাজপথে এ কর্মসূচী পালনের কোন চেষ্টা করতেও জোটের কোন নেতাকর্মীকে দেখা যায়নি। তবে বিচ্ছিন্নভাবে ঢাকার বাইরে কোন কোন জায়গায় ঝটিকা মিছিল বের করার চেষ্টা করলেও পুলিশের হাতে গ্রেফতারের ভয়ে দ্রুত সটকে পড়েছে স্থানীয় নেতাকর্মীরা।

এদিকে চলমান অবরোধ কর্মসূচীর মধ্যেই আজ বৃহস্পতিবার সকাল ৬টা থেকে শুক্রবার সকাল ৬টা পর্যন্ত ঢাকা ও চট্টগ্রাম মহানগর ছাড়া সারাদেশে টানা ২৪ ঘণ্টা হরতাল পালনের ডাক দিয়েছে বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোট। মঙ্গলবার বিকেলে ২০ দলীয় জোটের পক্ষ থেকে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব বরকতউল্লাহ বুলুর নামে গণমাধ্যমে পাঠানো বিবৃতিতে বুধবার সারাদেশে বিক্ষোভ মিছিল ও বৃহস্পতিবার হরতাল পালনের ঘোষণা দেয়া হয়।

সালাউদ্দিন আহমেদসহ ২০ দলীয় জোটের গুমকৃত নেতাকর্মীদের ফেরত দান, জোটের কারান্তরীণ সকল পর্যায়ের নেতাকর্মীদের মুক্তি এবং গণগ্রেফতারসহ মামলা-হামলা বন্ধ করে দেশে স্বাভাবিক অবস্থা ফিরিয়ে আনা এবং নির্দলীয় সরকারের অধীনে জাতীয় সংসদ নির্বাচনের দাবিতে বুধবার বিক্ষোভ মিছিল ও বৃহস্পতিবার সকাল ৬টা থেকে শুক্রবার সকাল ৬টা পর্যন্ত হরতাল কর্মসূচী পালনের কথা বলা হয় বুলুর নামে পাঠানো বিবৃতিতে। তবে এ ঘোষণায় কেউ সাড়া দেয়নি। জানা যায়, বিএনপি জোটের বেশ কিছু নেতাকর্মী কারাগারে আবার অনেক নেতাকর্মী আত্মগোপনে রয়েছেন। আর যারা এখনও কারাগার বা আত্মগোপনে নেই তাদের মধ্যেও গ্রেফতার আতঙ্ক রয়েছে। তাই তারা বিক্ষোভ মিছিল কর্মসূচী পালন করতে মাঠে নামার সাহস দেখায়নি। অবশ্য ২০ দলীয় জোটের হাইকমান্ড থেকেও এ কর্মসূচী সফল করতে নেতাকর্মীদের কাছে কোন নির্দেশনা দেয়া হয়নি বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়।

উল্লেখ্য, এর আগে গত ২৯ মার্চ এবং তারও আগে ২১ ও ২৫ মার্চ বিক্ষোভ মিছিল পালনের ঘোষণা দিয়েও বিএনপি জোট তা পালন করেনি। ৬ জানুয়ারি থেকে টানা অবরোধ কর্মসূচী পালন শুরু করে বিএনপি জোট। আর এ অবরোধ কর্মসূচীর মধ্যেই ২ফেব্রুয়ারি থেকে সাপ্তাহিক ছুটির দিন বাদে প্রতিদিন হরতাল কর্মসূচী পালন করে বিএনপি জোট। ২৪ মার্চ থেকে স্বাধীনতা দিবস ও ৩ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনকে কেন্দ্র করে হরতাল পালন থেকে বিরত থাকে তারা। তবে ৩০ মার্চ থেকে ঢাকা ও চট্টগ্রাম মহানগর ছাড়া সারাদেশে চলমান অবরোধ কর্মসূচীর মধ্যেই আবার হরতাল পালন শুরু করে তারা। যদিও ১ এপ্রিল হরতাল পালন না করে বিক্ষোভ মিছিল করার কথা বলে বিএনপি জোট। তবে নেতাকর্মীরা মাঠে না নামায় এ কর্মসূচী পালিত হয়নি।

দেশে শান্তি আসবে কি না তা সিটি নির্বাচনই বলে দেবে- জাফরউল্লাহ ॥ দেশে শান্তি আসবে কি না তা সিটি নির্বাচনই বলে দেবে বলে মন্তব্য করেছেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডাঃ জাফরুল্লাহ চৌধুরী। বুধবার বিকেলে জাতীয় প্রেসক্লাবে বিএনপির যুগ্ম-মহাসচিব সালাহ উদ্দিন আহমেদকে তার পরিবারের কাছে ফিরিয়ে দেয়ার দাবিতে মুক্তিযোদ্ধা দল আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন।

ডাঃ জাফরুল্লাহ বলেন, আশা করছি আসন্ন সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে আদালত সক্রিয় ভূমিকা পালন করবে। সুষ্ঠু নির্বাচনের স্বার্থে যারা প্রার্থী হবেন তাদের যেন জামিন দিয়ে দেয়া হয় এবং কোন প্রার্থীকে যেন হয়রানি না করা হয়। সম্প্রতি পুলিশকে ১২০ কোটি টাকা অতিরিক্ত বরাদ্দ দেয়া হয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, পুলিশবাহিনী সাধারণ মানুষকে গুলি করেই যাচ্ছে। আর সেই পুলিশবাহিনীর জন্য বরাদ্দ বাড়িয়েছে সরকার। মনে হচ্ছে যেন গুলি করলেই টাকা। ভ্রান্তির পথ ছেড়ে প্রধানমন্ত্রীকে আলোর পথে আসার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, বিনাবিচারে পুলিশ কাউকে গুলি করলে তাদেরও আইনের আওতায় আনতে হবে।

মুক্তিযোদ্ধা দলের সভাপতি ইশতিয়াক আজিজ উলফাতের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য রাখেন বিএনপির সহ-দফতর সম্পাদক আসাদুল করিম শাহিন, নির্বাহী কমিটির সদস্য রাশিদা বেগম হিরা, নিখোঁজ বিএনপি নেতা সালাউদ্দিন আহমেদের স্ত্রী হাসিনা আহমেদ, আয়োজক সংগঠনের সহ-সভাপতি আবুল হোসেন প্রমুখ।

প্রকাশিত : ২ এপ্রিল ২০১৫

০২/০৪/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

প্রথম পাতা



ব্রেকিং নিউজ: