মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১০ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

নিজেকে নিয়ে ভাবুন

প্রকাশিত : ৩০ মার্চ ২০১৫
  • শারমিন সুলতানা মিম

কর্মব্যস্ত জীবনে আমরা হাঁপিয়ে উঠি নিত্যদিনের কাজে। অবসর নেয়ার কথা ভুলে যাই। আমাদের সারাদিনের কাজকর্মের মধ্যে নিজেকে সময় দেয়ার কথা পর্যন্ত ভুলে বসি। নিজেকে আবিষ্কার করার মতো সুযোগ হয়ে ওঠে না। নিজেকে একটু পরিপাটি রাখা, গুছিয়ে নেয়া, নিজের প্রতি আলাদা যতœ শত ব্যস্ততায় আজ হারিয়ে গেছে। কর্মমুখর দিনে আজ আর নিজেকে দেখার মতো সময় আমাদের নেই। তবু সময় বের করে নিজেকে ফ্রেশ রাখা আমাদের সবার দায়িত্ব। নিজে ফ্রেশ থাকলে প্রতিদিনের কাজে আলাদা একটা উৎসাহ আসে।

১। গরমে সকালবেলা মুখে ঠা-া পানির ঝাপটা দিনের শুরুটাকে সতেজ করে। পুরনো ক্লান্তি ভুলে নতুন দিনের শুরু হতে সাহায্য হয়।

২। গরমের সঙ্গে সঙ্গে বাড়ছে রোদের তীব্রতা, আল্ট্রা ভায়োলেট রশ্মি াঁ-অ ও াঁ-ই আমাদের ত্বকের ক্ষতি করে। আর তাই ছাতা ব্যবহার অপরিহার্য। আমাদের সঙ্গে সবসময় একটা ছাতা রাখলে অনায়াসেই আমরা বাঁচতে পারি তীব্র এই ক্ষতির হাত থেকে।

৩। ত্বকের সঙ্গে সঙ্গে সূর্যের অতিবেগুনি রশ্মি আমাদের চোখেরও মারাত্মক ক্ষতি করে। তাই সূর্যের রশ্মি থেকে আমাদের চোখকে বাঁচাতে আমরা সানগ্লাস ব্যবহার করতে পারি।

৪। ডাবের পানি আমাদের শরীরের ত্বকের জন্য বেশ উপকারী। দুপুরের শ্রান্ত রোদে এক গ্লাস ডাবের পানি যেমন আমাদের তৃষ্ণা দূর করবে, তেমনি ত্বকের কাজ করবে ভেতর থেকে। চাইলে ডাবের পানি দিয়ে মুখও ধোয়া যেতে পারে।

৫। লেবুর রস রোদ কাটাতে সাহায্য করে। দিনের যে কোন এক সময় যদি হালকা গরম পানিতে লেবুর রস, সামান্য লবণ ও মধু মিশিয়ে খাওয়া যায়, তাহলে রোদে বের হলেও তেমন গায়ে লাগে না।

৬। গরমে ধূলিকণায় চুল নোংরা হয় বেশি। সুতরাং সমস্যার শেষ নেই। তাই চুলটার আলাদা যতœ না নিলে সুন্দর দেখায় না। চুলে সপ্তাহে অন্তত ৪ দিন শ্যাম্পু করতে হবে।

৭। চুলে খুশকি হওয়ার প্রবণতা প্রায় সবারই আছে। আর খুশকি দূর করা বেশ কষ্টসাধ্য। এই ক্ষেত্রে যে কোন নারিকেল তেল গরম করে মাথায় ভালভাবে ম্যাসাজ করে একদিন পর পর শ্যাম্পু করলে খুশকি চলে যায়।

৮। আমলকি, তুলসিপাতা, মেহেদিপাতা, কমলালেবুর খোসা একসঙ্গে ভালভাবে বেটে তাতে যে কোন নারিকেল তেল দিয়ে একসঙ্গে হাল্কা গরম করতে হবে চুলায়। সব একসঙ্গে মিশে বাদামি রঙের হলে নামিয়ে হালকা ঠা-া করতে হবে। এই প্যাকটি চুলে সপ্তাহে ২ দিন ব্যবহার করলে চুল কালো ও সিল্কি হয়। চুলের গোড়া শক্ত হয়, চুল পড়াও বন্ধ হয়।

৯। পেঁয়াজের রস আর লেবুর রস চুল ঝরঝরে করে।

১০। ত্বক ও চুলের সঙ্গে সঙ্গে হাত ও পায়ের যতœ নিতে হবে। হাত, পা সুন্দর না হলে দেখতে মানানসই লাগে না। গোলাপজল কুসুম গরম পানিতে মিশিয়ে তাতে কিছু গোলাপ ফুলের পাপড়ি মিশিয়ে প্রতিরাতে ১০ মিটিন পা ডুবিয়ে রাখা যেতে পরে।

১১। রাতে শোবার আগে পুরো দুই হাতে ভালভাব সাবান দিয়ে ধুয়ে পরিষ্কার করে তাতে গোলাপজল দিয়ে গ্লিসারিন দেয়া যেতে পারে। তাতে হাতের শুষ্কতা দূর হয়।

১২। প্রতিদিন রাতে ঠোঁটে দুধের সর লাগিয়ে ঘুমাতে হবে। এতে ঠোঁটের লাবণ্য টিকে থাকে। ঠোঁট শুকিয়ে যায় না।

মডেল: সূচি

প্রকাশিত : ৩০ মার্চ ২০১৫

৩০/০৩/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: