কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৫ ডিসেম্বর ২০১৬, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, সোমবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

ধানমণ্ডি লেক থেকে রেলমন্ত্রীর বড় ভাইয়ের লাশ উদ্ধার

প্রকাশিত : ৩০ মার্চ ২০১৫
ধানমণ্ডি লেক থেকে রেলমন্ত্রীর বড় ভাইয়ের লাশ উদ্ধার

স্টাফ রিপোর্টার ॥ রাজধানীর ধানমণ্ডি লেক থেকে রেলমন্ত্রী মুজিবুল হকের বড় ভাই এবিএম আব্দুল লতিফের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তিনি অবসরপ্রাপ্ত অতিরিক্ত সচিব ছিলেন।

রবিবার দুপুরে স্থানীয়রা লেকের পানিতে লাশ ভাসতে দেখে পুলিশে খবর দেয় বলে জানিয়েছেন ধানম-ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু বক্কর সিদ্দিক।

তিনি জানান, খবর পেয়ে দুপুর সাড়ে বারোটার দিকে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে লাশটি উদ্ধার করে। ধারণা করা হচ্ছে শনিবার রাতে ধানম-ি লেকে হাঁটার সময় প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিতে গিয়ে পানিতে পড়ে যেতে পারেন আব্দুল লতিফ। আব্দুল লতিফের শরীরে আঘাতের কোন চিহ্ন ছিল না। তার প্যান্টের চেন খোলা ছিল।

তিনি শারমিন রহমান, শাবরিনা লতিফ নামে দুই মেয়ে ও সালমান লতিফ নামে এক ছেলে রেখে গেছেন।

এ মৃত্যুর পেছনে কাউকে সন্দেহ করছেন কিনা এমন প্রশ্নের উত্তরে রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক সাংবাদিকদের বলেন, আসলে সন্দেহ করে কিছু বলা ঠিক হবে না। তার এমন কোন শত্রু ছিল না। পুলিশ তদন্ত করে বের করবে আসলে কি ঘটেছিল।

পারিবারিক সূত্রগুলো সাংবাদিকদের জানায়, এবিএম আবদুল লতিফের বাসা ধানমণ্ডি এলাকায়। তিনি প্রতিদিন সন্ধ্যায় লেকের ধারে হাঁটতে যান। কিন্তু শনিবার তার শরীর খারাপ থাকায় বিকেলে না বেরিয়ে রাত নয়টার দিকে হাঁটতে বেরুন। এরপর তিনি আর বাসায় ফেরেননি।

কুমিল্লায় শোকের ছায়া, জানাজায় মানুষের ঢল ॥ নিজস্ব সংবাদদাতা কুমিল্লা থেকে জানান, রেলমন্ত্রী মুজিবুল হকের বড় ভাই ও সাবেক অতিরিক্ত সচিব এবিএম আবদুল লতিফের (৭২) লাশ রবিবার দুপুরে ঢাকার ধানম-ির লেক থেকে উদ্ধার করা হয়েছে এমন খবরে কুমিল্লা শহর ছাড়াও মন্ত্রীর নির্বাচনী এলাকা চৌদ্দগ্রামে শোকের ছায়া নেমে আসে। সন্ধ্যায় কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামের বসুয়ারা গ্রামের নিজ বাড়িতে জানাজা শেষে তাকে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়। জানাজায় চৌদ্দগ্রাম ও জেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে হাজারো মানুষ অংশগ্রহণ করে মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন। রেলপথমন্ত্রী মুজিবুল হক এমপি সাংবাদিকদের বলেন, ধানম-ির লেকের পারে হাঁটতে গিয়ে হৃদরোগজনিত কারণে তিনি মারা যেতে পারেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। জানা যায়, বঙ্গবন্ধু সরকারের সময় মুন্সীগঞ্জ জেলার জেলা প্রশাসক ছিলেন এবিএম আবদুল লতিফ। অতিরিক্ত সচিব থেকে অবসর গ্রহণের পর তিনি ধানম-ির ৫নং রোডের ২৩/এ বাসায় থাকতেন। তিনি কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামের ৪নং শ্রীপুর ইউনিয়নের বসুয়ারা গ্রামের মরহুম রজ্জব আলীর পুত্র। রবিবার দুপুরে এবিএম আবদুল লতিফের মৃত্যু ও লাশ উদ্ধারের খবর গণমাধ্যমে প্রচারিত হলে কুমিল্লা ও মন্ত্রীর নির্বাচনী এলাকা চৌদ্দগ্রামের সর্বত্র শোকের ছায়া নেমে আসে। দলীয় নেতাকর্মী ছাড়াও মন্ত্রী ও তাদের পরিবারের শুভাকাংখীরা ব্যক্তিগতভাবে ও মোবাইল ফোনে ঘটনার বিষয়ে জানতে চেয়ে পরিবারের সদস্য ও স্বজনদের সঙ্গে যোগাযোগ করেন। মন্ত্রীর কুমিল্লা নগরীর নজরুল এ্যাভিনিউ সড়কের কান্দিরপাড়ের ব্যক্তিগত অফিস, নগরীর ঠাকুরপাড়ায় মদিনা মসজিদ সড়কের বাসভবনসহ চৌদ্দগ্রামের বসুয়ারা গ্রামের বাড়িতে বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার শুভাকাক্সক্ষীরা ভিড় জমান।

প্রকাশিত : ৩০ মার্চ ২০১৫

৩০/০৩/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

শেষের পাতা



ব্রেকিং নিউজ: