মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
৯ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

অস্থিতিশীল তেলের বাজারের প্রভাব পড়বে বাংলাদেশেও

প্রকাশিত : ২৯ মার্চ ২০১৫

বিশেষ প্রতিনিধি ॥ ইয়েমেনে সৌদি আরবের নেতৃত্বাধীন জোটের বিমান হামলার পর অস্থিতিশীল হয়ে উঠেছে আন্তর্জাতিক তেলের বাজার। আশঙ্কা করা হচ্ছে, এর প্রভাব পড়বে বাংলাদেশেও।

এরই মধ্যে গত বৃহস্পতিবার আন্তর্জাতিক বাজারে তেলের দাম বেড়েছে। একদিনের ব্যবধানে যুক্তরাষ্ট্র এবং লন্ডনের বাজারে প্রতি ব্যারেল তেলের দাম দুই ডলারের বেশি বেড়ে গেছে। বাংলাদেশের তেলের বাজার আমদানিনির্ভর। ফলে আন্তর্জাতিক বাজারের প্রভাব অবশ্যই বাংলাদেশে পড়বে বলে মনে করছেন অর্থনীতিবিদরা।

যুক্তরাষ্ট্র বেঞ্চমার্কে মে মাসে ডেলেভারি হতে যাওয়া ক্রুড তেলের দাম এদিন ব্যারেল প্রতি ২.২২ মার্কিন ডলার বা ৪ দশমিক ৫ শতাংশ বেড়ে ৫১.৪৩ ডলারের কাছাকাছি দাঁড়ায়। গত ৩ সপ্তাহের বেশি সময়ের মধ্যে এই দাম সর্বোচ্চ।

আর লন্ডনে গ্লোবাল বেঞ্চমার্কে ব্রেন্ট নর্থ সি ক্রুড বা উন্নত মানের অপরিশোধিত তেলের দাম ব্যারেলে ২.৭১ মার্কিন ডলার বেড়ে ৫৯.১৯ ডলারে পৌঁছায়।

আশঙ্কা করা হচ্ছে, ইয়েমের এই অস্থিরতা যত বাড়তে থাকবে ততই তেলের দাম বাড়বে; যা মধ্যপ্রাচ্যে অপরিশোধিত তেল উৎপাদনকারীদের হুমকিতে ফেলে দিবে।

ইয়েমেনের ক্ষমতা দখলকারী শিয়া বিদ্রোহী গোষ্ঠী হুথিদের বিরুদ্ধে সৌদি আরব ও দেশটির মিত্র আঞ্চলিক জোট বিমান হামলাসহ সামরিক অভিযান শুরু করেছে- গত বুধবার এমন খবর ছড়িয়ে পড়ার পরই তেলের দাম বাড়তে শুরু করে। সৌদি আরবের ওই হামলায় এখন পর্যন্ত ইয়েমেনে ৩৯ জন নিহত হয়েছে।

একজন অর্থবিশ্লেষক ড্যানিয়েং এ্যাং এএফপিকে জানান, ইয়েমেনে ভূ-রাজনৈতিক অস্থিরতা বিরাজ করায় তেলের দাম বাড়ছে। সিঙ্গাপুরের ওই বিশ্লেষক আরও জানান, শুধু ইয়েমেনই তেল উৎপাদনকারী বড় দেশ নয়; এই অঞ্চল তেলবাণিজ্যের কেন্দ্রস্থলও। ফলে এখানে অস্থিতিশীলতা মানেই জ্বালানি পণ্যের জন্য বাণিজ্যিক ব্যাঘাত।

ইন্ডিয়া টাইমসের এক প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে, গত বুধবার প্রতি ব্যারেল তেলের দাম ছিল ৪৯ দশমিক ২১ ডলার। বৃহস্পতিবার প্রতি ব্যারেল তেলের দাম হয়েছে ৫১ দশমিক ৪৩ ডলারের কাছাকাছি। যা গত তিন সপ্তাহের বেশি সময়ের মধ্যে সর্বোচ্চ দাম।

এ ছাড়া লন্ডনে গ্লোবাল বেঞ্চমার্কে ব্রেন্ট নর্থ সি ক্রুড বা উন্নত মানের অপরিশোধিত তেলের দাম গত বুধবার ছিল প্রতি ব্যারেল ৫৬ দশমিক ৪৮ ডলার। বৃহস্পতিবার প্রতি ব্যারেল তেলের দাম হয়েছে ৫৯ দশমিক ১৯ ডলার। আশঙ্কা করা হচ্ছে, ইয়েমেনে এই অস্থিরতা যত বাড়তে থাকবে, ততই তেলের দাম বাড়বে। এটা মধ্যপ্রাচ্যে অপরিশোধিত তেল উৎপাদনকারীদের হুমকিতে ফেলতে পারে। কারণ ইয়েমেন অন্যতম বড় তেল উৎপাদনকারী দেশ। এমনকি এই অঞ্চল তেল-বাণিজ্যের কেন্দ্রস্থল।

আন্তর্জাতিক রাজনীতি বিশ্লেষক ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের অধ্যাপক ড. ইমতিয়াজ আহমেদ বলেন, ‘ইয়েমেনে ভূ-রাজনৈতিক অস্থিরতার কারণে এমনতিতেই তেলের দামে অস্থিরতা বিরাজ করছে। গত এক সপ্তাতে আন্তর্জাতিক বাজারে তেলের দাম ঊর্ধ্বমুখী।’

তিনি বলেন, ‘আমাদের তেলের চাহিদা পূরণের একটি বিরাট উৎস আমদানি। সেক্ষেত্রে এর প্রভাব অবশ্যই আমাদের দেশে পড়বে।’

প্রকাশিত : ২৯ মার্চ ২০১৫

২৯/০৩/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: