কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৩ ডিসেম্বর ২০১৬, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

উপদেশ দেয়ার আগে নিজেকে তা মানতে হবে

প্রকাশিত : ২৯ মার্চ ২০১৫
  • উন্নয়ন সহযোগীদের উদ্দেশে মতিয়া চৌধুরী

স্টাফ রিপোর্টার ॥ সাহায্যের নামে দেয়া উন্নয়ন সহযোগী দেশগুলোর শর্ত দুর্নীতিযুক্ত। তারা আমাদের উপদেশ দেন অথচ নিজেরাই তা মানেন না। শনিবার দুপুরে রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) আয়োজনে সততা সংঘের সমাবেশ ও শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে কৃষিমন্ত্রী বেগম মতিয়া চৌধুরী এসব কথা বলেন।

কৃষিমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশকে হিতোপদেশ দেয়ার আগে উন্নয়ন সহযোগী দেশগুলোর নিজেদের সেটা পালন করতে হবে। তারা সহযোগিতার নামে যেসব শর্ত আরোপ করে সেগুলো দুর্নীতিমুক্ত নয়, দুর্নীতিযুক্ত। এটা অত্যন্ত জোরালো কণ্ঠে বলা যায়। উন্নয়ন সহযোগীদের প্রশ্ন করে তিনি বলেন, আপনারা কিছু হলে বলেন ওমুক দেশ দুর্নীতিগ্রস্ত। সাহায্যের নামে আপনারা যে শর্তগুলো দেন সেগুলো কি খুব সুনীতিগ্রস্ত? আপনারা যখন আমাদের মন্ত্রণায়লগুলোতে আসেন তখন বলেন ওমুকরে কাজ দেন তমুকরে কনসালট্যান্ট করেন, কনসালট্যান্ট ফি দেন। এগুলো কি সুনীতির মধ্যে পড়ে? সহযোগীদের উদ্দেশে তিনি আরও বলেন, উন্নয়ন সংস্থারা যখন সুনীতির কথা বলবে, তখন তাদের নিজেদেরও সেটা প্র্যাকটিস করতে হবে।

নাম প্রকাশ না করে মতিয়া চৌধুরী বলেন, আপনারা জানেন ট্যাক্স ফাঁকির জন্য এনবিআর একজনকে ডেকেছে। তিনি অনেক প্রথিতযশা। তাঁর অনেক ডক্টরেট ডিগ্রি আছে। তাঁরা আমাদের উপদেশ দেন অথচ নিজেরাই তা মানেন না। প্রসঙ্গত, সম্প্রতি নোবেলজয়ী ড. মুহাম্মদ ইউনূসকে তলব করেছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)। রবিবার কর অফিসে হাজির হওয়ার আদেশ দিয়ে এ বিষয়ে একটি চিঠি গত ২২ মার্চ ড. ইউনূসের কাছে পাঠানো হয়েছে।

উন্নয়ন সহযোগী এবং ওয়ান-ইলেভেনের কুশীলবদের উদ্দেশে তিনি বলেন, মুখে একরকম আর কাজেকর্মে অন্যরকম এ ধরনের স্ববিরোধিতা যত আমরা দূর করতে পারব ততই মঙ্গল। তাঁরা একদিকে অনেক ভাল কথা বলছেন কিন্তু বাস্তবে তার উল্টো করছেন। কাজেই উপদেশ দেয়ার আগে নিজেকে মানতে হবে। আমরা এক সময় দুর্নীতিতে এক নম্বরে ছিলাম। এখন সে অবস্থায় নেই। প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান সম্পর্কে তিনি বলেন, হাউজি, জুয়া ও দুর্নীতি জিয়ার হাত ধরেই আসে। তিনি একদিকে বিসমিল্লাহ দিয়ে সংবিধান চালু করেছেন, অপরদিকে ৩৬০টি মদের লাইসেন্স দিয়েছেন। অথচ বঙ্গবন্ধু স্বাধীনতার পরেই বাংলাদেশ থেকে মদের দোকান নিষিদ্ধ করে দেন।

মতিয়া চৌধুরী বলেন, আগে তৎকালীন রেসকোর্স ময়দান ছিল ঘোড়দৌড় প্রতিযোগিতার নামে জুয়ার আখড়া। একাত্তরের ১০ মার্চ বঙ্গবন্ধু বললেন, আজ থেকে রেসকোর্স ময়দানে সকল প্রকারের জুয়া নিষিদ্ধ করা হলো। বঙ্গবন্ধুই মদ জুয়া নিষিদ্ধ করেছেন আর জিয়া এগুলোর অনুমোদন দিয়েছেন। রাষ্ট্র যদি দুর্নীতি করে তাহলে দুর্নীতি প্রসার লাভ করে। ১৯৭৫ সালের পর দেখা গেছে, কিভাবে দুর্নীতি বেড়েছে। রাষ্ট্রতো আর নিজে চলে না, শাসন কাঠামোর মধ্যে চলে। মানুষের মৌলিক অধিকার অন্ন, বস্ত্র, বাসস্থানের নিশ্চয়তা থাকলে দুর্নীতি অনেকাংশে কমবে।

সভাপতির বক্তব্যে দুদক চেয়ারম্যান মোঃ বদিউজ্জামান বলেন, দুর্নীতির বিরুদ্ধে গণসচেতনতা তৈরির জন্যই আমরা দুর্নীতি প্রতিরোধ সপ্তাহ পালন করি। প্রতি বছরের মতো এ বছরও ২৬ মার্চ থেকে এটা শুরু হয়েছে, চলবে ১ এপ্রিল পর্যন্ত। সপ্তাহব্যাপী দুর্নীতি প্রতিরোধমূলক নানা কর্মসূচী হাতে নেয়া হয়েছে। তারই অংশ হিসেবে আজকের এ সততার সমাবেশ শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠান। সততা সংঘ সম্বন্ধে তিনি বলেন, আমরা দুর্নীতির সচেতনতা যেন গোড়া থেকে উপলব্ধি করতে পারি এজন্য স্কুল পর্যায়ে কোমলমতি শিশুদের নিয়ে এ সততা সংঘ গড়ে তোলা হয়েছে। তারাই আগামীর ভবিষ্যত। তাদের যদি আমরা ছোটবেলা থেকে দুর্নীতির ভয়াবহ রূপ সম্বন্ধে সচেতন করতে পারি তাহলে দুর্নীতি অনেকাংশে কমবে।

প্রকাশিত : ২৯ মার্চ ২০১৫

২৯/০৩/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

শেষের পাতা



ব্রেকিং নিউজ: