আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৭ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বুধবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

বিদ্যুত আমদানিতে সহায়তা দিচ্ছে এডিবি

প্রকাশিত : ২৯ মার্চ ২০১৫
  • ভেড়ামারা-বহরমপুর আন্তঃসংযোগের সক্ষমতা বাড়ছে

হামিদ-উজ-জামান মামুন ॥ ভারত থেকে বিদ্যুত আমদানি করতে সহযোগিতা দিচ্ছে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক (এডিবি)। ভারতের বহরমপুরের সঙ্গে বাংলাদেশের ভেড়ামারায় বিদ্যমান ৫০০ মেগাওয়াট গ্রিড আন্তঃসংযোগ প্রকল্পের ক্ষমতা বাড়িয়ে ১০০০ করার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। ফলে নতুন করে আরও ৫০০ মেগাওয়াট বিদ্যুত আমদানি করা যাবে। এতে মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ১ হাজার ৪০৪ কোটি ৭৯ লাখ ৬৫ হাজার টাকা। এর মধ্যে এডিবি দিচ্ছে ৮৪৪ কোটি ৮৮ লাখ ১২ হাজার টাকা। আগামী মঙ্গলবার এ সংক্রান্ত প্রকল্পটি অনুমোদন দিতে যাচ্ছে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক)।

রাজধানীর শেরেবাংলা নগরের এনইসি সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠেয় একনেক বৈঠকে সভাপতিত্ব করবেন প্রধানমন্ত্রী ও একনেক চেয়ারপার্সন শেখ হাসিনা। অনুমোদন পেলে চলতি বছর থেকে ২০১৮ সালের জুনের মধ্যে প্রকল্পটি বাস্তবায়নে কাজ শেষ করবে পাওয়ার গ্রিড কোম্পানি অব বাংলাদেশ লিমিটেড (পিজিসিবি)।

অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগ (ইআরডি) সূত্র জানায়, প্রস্তাবিত প্রকল্পটি বাস্তবায়নে সরকারের সঙ্গে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকের এখনও চুক্তি হয়নি। তবে এডিবির কান্ট্রি অপারেশন্স বিজনেস প্লান (২০১৫-১৭) এর ইন্ডিকেটিভ এ্যাসিসটেন্স পাইপলাইন এর সেকেন্ড সাসেক বাংলাদেশ-ইন্ডিয়া গ্রিড ইন্টারকানেকশন প্রজেক্টর এর অনুকূলে প্রয়োজনীয় অর্থ বরাদ্দ রয়েছে।

এ বিষয়ে এডিবির দায়িত্বপ্রাপ্ত অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের (ইআরডি) যুগ্ম সচিব মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন আহমেদ জনকণ্ঠকে বলেন, এই ঋণের বিষয়ে অর্থায়নের নিশ্চয়তা রয়েছে। দ্রুতই এডিবির ফ্যাক্টফাইন্ডিং মিশন আসবে বাংলাদেশে। এরপরই নোগোশিয়েনসহ চুক্তি স্বাক্ষরের প্রক্রিয়ার দিকে যাওয়া হবে। আগামী মঙ্গলবার এ সংক্রান্ত প্রকল্পটি একনেকে অনুমোদন হয়ে গেলে ভাল হয়, তাহলে পরবর্তী প্রক্রিয়াগুলো দ্রুত এগুবে। কেননা অনেক সময় দেখা যায় একনেকে অনুমোদনের জন্য হাত পা গুটিয়ে অপেক্ষা করে থাকতে হয়। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, বর্তমানে ৫০০ মেগাওয়াট ক্ষমতাকে বাড়িয়ে এক হাজার মেগাওয়াটে করা হবে। বিদ্যুত বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, ক্রমবর্ধমান চাহিদার কথা বিবেচনায় রেখে ভারত থেকে আরও বিদ্যুত আমদানি করার পরিকল্পনা করেছে সরকার। এজন্য ভারতের বহরমপুরের সঙ্গে বাংলাদেশের ভেড়ামারায় বিদ্যমান ৫০০ মেগাওয়াট গ্রিড আন্তঃসংযোগ স্থলে আরেকটি ইউনিট স্থাপন করা হচ্ছে। অর্থাৎ বিদ্যমান হাইভোল্টেজ ডিসি কারেন্ট (এইচভিডিসি)-২ স্থাপন করা হবে। এছাড়া ১২ কিলোমিটার ভেড়ামারা ঈশ্বরদী ২৩০ কেভি ডাবল সার্কিট সঞ্চালন লাইন নির্মাণ হবে। চলতি মাসেই এ লক্ষ্যে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তি করেছে পাওয়ার গ্রিড কোম্পানি অব বাংলাদেশ লিমিটেড (পিজিসিবি)।

সূত্র জানায়, দেশে বিদ্যুতের চাহিদা দ্রুত গতিতে বাড়ছে। ক্রমবর্ধমান চাহিদা পূরণে সরকার বিদ্যুত খাতে বিনিয়োগ বাড়িয়েছে। গত কয়েক বছর থেকে দেয়া হচ্ছে বিশেষ গুরুত্ব। কিন্তু এরপরও বিদ্যুত ঘাটতি মোকাবেলা করা সম্ভব হচ্ছে না। ফলে পার্শ্ববর্তী দেশ থেকে বিদ্যুত আমদানি জরুরী হয়ে পড়েছে। এ পরিপ্রেক্ষিতে ভারতের বহরমপুরের সঙ্গে বাংলাদেশের ভেড়ামারায় বিদ্যমান ৫০০ মেগাওয়াট গ্রিড আন্তঃসংযোগ ক্ষমতা বৃদ্ধি প্রকল্পটি হাতে নেয়া হচ্ছে।

প্রকল্পের আওতায় প্রধান কার্যক্রম হচ্ছে, ভেড়ামারা-ঈশ্বরদী ১২ কিলোমিটার ২৩০ কেভি ডাবল সার্কিট সঞ্চালন লাইন (রিভার ক্রসিংসহ) নির্মাণ, ভেড়ামারা ৫০০ মেগাওয়াট এইচ ভি ডিসি ব্যাক টু ব্যাক উপকেন্দ্র (সেকেন্ড মডেল) নির্মাণ, বিদ্যমান ঈশ্বরদী ২৩০/১৩২ কেভি উপকেন্দ্রে দুটি এবং ভেড়ামারা এইচ ভি ডিসি ব্যাক টু ব্যাক উপকেন্দ্র (সেকেন্ড মডেল) দুটি ২৩০ কেভি বে সম্প্রসারণ করা হবে।

পরিকল্পনা কমিশনের শিল্প ও শক্তি বিভাগের সদস্য এস এম গোলাম ফারুক এ প্রকল্পটির বিষয়ে পরিকল্পনা কমিশনের মতামত দিতে গিয়ে বলেছেন, প্রস্তাবিত প্রকল্পটির ওপর ২০১৪ সালের ২১ ডিসেম্বর প্রকল্প মূল্যায়ন কমিটির (পিইসি) সভা অনুষ্ঠিত হয়। ওই সভায় গৃহীত সুপারিশের আলোকে বিদ্যুত বিভাগ উন্নয়ন প্রকল্প প্রস্তাব (ডিপিপি) পুনর্গঠন করে পরিকল্পনা কমিশনে পাঠিয়েছে। প্রকল্পটির প্রক্রিয়াকরণ শেষে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) বৈঠকে অনুমোদনের জন্য সুপারিশ করা হয়েছে।

প্রকাশিত : ২৯ মার্চ ২০১৫

২৯/০৩/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

শেষের পাতা



ব্রেকিং নিউজ: