আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৬ ডিসেম্বর ২০১৬, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, মঙ্গলবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

নিরাপদ পানির সঙ্কট

প্রকাশিত : ২৯ মার্চ ২০১৫

বিশ্বে নিরাপদ তথা সুপেয় পানির সঙ্কট বাড়ছে। বাংলাদেশকে নদীমাতৃক দেশ বলা হলেও দেশের সাড়ে নয় কোটি মানুষ বিশুদ্ধ পানি ব্যবহার করতে পারছেন না। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তথ্যমতে, বাংলাদেশে ১৬ কোটি মানুষের দেশটিতে ৯৭ ভাগ মানুষের পানি প্রাপ্যতা নিশ্চিত করা হলেও বিশুদ্ধ পানির অভাবে এবং মৌসুম ভেদে পানি সঙ্কটের কারণে স্বাস্থ্য সুরক্ষা বিঘিœত হচ্ছে, শিল্পোন্নয়ন ও কৃষি কাজও মারাত্মকভাবে ব্যাহত হচ্ছে। জানা গেছে, বিশ্বে নিরাপদ পানি সঙ্কটের দশটি দেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান প্রথম দিকে। বিষয়টি নিয়ে এখনই আমাদের ভাবতে হবে, সচেতন হতে হবে।

দেশে মিঠা পানির উৎসমূল থেকে যে পানি আসছে, সংরক্ষণাগারের অভাবে ক্রমাগত তা সাগরের দিকে চলে যাচ্ছে। প্রতিদিন সুপেয় পানির উৎসগুলো দূষণের শিকার হচ্ছে। আর এ দূষণের জন্য আমরাই দায়ী। শুধু খাবার পানিই নয়, দৈনন্দিন ব্যবহারের পানি নিয়েও সমস্যা দেখা দিয়েছে। বেশিরভাগ নদীর পানি প্রবাহ নেই, কোন কোন নদীর পানি কমে যাচ্ছে। যে পানি আছে তাও দূষিত। দেশের বেশিরভাগ এলাকায় টিউবওয়েলে আর্সেনিকের বিষের তীব্রতা দিন দিন বাড়ছে। পানি নিয়ে সমস্যা এখানেই শেষ নয়, দেশের উত্তরাঞ্চলের অনেক এলাকা মরু এলাকার রূপ নিচ্ছে। দক্ষিণে লবণাক্ততার ছোবল, রয়েছে ভূগর্ভস্থ পানির অপ্রতুলতা। তাই বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও পানি এখন আলোচনার বিষয়। পানিসম্পদের সঠিক ব্যবহার নিয়ে মানুষ ভীষণ চিন্তিত। পানি বিশেষজ্ঞরাও বিষয়টি বড় সঙ্কট হিসেবে দেখছেন।

পানি সঙ্কট মোকাবেলায় পানি সংরক্ষণের বিষয়টিই ভাবা দরকার। দেশের ছোট-বড় ও মাঝারি ধরনের নদী ও খাল রয়েছে অসংখ্য। শুষ্ক মৌসুমে এসব খাল ও নদী বেশির ভাগই শুকিয়ে যায়। সেচ ও অন্য কাজের জন্য ভূগর্ভস্থ পানি ব্যবহার করায় পানির স্তর অনেক নিচে নেমে গেছে। বাংলাদেশ বৃষ্টিপ্রধান দেশ। একটা মৌসুমে দেশে প্রচুর বৃষ্টিপাত হয়। বৃষ্টির পানিকে আমরা কাজে লাগালে পানির এই সঙ্কট বহুলাংশে লাঘব সম্ভব। এসব নদী ও খালে ২/৩ কিলোমিটার পরপর মাটির বাঁধ বা সøুইসগেটসহ বাঁধ নির্মাণ করে পানি আটকে রাখা যায়। এতে নদী/খালের দু’ধারের মানুষ সেচ কাজসহ অন্যান্য কাজে পানি ব্যবহার করতে পারবে এবং বিস্তীর্ণ এলাকার ভূগর্ভস্থ পানির স্তর ওপরে উঠে যাবে। এতে শুষ্ক মৌসুমে পানির অভাব দূর হবে, প্রাকৃতিক পরিবেশ ও ভারসাম্য রক্ষা হবে। আসলে নিরাপদ পানির সঙ্কট দূর করতে দরকার কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ। এ ব্যাপারে সুপরিকল্পিত উদ্যোগ গ্রহণ জরুরী।

প্রকাশিত : ২৯ মার্চ ২০১৫

২৯/০৩/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: