মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১০ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

মুন্সীগঞ্জে স্কুলছাত্রের মৃত্যু ঘিরে রহস্য দানা বাঁধছে

প্রকাশিত : ২৮ মার্চ ২০১৫

স্টাফ রিপোর্টার, মুন্সীগঞ্জ ॥ শ্রীনগর উপজেলার কুকুটিয়া গ্রামের স্কুলছাত্র শাওন শেখের মৃত্যু নিয়ে রহস্য দানা বেঁধেছে। পাঁচ দিন আগে কচুরির নিচ থেকে লাশ উদ্ধার হলেও পুলিশ কিছু জানে না। ময়নাতদন্ত ছাড়াই তড়িঘড়ি লাশ দাফন করা হয়েছে। “মেলা বাড়ির দয়ালে নিয়ে গেছে” কতিপয় ব্যক্তি পরিবারকে এমন উদ্ভট ধারণা দিয়ে পুলিশকে জানাতে বারণ করে। পুলিশের অগোচরেই লাশ দাফন করা হয়। তবে শাওনের লাশ উদ্ধারের আলামত দেখে স্থানীয়রা দাবি করেছে এটি হত্যাকা-। কুকুটিয়া গ্রামের বাদল শেখের পুত্র শাওন কুকুটিয়া কমলাকান্ত উচ্চ বিদ্যালয়ের ৯ম শ্রেণীর ছাত্র। স্থানীয় সূত্র জানায়, গত ২২ মার্চ রাত দুইটার দিকে শাওনের লাশ কুকুটিয়া গ্রামের শাহজাহান চিস্তির মেলা বাড়ির পাশের পুকুর হতে উদ্ধার করা হয়। শাওন খুন হওয়ার আগে মেলা বাড়ি গাঁজা সেবনে বাধা দেয়। এর কিছুপরই শাওন নিখোঁজ হয়। খোঁজাখুঁজি শুরু করে বন্ধুরা। এক সময় শাওনের স্যান্ডেল পাওয়া যায় ওই পুকুর পাড়ে। শাওনের মোবাইলটিও পুকুর পাড়ে বাজতে থাকে। পরপর শাওনের লাশ পুকুরের কচুরির নিচ হতে উদ্ধার করা হয়। স্থানীদের ধারণা- গাঁজা সেবনে বাধা দেয়ায় শাওনকে খুন করা হয়। মেধাবী ওই ছাত্রের কোন শত্রু ছিল না।

কুকুটিয়া উত্তরপাড়া মসজিদের সেক্রেটারি নূরুর আমিন দফতরি জানান, শাওনের লাশটি উদ্ধারের পর তার শরীরে জমাট বাঁধা রক্তের দাগ দেখা গেছে। তাছাড়া তার শরীরের কোথাও কোথাও আঘাতের চিহ্নও ছিল। সে সময়ে বলা হচ্ছিল- শাওনকে মেলা বাড়ির দয়ালে নিয়ে গেছে। তাই ভয়ে কেউ মুখ খোলেনি। শ্রীনগর থানার ওসি (তদন্ত) মুজিবুর রহমান শুক্রবার সন্ধ্যায় বলেন, “খোঁজ খবর নিয়ে যতটুকু জানলাম, শাওনের বাবা নেই। মায়ের এ ব্যাপারে অভিযোগ নেই। পুকুরের মাচায় বসে থাকা অবস্থায় পেছন দিক থেকে পানিতে পড়ে গিয়ে মারা গেছে।” কিন্তু শাওন ভাল সাঁতার জানত। অসর্তকতায় পানিতে পড়ে গেলেও এভাবে মারা যাওয়ার কথা নয়। আর পুলিশকে না জানিয়ে কেন তড়িঘড়ি দাফন করা হলো? এই প্রশ্নের জবাবে ওসি জানান, এব্যপারে আরও খোঁজ খবর করা হচ্ছে।

প্রকাশিত : ২৮ মার্চ ২০১৫

২৮/০৩/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

দেশের খবর



ব্রেকিং নিউজ: