আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৭ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বুধবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

ফার্নিচার রফতানিতে নগদ অর্থ সহায়তা দেবে সরকার ॥ বাণিজ্যমন্ত্রী

প্রকাশিত : ২৫ মার্চ ২০১৫

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, ফার্নিচার রফতানিতে নগদ অর্থ সহায়তা দেবে সরকার। সরকার ষষ্ঠ পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনা মোতাবেক বাংলাদেশের রফতানি পণ্য এবং বাজার সম্প্রসারণে কাজ করে যাচ্ছে। প্রচলিত রফতানি পণ্যের পাশাপাশি যে সকল পণ্য রফতানির উদ্যোগ নেয়া হয়েছে, ফার্নিচার তার মধ্যে অন্যতম। বিশ্ব বাজারে বাংলাদেশেল তৈরি ফার্নিচার ইতোমধ্যে বেশ জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে। রফতানির পরিমাণ বৃদ্ধির জন্য ব্যবসায়ীদের পরামর্শ মোতাবেক সরকার নগদ অর্থ সহায়তা প্রদানের ব্যবস্থা নিয়েছে।

মঙ্গলবার ঢাকায় যমুনা ফিউচার পার্কে রফতানি উন্নয়ন ব্যুরো, বাংলাদেশ ফার্নিচার এক্সপোর্টার্স এ্যাসোসিয়েশন, বাংলাক্রাফ্ট, বাংলাদেশ জুট ডাইভার্সিফাইড প্রোডাক্ট ম্যানুফ্যাকচারার্স এ্যান্ড এক্সপোর্টার্স এ্যাসোসিয়েশন এবং বাংলাদেশ ফার্নিচার ইন্ডাস্ট্রিজ ওনার্স এ্যাসোসিয়েশন যৌথভাবে আয়োজিত তিন দিনব্যাপী ‘চতুর্থ বাংলাদেশ ফার্নিচার এবং ইন্টেরিয়র ডেকর এক্সপো-২০১৫’-এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এ কথা বলেন। অনুষ্ঠানে রফতানি উন্নয়ন ব্যুরোর ভাইস চেয়ারম্যান শুভাশীষ বসুর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী মুহা. ইমাজ উদ্দিন আহমেদ, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব হেদায়েতুল্লাহ আল মামুন, এফবিসিসিআইয়ের প্রেসিডেন্ট কাজী আকরাম উদ্দিন আহমেদ, বাংলাক্রাফটের সাবেক সভাপতি মালেকা খান, বাংলাদেশ জুট ডাইভার্সিফাইড প্রোডাক্ট ম্যানুফ্যাকচারার্স এ্যান্ড এক্সপোর্টার্স এ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি শহিদুল ইসলাম হেলাল, বাংলাদেশ ফার্নিচার ইন্ডাস্ট্রিজ ওনার্স এ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি সেলিম এইচ রহমান প্রমুখ। তোফায়েল আহমেদ বলেন, বাংলাদেশে যেভাবে ফার্নিচার শিল্প বিকশিত হচ্ছে এবং দেশের চাহিদা পূরণ করে বিদেশে রফতানি করা হচ্ছে, তাতে এ শিল্পের ভবিষত খুবই উজ্জ্বল। এ শিল্পে বিপ্লব ঘটাতে এবং রফতানি বৃদ্ধিতে চাহিদা মোতাবেক বিশেষ সহায়তা দিয়ে যাবে সরকার। মন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের বিস্ময়কর উত্থান ঘটেছে। যারা এক সময় বাংলাদেশকে তলাবিহীন ঝুড়ি বলে আখ্যায়িত করেছিল, তারাই আজ বলছেন, বাংলাদেশ মীরাক্কেল। শুন্যহাতে যাত্রা শুরু করে আজ বাংলাদেশের রফতানি ৩০ দশমিক ১৯ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। এরমধ্যে সিংহভাগই আসে তৈরি পোশাক রপ্তানি থেকে। আগামী ২০২১ সালে শুধু তৈরি পোশাক থেকে ৫০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার রফতানির লক্ষ্যমাত্র ধরা হয়েছে। বাংলাদেশের ফার্নিচার রফতানি করে উল্লেখযোগ্য পরিমাণ বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন করা সম্ভব।

প্রকাশিত : ২৫ মার্চ ২০১৫

২৫/০৩/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: