মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১১ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

রাজশাহীতে ট্রেন থেকে আগ্নেয়াস্ত্রসহ নারী গ্রেফতার

প্রকাশিত : ২৫ মার্চ ২০১৫
  • অবরোধ-হরতাল ব্যর্থ ॥ চোরাগোপ্তা হামলার আশঙ্কায় বিশেষ অভিযান

স্টাফ রিপোর্টার ॥ মঙ্গলবার দেশের কোথাও অবরোধ-হরতালের প্রভাব ছিল না। তবে চোরাগোপ্তা হামলার আশঙ্কায় আবারও জামায়াত-শিবিরের প্রভাব থাকা জেলাগুলোতে বিশেষ অভিযান শুরু হয়েছে। অভিযানে সোমবার রাতে রাজশাহীতে ট্রেন থেকে আগ্নেয়াস্ত্রসহ এক নারী ও লক্ষ্মীপুরে এক যুবদল নেতার বাড়ি থেকে আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার এবং যশোর থেকে বিএনপি-জামায়াত-শিবির ও পেশাদার সন্ত্রাসীসহ ৮০ জনকে গ্রেফতারের ঘটনা ঘটেছে। রাজশাহী থেকে ৪০ রাউন্ড বুলেটসহ পিস্তল দুটি ঢাকায় আনা হচ্ছিল। বিএনপির ডাকা দেশব্যাপী অবরোধে জামায়াত-শিবিরের প্রভাব থাকা জেলাগুলোতে তুলনামূলক বেশি নাশকতার ঘটনা ঘটেছে। বিষয়টিকে গুরুত্ব দিয়ে এবং আগামী ২৬ মার্চ মহান স্বাধীনতা দিবসে যে কোন ধরনের অরাজক পরিস্থিতি এড়াতে বিশেষ অভিযান চলছে।

সোমবার রাত সাড়ে এগারোটার দিকে ঢাকাঅভিমুখী ধূমকেতু এক্সপ্রেস ট্রেনে অভিযান চালায় পুলিশ। রাজশাহী রেলওয়ে পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আকবর হোসেন জানান, অভিযানে গ্রেফতার হয় আক্তারা বেগম জান্নাত (৩৫) নামে এক নারী। তার কাছ থেকে ৪০ রাউন্ড বুলেট ও দুটি ম্যাগাজিনসহ দুটি পিস্তল উদ্ধার হয়। অস্ত্রগুলো রাজশাহী থেকে ঢাকা নিয়ে যাচ্ছিল জান্নাত। ঢাকায় অস্ত্রগুলো একজনের কাছে সরবরাহ করার কথা ছিল। জান্নাত অস্ত্র কেনাবেচা চক্রের সঙ্গে জড়িত। চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার কর্ণখালী গ্রামের মৃত আফসার আলীর মেয়ে জান্নাত স্বামীর সঙ্গে থাকে না। তার এক ছেলে ও এক মেয়ে আছে।

এদিকে সোমবার রাত সাড়ে এগারোটার দিকে লক্ষ্মীপুর জেলা সদরের দক্ষিণ হামছাদি জাহানাবাদ এলাকায় যুবদল নেতা ফরিদ উদ্দিনের বাড়িতে অভিযান চালায় পুলিশ। অভিযানে একটি অবৈধ কাটা রাইফেল ও একটি এলজি, দুটি একনলা বন্দুক, অর্ধশতাধিক গুলি ও গুলি রাখার ব্যাগ উদ্ধার করা হয়। ফরিদ উপজেলা যুবদলের সিনিয়র সহ-সভাপতি বলে জানিয়েছেন জেলা সদর যুবদলের সাধারণ সম্পাদক আলমগীর হোসেন।

জেলা পুলিশ সুপার শাহ মিজান শাফিউর রহমান জানান, ফরিদের বিরুদ্ধে সদর থানায় হত্যাসহ অন্তত পাঁচটি মামলা রয়েছে। একটি হত্যা মামলায় গ্রেফতার হয়ে একমাস আগে তিনি জামিনে ছাড়া পান। এ ঘটনায় পুলিশ অস্ত্র আইনে সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করেছে। মামলায় আসামি করা হয়েছে ফরিদকে। ফরিদের নিজস্ব একটি সন্ত্রাসী দল রয়েছে।

অন্যদিকে যশোরের আটটি উপজেলায় সোমবার রাতভর অভিযান চালায় যৌথবাহিনী। অভিযানে গ্রেফতার হয় ৮০ জন।

আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সূত্রে জানা গেছে, গত ৫ জানুয়ারি থেকে বিএনপির ডাকা অবরোধ-হরতালে সবচেয়ে বেশি নাশকতামূলক ঘটনা ঘটেছে জামায়াত-শিবিরের প্রভাব থাকা জেলাগুলোতে। ইতোমধ্যেই শতাধিক মানুষের মৃত্যু হয়েছে। অধিকাংশেরই মৃত্যু হয়েছে পেট্রোলবোমায় জীবন্ত দগ্ধ হয়ে। আহত অন্তত দুই হাজার জনের মধ্যে প্রায় হাজারখানেক মানুষকে চিরতরে পঙ্গুত্ববরণ করতে হয়েছে। অগ্নিসংযোগসহ ভাংচুর করা হয়েছে যাত্রীবাহী বাস, পণ্যবাহী ট্রাকসহ অন্তত তিন হাজার যানবাহন, ৮ দফায় ট্রেনে, ৭ দফায় লঞ্চে, পঁচিশটি ভূমি অফিস পুড়িয়ে দেয়াসহ ক্ষমতাসীন নেতাকর্মীদের বাড়িতে অগ্নিসংযোগসহ নানা নাশকতামূলক কর্মকা-ের ঘটনা ঘটেছে। এসব ঘটনা ঘটেছে জামায়াত-শিবির অধ্যুষিত জেলাগুলোতে। যশোর, সাতক্ষীরা, রংপুর, দিনাজপুর, গাইবান্ধা, জয়পুরহাট, ঠাকুরগাঁও, রাজশাহী, পঞ্চগড়, কক্সবাজার, চট্টগ্রাম, সিলেট, সুনামগঞ্জ, হবিগঞ্জ ও চট্টগ্রাম জেলায় চলছে বিশেষ সাঁড়াশি অভিযান। সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের পরেও সাঁড়াশি অভিযান অব্যাহত থাকবে।

প্রকাশিত : ২৫ মার্চ ২০১৫

২৫/০৩/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

শেষের পাতা



ব্রেকিং নিউজ: