আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৬ ডিসেম্বর ২০১৬, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, মঙ্গলবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

মানবপাচারের সঙ্গে জড়িত সাকিবের প্রতিষ্ঠান ফিয়েস্তা!

প্রকাশিত : ২৪ মার্চ ২০১৫, ০৮:৫৯ পি. এম.

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ বাংলাদেশ সেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান কিছুই জানেন না। অথচ তার আড়ালেই, তার নাম ভাঙ্গিয়ে চলছে তার প্রতিষ্ঠান ফিয়েস্তার মানবপাচার!

ক্রিকেট নিয়ে এতটাই ব্যস্ত যে নিজের প্রতিষ্ঠান সম্পর্কে (ফিয়েস্তার চেয়ারম্যান সাকিব) কিছুই জানেন না সাকিব। প্রতিষ্ঠানটি ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট কোম্পানি। কী করছে, কিভাবে করছে। এর সঙ্গে জড়িত কর্মকর্তারা যে কী দুই নম্বরি কাজ কর্ম করে বেড়াচ্ছেন, সবই অজানা সাকিবের। তাকে ফাঁকি দিয়েই ঘটছে মানবপাচার। সর্বশেষ জাপানে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের নামে মানবপাচার করতে গিয়েই সব ফাঁস হয়ে গেল।

সময়ের অভাবে হোক আর যে কারণেই হোক তার অগোচরে তার প্রতিষ্ঠানের মানবপাচারের ব্যবসা রোধ করতে পারেননি তিনি। রবিবার দেশের একটি বেসরকারী টেলিভিশনে সাকিব আল হাসানের ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট কোম্পানি ফিয়েস্তা ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট লিমিটেডের নাম ভাঙ্গিয়ে ‘সংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের নামে জাপানে মানবপাচারের আয়োজন চলছে, জনপ্রতি নেয়া হচ্ছে ১২ থেকে ১৫ লাখ টাকা’ শিরোনামে একটি সংবাদ পরিবেশনের পরপরই ভেস্তে গেছে কোম্পানিটির আদমপাচারের মহা অসৎ পরিকল্পনা।

ফিয়েস্তা ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট ২০০৮ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। চেয়ারম্যান হিসেবে বিশ্বসেরা ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান এ বছর ২ জানুয়ারি যুক্ত হন। সেই সময় থেকেই যেন নবযাত্রার শুরু হয়। এরপর থেকেই সবচেয়ে বড় ইভেন্ট হিসেবে জাপানে আগামী এপ্রিল মাসের ১২-১৭ তারিখ পর্যন্ত একটি সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করার সব প্রস্তুতি গ্রহণ করে সাকিবের ব্যবসায়ী এ প্রতিষ্ঠানটি। কিন্তু তীরে এসে তরী ডুবল কোম্পানিটির। অনুসন্ধানে আরও বেরিয়ে এসেছে, জাপানে অনুষ্ঠিতব্য ওই সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে মোট শিল্পী সংখ্যা হিসেবে ৩২ জনের সঙ্গে চুক্তি করা হয়েছিল। তাদের মধ্যে আলোচিত সংসদ সদস্য ও শিল্পী মমতাজ এবং কুমার বিশ্বজিৎ ছাড়া তেমন কোন তারকা শিল্পী বহরে নেই। তবে মোট ১৭২ জনের প্রতিনিধি দল নিয়ে জাপানে যাওয়ার কথা ছিল ফিয়েস্তার। ঢাকার জাপান দূতাবাস সূত্র আরও জানিয়েছে, ফিয়েস্তা জাপানে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের জন্য মোট ১৭২ জনের ভিসা দেয়া হয়েছে। অনুষ্ঠানের মাধ্যমে দু’দেশের সাংস্কৃতিক বিনিময় চুক্তি আরও সুদৃঢ় করতেই সবাইকে ভিসা দেয়া হয়েছে। ভিসা পাওয়া মোট ১৭২ জনের মধ্যে মমতাজ বাদে আরও ৫ সংসদ সদস্য রয়েছেন এবং ফিয়েস্তার কর্মকর্তা কর্মচারি হিসেবে ২৫ জন। মোট ৬৩ এবং প্রভাবশালী অতিথি হিসেবে আরও ৯ জনের ভিসা করানো হয়েছে। বাকি ১০০ জনকে ইভেন্টের বিভিন্ন কাজে লাগানো হবে এই মর্মে ভিসা দেয়া হয়েছে।

কিন্তু ইভেন্টের কাজে কোন ধরনের অভিজ্ঞতা নেই এমন কমপক্ষে ৩০ থেকে ৫০ লোক যারা এই সুযোগে জাপানের ভিসা নিয়ে আর দেশে না ফেরার চিন্তা করেছিল। ফিয়েস্তা ইভেন্ট ম্যানেজমেন্টের জেনারেল ম্যানেজার কাজী ফারিন আল নাফিসের সঙ্গে টেলিফোনে জাপান যেতে ইচ্ছুক এবং যাওয়ার কোন সুযোগ রয়েছে কিনা এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি আমতা আমতা করে বলেন, ‘এখন আর সুযোগ নেই। তাছাড়া আমরা অনিবার্য কারণে জাপানের আগামী মাসের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানটি স্থগিত করেছি।’ মানবপাচারের বিষয়ে কোন কথা বলতে রাজি হননি এবং মিটিংয়ের ব্যস্ততা দেখিয়ে ফোনটি কেটে দেন।

এমন প্রতিবেদনের পরে সবাই সাকিবকেও দুষছেন। যে প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান তিনি, সেই প্রতিষ্ঠান কী কাজ করছে, কতটা স্বচ্ছভাবে করছে তা কী জানবেন না! এ বিষয়ে সাকিবের সঙ্গে কথা বলতে চাইলে পারা যায়নি। মোবাইলে রিং হতে থাকলেও সাকিব ধরেননি।

প্রকাশিত : ২৪ মার্চ ২০১৫, ০৮:৫৯ পি. এম.

২৪/০৩/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: