কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৩ ডিসেম্বর ২০১৬, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

বাংলাদেশ-ভিয়েতনাম বাণিজ্য বৃদ্ধির বাধা দূর করা হবে

প্রকাশিত : ২৪ মার্চ ২০১৫

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ বাংলাদেশ-ভিয়েতনাম দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য চুক্তি থাকায় দু’দেশের বাণিজ্য সুবিধা বৃদ্ধির বিষয়ে একমত হয়েছে। বাণিজ্য বিষয়ক জয়েন্ট কমিটির প্রথম সভায় উভয় দেশ পারস্পরিক বাণিজ্য ও অর্থনৈতিক সহযোগিতা বৃদ্ধির বিষয় নিয়ে আলোচনা করা হয়। আগামী দিনগুলোতে কিভাবে এ সকল ক্ষেত্রে সহযোগিতা বৃদ্ধি করা যায়, তা নিয়ে আলোচনা করা হয়। বাণিজ্য ও অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে বিরাজমান সমস্যাগুলো সমাধানের ক্ষেত্রে কূটনৈতিক চ্যানেলে আলোচনার মাধ্যমে সমাধান করা হবে। দু’দেশের অর্থনৈতিক সহযোগিতা এবং বাণিজ্য বৃদ্ধির ক্ষেত্রে বাধাসমূহ চিহ্নিত করে তা দূর করার বিষয়ে একমত পোষণ করা হয়।

বাণিজ্য বিষয়ক বাংলাদেশ-ভিয়েতনাম জয়েন্ট কমিটির প্রথম সভা গত ২২ থেকে ২৩ মার্চ ঢাকায় অনুষ্ঠিত হয়। বাংলাদেশের পক্ষে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব হেদায়েতুল্লাহ আল মামুন এবং ভিয়েতনামের পক্ষে সে দেশের শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক ডেপুটি মিনিস্টার হোয়াং কিয়োক ভূইয়াং নেতৃত্ব দেন।

বাংলাদেশের ওষুধ, পাট ও পাটজাত পণ্য, সিরামিক, চামড়া ও চামড়াজাত পণ্য বেশি পরিমাণে আমদানির জন্য ভিয়েতনামের প্রতি আহ্বান জানানো হয়। এছাড়া, ওষুধ রফতানি ক্ষেত্রে সিঙ্গাপুর ও থাইল্যান্ডে কর বায়ো-ইকুয়েভ্যালেন্স টেস্ট গ্রহণ করা, বাংলাদেশ কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর ভিয়েতনামের ন্যাশনাল এ্যাগ্রো-ফরেস্ট্রি ফিসারিজ কোয়ালিটি এসোয়েরেন্স ডিপার্টমেন্টের রেজিস্ট্রেশনের জন্য বাংলাদেশ প্রস্তাব করে। ভিয়েতনাম বিষয়গুলো গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনার বিষয়ে মত প্রকাশ করে। চাল বিশেষ করে সিদ্ধ চাল আমদানির ক্ষেত্রে ভিয়েতনাম বাংলাদেশের সঙ্গে সম্পাদিত এমওইউ মোতাবেক কার্যক্রম অব্যাহত রাখা এবং সিমেন্ট ও সিমেন্ট তৈরির কাঁচামাল আমদানি অব্যাহত রাখা, ভিয়েতনাম বাংলাদেশে কৃষি যন্ত্রপাতি রফতানি, পেট্রোলিয়াম সামগ্রির বিষয়ে বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম কর্পোরেশনের সহযোগিতা অব্যাহত রাখার আহ্বান জানানো হয়। বাংলাদেশ খাদ্য উৎপাদন পরিস্থিতি ব্যাখ্যা করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের কথা বলে। উভয় দেশ বাণিজ্য বৃদ্ধির লক্ষ্যে বাণিজ্য মেলা অংশগ্রহণের ওপর গুরুত্বারোপ করে। বিষয়গুলো নিয়ে উভয় দেশ ইতিবাচক মনোভাব প্রকাশ করে এবং স্ব স্ব দেশের সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে আলোচনা করে এ বিষয়ে পরবর্তী কার্যক্রম গ্রহণ করা হবে। বাংলাদেশের রফতানি উন্নয়ন ব্যুরো এবং ভিয়েতনামের ট্রেড প্রোমশন এজেন্সির মধ্যে সম্পাদিত এমওইউ এর মেয়াদ আগামী ১ নবেম্বর শেষ হয়ে যাবে। পরবর্তী তিন বছরের জন্য এ এমওইউ কার্যকর থাকার বিধান রয়েছে। উভয় দেশ এ বিষয়ে একমত পোষণ করে এবং যথাযথ কার্যক্রম গ্রহণের প্রতিশ্রুতি দেয়। বৈঠকে বাংলাদেশ-ভিয়েতনাম বিজনেস কাউন্সিল গঠনে একমত পোষণ করা হয়। এ বিষয়ে বাংলাদেশের পক্ষে এফবিসিসিআই এবং ভিয়েতনামের পক্ষে ভিসিসিআই এ বিষয়ে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করবে।

প্রকাশিত : ২৪ মার্চ ২০১৫

২৪/০৩/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: