আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৬ ডিসেম্বর ২০১৬, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, মঙ্গলবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

কিউই সাফল্যের নায়ক বোল্ট!

প্রকাশিত : ২৩ মার্চ ২০১৫

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ বিশ্বকাপ শুরুর মাত্র তিনদিন আগে দক্ষিণ আফ্রিকার মুখোমুখি হয়েছিল নিউজিল্যান্ড। ক্রাইস্টচার্চে বিশ্বকাপের প্রস্তুতি ম্যাচে প্রোটিয়াদের অবশ্য উড়িয়ে দিয়েছিল কিউই শিবির। সে ম্যাচে নিউজিল্যান্ডের পেসার ট্রেন্ট বোল্ট ৫১ রানে শিকার করেছিলেন ৫ উইকেট। তখনই বোঝা যাচ্ছিল দারুণ কিছু করবেন তিনি এবার বিশ্বকাপে। সেটা সত্য হয়েছে। চলতি আসরে আগুন ঝরা বোলিং করে প্রতিপক্ষের জন্য সাক্ষাত যমদূতে পরিণত হয়েছেন এ বাঁহাতি ফাস্ট বোলার। ৭ ম্যাচে নিয়েছেন ১৯ উইকেট। যদি সেমিফাইনালে দক্ষিণ আফ্রিকার কাছে হেরেও বিদায় নিতে হয় কিউইদের নিশ্চিতভাবেই বোল্টের গতিতোপে বেশ সমস্যায় পড়তে হবে তাদের। বিশিষ্ট ক্রীড়ালেখক এ্যান্ড্রু ম্যাকগ্লাশান এমনটাই মনে করছেন। বোল্ট যদি নিজের সেরা সামর্থ্য দেখাতে সক্ষম হন সেক্ষেত্রে কিউইরা সাফল্য পাবে। প্রথমবার বিশ্বকাপ ফাইনালে ওঠার জন্য নিউজিল্যান্ডের সাফল্যের চাবিকাঠি বোল্ট। বিশ্বকাপের শুরুতে তেমন সুবিধা করতে পারেননি বোল্ট। প্রথম তিন ম্যাচে মাত্র ৫ উইকেট নিয়েছিলেন। তবে ক্রমেই দুর্ধর্ষ হয়ে উঠেছেন। পরের ম্যাচগুলোয় প্রতিপক্ষের সঙ্গে পার্থক্য গড়ে দিয়েছেন বোল্ট নিজেই। ৭ ম্যাচে ১৯ উইকেট নিয়ে এই আসরে এখন পর্যন্ত শীর্ষ উইকেটশিকারি। সুযোগ আছে বিশ্বকাপের এক আসরে নিউজিল্যান্ডের পক্ষে সেরা পারফর্মার হয়ে ওঠার। ১৯৯৯ বিশ্বকাপে বাঁহাতি পেসার জিওফ এ্যালোট ২০ উইকেট শিকার করেছিলেন। এবার তাকে ছাড়িয়ে যাওয়ার সুযোগ বোল্টের সামনে। সেবার তাকে নিউজিল্যান্ডের বিদায়ের পর ছাড়িয়ে গিয়েছিলেন অস্ট্রেলিয়ার কিংবদন্তি লেগস্পিনার শেন ওয়ার্ন। ঠিক একইভাবে এবার সবার ওপরে বোল্ট। সেমিতে যদি বিদায় নিতেও হয় বোল্ট ছাড়িয়ে যাবেন এ্যালোটকে। এতদিন যেভাবে বোলিং করেছেন সেখান থেকেই এমনটা বলছেন সবাই। এবারও একজন অস্ট্রেলিয়ান আছেন তালিকায় দুই নম্বরে। পেসার মিচেল স্টার্কের দখলে রয়েছে ১৮ উইকেট। গ্রুপ পর্বে দু’দলের লড়াইয়ে দু’জনই জ্বলে উঠেছিলেন। কোনভাবে যদি ফাইনালটাও এ দুটি দেশের মধ্যে হয় সেক্ষেত্রে আবারও এ দুই পেসারের মধ্যে লড়াই হবে। লড়াইটা এগিয়ে যাওয়ার। যদি কোন একটি দল সেমিতেই বাদ পড়ে যায় সেক্ষেত্রে ভারতীয় পেসার মোহাম্মদ শামি থাকবেন সেরা উইকেটশিকারি হওয়ার দৌড়ে এগিয়ে। তার শিকারে আছে ১৭ উইকেট। তবে কিউইরা হারুক বা জিতুক সেমিতেই এ্যালোটের শিকার করা ২০ উইকেট দখলের রেকর্ড উড়িয়ে দেবেন বোল্ট। এক সাক্ষাতকারে সম্প্রতি এমনটাই দাবি করেছেন নিউজিল্যান্ডের সাবেক পেসার ডিওন ন্যাশ। আর এবার নিউজিল্যান্ডের বিদায় নেয়াটা হবে বেশ আশ্চর্যের। কারণ বর্তমান দলটিকে অন্যতম সেরা হিসেবে গণ্য করা হচ্ছে নিউজিল্যান্ডের যারা শুরু থেকেই ফেবারিট তকমা নিয়ে এই প্রথম কোন বিশ্বকাপ খেলছে। তাই সেমিতে কিউইদের অভিযান শেষ হয়ে যাবে এমনটা ভাবতেই পারছেন না কেউ। আর কিউইদের সাফল্য এনে দেয়ার জন্য চাবিকাঠি হিসেবে আছেন বোল্ট। এবারের অন্যতম হট ফেবারিট সহআয়োজক অস্ট্রেলিয়াকে গ্রুপ পর্বের ম্যাচে ভুগিয়ে ছিলেন তিনিই। নিয়েছিলেন ২৭ রানে ৫ উইকেট। সেটা আবার বোল্টের ক্যারিয়ার সেরা বোলিং নৈপুণ্য ছিল।

প্রকাশিত : ২৩ মার্চ ২০১৫

২৩/০৩/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



ব্রেকিং নিউজ: