মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১০ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

যুক্তরাষ্ট্রকে ভাবাচ্ছে চীনের অস্ত্র রফতানি

প্রকাশিত : ২২ মার্চ ২০১৫

যুক্তরাষ্ট্র অস্ত্র রফতানিতে আবারও শীর্ষস্থান দখল করল। এ নিয়ে পঞ্চমবার দেশটি অস্ত্র রফতানিতে শীর্ষে অবস্থান করছে। দ্বিতীয় স্থানে রাশিয়া এবং তৃতীয় স্থান দখল করেছে চীন। স্টকহোম ইন্টারন্যাশনাল পিস রিসার্চ ইনস্টিটিউট (এসআইপিআরআই) প্রকাশিত একটি গবেষণা প্রতিবেদনে অস্ত্র রফতানি দেশগুলোর তালিকা করা হয়েছে। রির্পোটটিতে সবচেয়ে বেশি আলোচনা করা হয়েছে চীনকে নিয়ে। জার্মানিকে টপকে চীন এ অবস্থান অর্জন করে। বিশ্বের মোট অস্ত্র রফতানির ৫ শতাংশ চীন দখল করে ফেলেছে। আগের তুলনায় চীনের অস্ত্রের মান বৃদ্ধি পাওয়ায় এবং স্বল্প মূল্যের কারণে অনেক দেশই এখন চীন থেকে অস্ত্র কিনছে। এতে তাদের রফতানি ক্রমাগত বৃদ্ধি পাচ্ছে। গত দশকের শুরুতে দেশটি অস্ত্র আমদানিতে শীর্ষে ছিল। এখন তা কমে গেছে ৪২% শতাংশ । একদিকে চীন তাদের সামরিক বাজেট বাড়িয়ে চলছে, আবার অন্যদিকে অস্ত্র রফতানিতেও শীর্ষ কাতারে চলে আসছে। আর এ দুটি বিষয়ই বেশ ভাবিয়ে তুলছে যুক্তরাষ্ট্রকে।

জার্মানরা চায় না গ্রীসকে

গ্রিসকে আর ইউরো অঞ্চলে দেখতে চাচ্ছে না জার্মানির বেশিরভাগ নাগরিক। ৫২% জার্মান নাগরিকই চায় গ্রীস যেন ইউরো মুদ্রার ব্লক থেকে বের হয়ে যায়। দিন দিন জার্মানিতে গ্রীসবিরোধী মনোভাব বেড়েই চলছে। গতমাসেও গ্রীসবিরোধী সংখ্যা ছিল ৪১%। এ পরিসংখ্যান জার্মানির টেলিভিশন চ্যানেল জেডডিএফ পরিচালিত এক জরিপ থেকে পাওয়া যায়। জার্মানি ইউরো অঞ্চলের সবচেয়ে শক্তিশালী দেশ হওয়ায় এ দেশের জনগণের মতামত ইউরো অঞ্চল বিষয়ক সিদ্ধান্তের ক্ষেত্রে খুবই গুরুত্বপূর্ণ। জার্মানির বেশির ভাগ জনগণের গ্রীসবিরোধী মনোভাব দেশটির ইউরো মুদ্রা ব্লকে থাকা না থাকা নিয়ে যে সংশয় রয়ে গেছে, তাকে আরও ত্বরান্বিত করছে।

গ্রীসের ওপর জার্মানিদের বিরূপ মনোভাবের কারণ, বেলআউটের শর্তপূরণে গ্রীস সরকার এ অঞ্চলের দেশগুলোর মতামতকে যথার্থ গুরুত্ব দিচ্ছে না। গ্রীস এ পর্যন্ত ২৪০ বিলিয়ন ইউরো এ অঞ্চল থেকে ধার নিয়েছে। আর এতে সবচেয়ে বেশি অর্থ দিয়েছে জার্মানি। দেশটি গ্রীসকে বাজেট কাটছাঁট ও বেশ কিছু খাতের সংস্কারের প্রস্তাব দিয়েছে। কিন্তু আলেক্সি সিপরাসের নেতৃত্বে ক্ষমতাসীন সিরিজা পার্টি সরকার তাতে গড়িমসি করে। এতে ক্ষিপ্ত জার্মানির জনগণ তাই গ্রীসকে এ ব্লকেই রাখতে চাচ্ছে না।

ইউরো অঞ্চলের প্রবৃদ্ধি বাড়বে

চলতি বছর বেশ ভালই যাবে ইউরোপের অর্থনীতিÑ এমনটাই পূর্বাভাস দিয়েছেন অর্গানাইজেশন ফর ইকোনমিক কো-অপারেশন এ্যান্ড ডেভেলপমেন্টের (ওইসিডি) অর্থনীতিবিদরা। ইউরো অঞ্চলের প্রবৃদ্ধি নিয়ে তারা এর আগে যে পূর্বাভাস দিয়েছিলেন এখন তার থেকে আরও বেশি প্রবৃদ্ধি বৃদ্ধি পাবে বলে তারা মনে করছেন। সংস্থাটি তেলের মূল্য হ্রাস এবং ইউরোপীয় সেন্ট্রাল ব্যাংকের (ইসিবি) কোয়ান্টিটেটিভ ইজিং কর্মসূচীর কারণে এই অঞ্চলে প্রবৃদ্ধি বৃদ্ধি পাবে বলে তারা মনে করছেন। তবে সেই সঙ্গে তারা সংশয় প্রকাশ করেছেন মূল্যস্ফীতি ইস্যু নিয়ে। আগেও অর্থনৈতিক সমস্যার প্রধান কারণ ছিল মূল্যস্ফীতি। এখনও সে সমস্যা সৃষ্টি হতে পারে। তাহলে ভেস্তে যাবে তাদের পূর্বাভাস। এ কারণে তারা এ বিষয়ে সতর্ক থাকার আহ্বান জানিয়েছেন এবং ভারসাম্যপূর্ণ নীতিমালা প্রণয়নের ওপর গুরুত্বারোপ করেছেন।

ইব্রাহিম নোমান

প্রকাশিত : ২২ মার্চ ২০১৫

২২/০৩/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: