রৌদ্রজ্জ্বল, তাপমাত্রা ২৩.৯ °C
 
৯ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে ভারতকে এগিয়ে রাখছেন মিসবাহ

প্রকাশিত : ২২ মার্চ ২০১৫

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ অস্ট্রেলিয়ার কাছে হেরে এবারের অগ্রযাত্রা কোয়ার্টার ফাইনালেই থেমে গেছে পাকিস্তানের। ১৯৯২ বিশ্বকাপ অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ডের মাঠ থেকেই জিতে ঘরে ফিরেছিল পাকিরা। সেটার পুনরাবৃত্তির স্বপ্ন থাকলেও তা পূরণ হয়নি। টানা চার ম্যাচ জিতে শেষ মুহূর্তে শেষ আটে উঠে আসলেও হটফেবারিট অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে আর পেরে ওঠেনি তারা। চারবারের চ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়া সেমিফাইনালে উঠে এসেছে। এবার তাদের প্রতিপক্ষ গত আসরের চ্যাম্পিয়ন ভারত। চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ভারতের কাছেও এবার গ্রুপ পর্বেই নিজেদের প্রথম ম্যাচে হার দিয়ে শুরু করেছিল ভারতীয় দল। টানা ৭ ম্যাচ জিতে শিরোপা ধরে রাখতে আশাবাদী তারা। আর সেমিতে ভারতের সম্ভাবনাই বেশি দেখছেন পাক অধিনায়ক মিসবাহ-উল-হক। সিডনির উইকেট কিছুটা স্পিনবান্ধব হওয়ার কারণে অসিদের চেয়ে তিনি চিরশত্রু দলকেই এগিয়ে রাখছেন।

পুরো আসরে এখন পর্যন্ত এক ম্যাচই সিডনিতে খেলেছে অসিরা। গ্রুপ পর্বে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে এ ভেন্যুতে মুখোমুখি হয়েছিল তারা। তবে সেই ম্যাচে লঙ্কান স্পিনারদের আচ্ছামতো পিটিয়েছে অসি ব্যাটসম্যানরা। তবে মূল স্পিন স্তম্ভ রঙ্গনা হেরাথ সে ম্যাচে খেলেননি। এবার সেমিফাইনালে আরেকটি স্পিনসমৃদ্ধ ভারত তাদের প্রতিপক্ষ। রবিচন্দ্রন অশ্বিন ও রবীন্দ্র জাদেজার মতো দু’জন বিশ্বমানের স্পিনার আছেন ভারতীয় দলে। তাই সিডনির স্পিনবান্ধব উইকেটে মহেন্দ্র সিং ধোনির দলই সুবিধা পাবে এবং অসিরা কিছুটা চাপেই পড়বে। এছাড়া অস্ট্রেলিয়া দলে কোন ভাল মানের স্পিনার নেই। সে কারণে সেমির এ ম্যাচটায় ভারতকেই ফেবারিট মনে করছেন পাক দলপতি মিসবাহ। তিনি বলেন, ‘সিডনিতে খেলতে নেমে তারা অবশ্যই একজন ভাল স্পিনারের অভাব বোধ করবে। আর সেটাই পার্থক্য তৈরি করতে পারে। কারণ সিডনিতে স্পিনারদের অতীতে অনেক ভাল সাফল্য আছে। এখানে ইমরান তাহির ভাল বোলিং করেছেন। আর এটাই অস্ট্রেলিয়ার জন্য অনেক বড় সমস্যার কারণ হতে পারে। তবে ম্যাচটা অনেক প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ হবে, কারণ উভয় দলই খুব ভাল ক্রিকেট খেলছে।’

কোয়ার্টার ফাইনালে প্রোটিয়া স্পিনাররাই ধসিয়ে দিয়েছেন শ্রীলঙ্কার ব্যাটিং লাইনআপ। লেগস্পিনার তাহির মাত্র ২৬ রানে চারটি এবং হ্যাটট্রিক করেন পার্টটাইম স্পিনার জেপি ডুমিনি। এ কারণে মাত্র ১৩৩ রানেই গুটিয়ে যায় লঙ্কান ইনিংস। যদিও আগের ম্যাচে এখানে ব্যাটসম্যানরাই নিয়ন্ত্রণ করেছেন। লঙ্কানদের বিরুদ্ধে গ্রুপ পর্বে অস্ট্রেলিয়া ৩৭৬ রান তুলে ফেলেছিল। আর দক্ষিণ আফ্রিকা ৫ উইকেট হারিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে তুলে ফেলেছিল ৪০৮ রান।

এ কারণে অসি অধিনায়ক মাইকেল ক্লার্ক দ্বিমত পোষণ করলেন মিসবাহর সঙ্গে। তিনি বলেন, ‘আমি মনে করি না শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে আমাদের আগে খেলা ম্যাচটায় বলে কোন ঘূর্ণি ছিল। এটা নির্ভর করছে কি ধরনের উইকেট তৈরি করা হবে আগামী ম্যাচের জন্য। যদি এটা ওপর কিছু ঘাস থাকে সেটা নিশ্চিতভাবেই ফাস্ট বোলারদের জন্য সহায়ক হবে। যদি স্পিন হয়ই সেক্ষেত্রে আমাদের স্কোয়াডেও সে রকম খেলোয়াড় আছেন। ম্যাচের আগে নির্বাচকরা সেভাবেই ভাববেন। সেরা একাদশ সিডনির উইকেট বিশ্লেষণ করেই গড়বেন তারা।’ ক্লার্ক দাবি করেন স্পিনবান্ধব উইকেটের জন্য অস্ট্রেলিয়ার সুযোগ আছে বাঁহাতি জ্যাভিয়ের ডোহার্টিকে নেয়ার। তার সঙ্গে গ্লেন ম্যাক্সওয়েল, স্টিভেন স্মিথরাও আছেন যারা ভাল স্পিন করতে পারেন।

প্রকাশিত : ২২ মার্চ ২০১৫

২২/০৩/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



ব্রেকিং নিউজ: