মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১০ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

ঢাকায় অপহৃত ব্যবসায়ীকে ১০ দিন পর নেত্রকোনা থেকে উদ্ধার

প্রকাশিত : ২২ মার্চ ২০১৫

জনকণ্ঠ ডেস্ক ॥ রাজধানীর পল্লবী থেকে অপহৃত এক ব্যবসায়ীকে অপহরণের ১০ দিন পর নেত্রকোনার কলমাকান্দা থেকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের চান্দনা-চৌরাস্তা এলাকা থেকে এক আইনজীবীকে অপহরণের কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই উদ্ধার করে র‌্যাব-১ সদস্যরা। এ ঘটনায় জড়িত অভিযোগে এক অপহরণকারীকে গ্রেফতার করা হয়। শুক্রবার রাতে অপহৃত এ দু’জনকে উদ্ধার করা হয়। এদিকে বরগুনার তালতলিতে অপহৃত পাঁচ বছরের শিশু মহিউদ্দিনকে শনিবার সকালে উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় আবুল চৌকিদার (৪০) ও ইসমাইল হোসেন (৩৫) নামে দু’জনকে আটক করা হয়। খবর নিজস্ব সংবাদদাতাদের।

নেত্রকোনার কলমাকান্দা উপজেলার গারোপাহাড় সংলগ্ন পশ্চিম লেঙ্গুরা গ্রাম থেকে ঢাকার ওই ব্যবসায়ীকে উদ্ধার করা হয়। তাঁর নাম হাজী মজিবর রহমান মজনু (৫০)। তার বাসা পল্লবীর ৮নং সড়কের ২নং ব্লকে। পুলিশী অভিযানে অপহরণ চক্রের হোতা মাসুদ রানাকেও (৩২) গ্রেফতার করা হয়। মাসুদের বাড়ি লেঙ্গুরা ইউনিয়নের ঘোড়াগঁাঁও গ্রামে। তার পিতার নাম মহরম আলী।

মাসুদ রানা গত ১১ মার্চ ব্যবসায়ী মজিবর রহমান মজনুকে কৌশলে কলমাকান্দার লেঙ্গুরায় নিয়ে আসে। এরপর তাকে গারো পাহাড় সংলগ্ন সীমান্ত এলাকার বিভিন্ন স্থানে আটকে রেখে তাঁর পরিবারের কাছে পাঁচ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে। এরই মধ্যে ব্যবসায়ীর পরিবারের পক্ষ থেকে ‘বিকাশ’-এর মাধ্যমে মুক্তিপণের কিছু টাকা পরিশোধও করা হয়। এক পর্যায়ে ব্যবসায়ীর স্বজনরা বিষয়টি পল্লবী থানায় জানালে পুলিশ তা নেত্রকোনার ডিবি ও কলমাকান্দা পুলিশকে জানায়। এরপর কলমাকান্দা থানা ও ডিবি পুলিশ মোবাইল ট্র্যাকিং করে শুক্রবার বিকেলে লেঙ্গুরা বাজার থেকে মাসুদ রানাকে গ্রেফতার করে। পরে তার স্বীকারোক্তি অনুযায়ী পশ্চিম লেঙ্গুরা এলাকা থেকে অপহৃত মজিবর রহমান মজনুকে উদ্ধার করা হয়। এ সময় তিনি আহত অবস্থায় ছিলেন। এ বিষয়ে পল্লবী থানায় অপহরণ মামলা দায়ের করা হয়েছে। অপহৃত ব্যবসায়ী ও গ্রেফতার মাসুদ রানাকে শনিবার পল্লবী থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

গাজীপুর ॥ জমিজমা এবং মাছ চাষের ঘের নিয়ে স্থানীয় ইটাহাটা এলাকার বাসিন্দা ও গাজীপুর আদালতের আইনজীবী রুস্তম আলীর সঙ্গে তার আত্মীয়দের বিরোধ চলছিল। এর জেরে শুক্রবার সন্ধ্যায় প্রতিপক্ষের লোকজন চান্দনা-চৌরাস্তা এলাকার ঈদগাহ মার্কেটের চেম্বার থেকে তাকে তুলে নিয়ে দীঘিরচালা এলাকায় স্থানীয় এক ডিশ ব্যবসায়ীর অফিসে আটকে রাখে এবং মারধর করে। খবর পেয়ে রাতেই র‌্যাব-১ এর সদস্যরা অপহৃত আইনজীবীকে আহত অবস্থায় সেখান থেকে উদ্ধার করে। এ ঘটনায় জড়িত অভিযোগে একজনকে আটক করা হয়। তার নাম নাছির উদ্দিন (২৮)।

আমতলী (বরগুনা) ॥ শুক্রবার দুপুর একটার দিকে বাঁশবাড়ীয়া গ্রামের পায়রা নদীর পাড়ে দু’তিন শিশু খেলছিল। এ সময় শিশু মহিউদ্দিনকে তিন অপহরণকারী ট্রলারে তুলে নিয়ে যায়। ট্রলারটি বাঁশবাড়ীয়া থেকে নদী পাড়ি দিয়ে চালিতাতলির দিকে নিয়ে যায় বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান। পরে শনিবার বেলা ১১টার দিকে আমতলীর আড়পাঙ্গাশিয়া ইউনিয়ন পরিষদ চত্বর সংলগ্ন ঘোপখালী গ্রামের একটি মাঠে স্থানীয় খাদিজা নামে এক মহিলা শিশুটিকে কাঁদতে দেখে। শিশুটিকে দেখে সে গ্রামবাসীকে খবর দেয়। গ্রামের লোকজন শিশুটিকে উদ্ধার করে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদের কাছে নিয়ে যায়। তিনি তালতলী থানায় খবর দিলে পুলিশ এসে শিশুটিকে থানায় নিয়ে যায়। এ ঘটনায় তালতলী থানায় আবুল, ইসমাইল ও রিয়াজ চৌকিদারের (২৭) নাম উল্লেখ করে ছয় জনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।

তালতলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বাবুল আখতার জানান, ছেলের বাবা নূর মোহাম্মদ মিয়া ছয়জনকে আসামি করে মামলা করেছে। ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে আবুল চৌকিদার (৪০) ও ইসমাইল হোসেনকে (৩৫) আটক করা হয়েছে।

প্রকাশিত : ২২ মার্চ ২০১৫

২২/০৩/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

প্রথম পাতা



ব্রেকিং নিউজ: