কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৪ ডিসেম্বর ২০১৬, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

গারো পাহাড়ে চা চাষের সম্ভাবনা

প্রকাশিত : ২১ মার্চ ২০১৫
  • সমতলেও উৎপাদন বাড়ছে

কৃষি সম্ভাবনার দেশ বাংলাদেশ। এ দেশের মাটিতে অসম্ভব অনেক ফসল ফলানো সম্ভব হয়েছে। এর মধ্যে পাহাড়ী টিলায় চা চাষ বা চা বাগান গড়ে ওঠা উল্লেখযোগ্য। তবে এখন কোন কোন এলাকায় সমতল ভূমিতেও চা চাষ হচ্ছে। বিশেষ করে পঞ্চগড়ের চায়ের সুনাম এখন দেশের সীমানা ছাড়িয়ে বিদেশেও ছড়িয়ে পড়েছে। অনুরূপভাবে চা চাষের উজ্জ্বল সম্ভাবনার দ্বার খুলতে যাচ্ছে শেরপুরের সমতল ভূমিতে।

শেরপুরের গারো পাহাড়ের মাটি চা চাষের জন্য উৎকৃষ্ট হলেও সরকারী পৃষ্ঠপোষকতার অভাবে পাহাড়ে চা চাষে কেউ আগ্রহী হয়ে ওঠেনি। তবে জেলার নকলা উপজেলায় সমতল ভূমিতে চা চাষের উজ্জ্বল সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। এখানে কেবলমাত্র শখের বশে সামান্য কিছু চা গাছের চারা রোপণ করে কয়েক দিনের মধ্যেই ওই চারা গাছের ঝলমলে চেহারা দেখে বাণিজ্যিকভাবে চা চাষের প্রকল্প হাতে নিয়েছেন স্থানীয় রামেরকান্দি গ্রামের রুকন উদ্দিন সাগর নামে এক যুবক। ওই যুবক দুই একর জমিতে সাড়ে ৭ হাজার চা গাছের চারা রোপণ করেন। বর্তমানে তার বাগানের চা গাছগুলো বেশ পুষ্ট হওয়ায় আশায় বুক বেঁধেছেন তিনি। ২০১২ সালের মাঝামাঝি সময়ের কথা।

এলাকার যুবক সাগর তার বাড়ির আঙিনা এবং কাঠ বাগানের ফাঁকে ফাঁকে ওই চা চাষ শুরু করেন। শুরুতে তিনি অনেকটা শখের বশে লালমনিরহাট থেকে কয়েকটি চা গাছের চারা কিনে এনে বাড়ির আঙিনায় রোপণ করেন। চারাগুলো কয়েক মাসের মধ্যেই বেশ মোটাতাজা হওয়ায় তার নেশা চেপে বসে বাণিজ্যিকভাবে চা বাগান করার। কথামতো কাজ। ছুটে গেলেন পঞ্চগড়ে। সেখান থেকে সাড়ে ৭ হাজার চা গাছের চারা নিয়ে চা চাষের প্রাথমিক ধারণাও নিয়ে আসেন। শুরু করেন বাগানের কাজ। দেখতে দেখতে ২ বছর পেরিয়ে যাওয়ার পর তার বাগানের বেশ কিছু চা পাতা দিয়ে পরীক্ষামূলক চা তৈরি করেন এবং তা নিজে পান করেন। তার কাছে আশানুরূপ মনে হওয়ায় জোর দেন ওই চা বাগানের তদারকিতে। ২ জন শ্রমিক রেখে নিয়মিত পরিচর্যা চালিয়ে যাচ্ছেন তিনি। রুকন উদ্দিন সাগর জানান, ৫ বছরের পরিপূর্ণ একটি চা গাছ থেকে চা সংগ্রহ করা যায়। আগামী ৩ বছর পর তার চা বাগান থেকে বাণিজ্যিকভাবে চা উৎপাদনের আশা করছেন। বর্তমানে তার বাগানে সামান্য কিছু সার ও কীটনাশকের পাশাপাশি পানি দিতে হচ্ছে। এ পর্যন্ত তার বাগানে আড়াই লাখ টাকা খরচ হয়েছে।

-রফিকুল ইসলাম আধার, শেরপুর থেকে

প্রকাশিত : ২১ মার্চ ২০১৫

২১/০৩/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: