মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১০ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

জেনোসাইড ইন বাংলাদেশ ১৯৭১

প্রকাশিত : ২০ মার্চ ২০১৫

একেএম নাসিমুল কামালের অনুসন্ধিৎসু ও গবেষণালব্ধ আরেকটি গ্রন্থ ‘জেনোসাইড ইন বাংলাদেশ ১৯৭১’। সমকালীন বিশ্বে দেশে দেশে গণতন্ত্র রক্ষার নামে, ধর্ম রক্ষার নামে জতিগত দাঙ্গা, স্বাধীনতাকামীদের দমন পীড়নে শাসকগোষ্ঠী বা বিপক্ষরা যে গণহত্যা বা ধ্বংসযজ্ঞ চালানোর নেতিবাচক দৃষ্টান্ত স্থাপিত করেছে সেসব ছাড়িয়ে গেছে বাঙালীর মহান মুক্তিযুদ্ধে। আর এই নৃশংস ঘটনা ঘটিয়েছে ’৭১ সালে, পাকিস্তানী শাসক ও সৈন্যরা। ইতিহাসের সবচেয়ে বর্বরোচিত ও নারকীয় এ হত্যা, ধর্ষণ ও ধ্বংসের খবর সে সময়ে বহির্বিশ্বে মোটামুটি আলোড়ন তুলেছিল। ‘মোটামুটি’ এ জন্য, তখনকার বিশ্বসমাজ সোভিয়েত ও মার্কিন দুই বলয়ে ছিল বিভক্ত। দুই পরাশক্তিরই দাসত্ব করেছে তখনকার বহুল প্রচারিত ইংরেজী দৈনিক, সাপ্তাহিক ও ম্যাগাজিনগুলো। অনেক ক্ষেত্রে নিজ বলয়ের স্বার্থে নানা বিষয় কিছু পত্রিকা চেপে গিয়েছে। এখনকার মতো তখন সাংবাদমাধ্যমের জন্য যথেষ্ট প্রযুক্তিগত সুবিধা ছিল না যে, মুহূর্তে বিশ্বব্যাপী কোন ঘটনা প্রচার পাবে। কিছু কিছু পত্রিকা বিবেকতাড়িত হয়েই বাংলাদেশের গণহত্যা, ধর্ষণ, অত্যচার, লুটপাট, ধ্বংসযজ্ঞের খবর, এ নিয়ে সম্পাদকীয়, মন্তব্য, সাক্ষাতকার প্রচার করেছে। যারা বর্তমান সময়ে পাকিস্তানীদের এ নারকীয় কর্মকা-কে ভিন্ন পথে প্রবাহের চেষ্টা করছেন তাদের মুখে চপেটঘাত হিসেবে সে সময়ের বিশ্বের পত্রিকাগুলোর বিভিন্ন রকমমের খবর, মন্তব্য সম্পাদকীয়ের এক সমাহার এই গ্রন্থ। তথ্য-প্রমাণের ভিত্তিতে রচিত ও এ গ্রন্থটি আগামী প্রজন্মের জন্য অবশ্যপাঠ্য। মুক্তিযুদ্ধ বা গণহত্যা নিয়ে গবেষণা করেছেন তাদের কাছে গ্রন্থটি অপরিহার্য। বইটির চমৎকার প্রচ্ছদ এঁকেছেন ধ্রুব এষ, প্রকাশ করেছে বাংলা প্রকাশ, মূল্য রাখা হয়েছে ৭৫০ টাকা। সম্পাদকের সঙ্গে সহযোগী ৬জন সম্পাদকও প্রশংসার দাবিদার।

প্রকাশিত : ২০ মার্চ ২০১৫

২০/০৩/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: