মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
৯ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

ঢাকায় আনিসুল হক ও সাঈদ খোকন, চট্টগ্রামে আ জ ম নাছির

প্রকাশিত : ২০ মার্চ ২০১৫
  • গণভবনে বৈঠকে আওয়ামী লীগ মেয়র প্রার্থীর প্রাথমিক সিদ্ধান্ত

বিশেষ প্রতিনিধি ॥ ঢাকা ও চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন আসন্ন নির্বাচনে দলীয় কৌশল চূড়ান্ত করছে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ। ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র পদে এফবিসিসিআইয়ের সাবেক সভাপতি আনিসুল হক ও দক্ষিণে সাঈদ খোকনের মনোনয়ন বহাল রাখা হয়েছে। তবে সাঈদ খোকন ঋণখেলাপি বা অন্য কোন কারণে মনোনয়ন বাতিল হওয়ার সম্ভাবনা থাকলে সেক্ষেত্রে অন্য প্রার্থীকে মনোনয়ন দেয়া হবে। সেক্ষেত্রে এগিয়ে রয়েছেন স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য হাজী মোহাম্মদ সেলিম। আর চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে নগরের সাধারণ সম্পাদক আ জ ম নাছির উদ্দিনকে দলীয় মনোনয়ন দেয়ার ব্যাপারে প্রাথমিক সিদ্ধান্ত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার রাতে প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা গণভবনে দলের কয়েকজন সিনিয়র নেতাদের সঙ্গে একান্ত বৈঠকে এসব সিদ্ধান্ত হয় বলে একাধিক সূত্রে জানা গেছে। সূত্র জানায়, আ জ ম নাছিরের ব্যাপারে একমত হলেও চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে আজ শুক্রবার চট্টগ্রাম মহানগর ও জেলা আওয়ামী লীগের নেতাদের ঢাকায় তলব করা হয়েছে। রাতে গণভবনে চট্টগ্রামের নেতাদের সঙ্গে আলোচনা করেই মেয়র প্রার্থিতা চূড়ান্ত করা হবে। আর জাপান সফর শেষে ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বীরবিক্রম দেশে ফিরে আসার পর নগর নেতাদের সঙ্গে আলোচনা করে সাঈদ খোকনের বিষয়ে পরবর্তী করণীয় কি হবে, তা চূড়ান্ত করা হবে। বৈঠক সূত্র জানায়, বৈঠকে দলের একাধিক প্রার্থিতার ব্যাপারে হাইকমান্ডের কঠোর অবস্থান গ্রহণের কথা জানান খোদ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। মেয়র নির্বাচনে না হলেও মনোনয়ন প্রত্যাশীদের দলে মূল্যায়ন করার কথাও জানানো হয়। বৈঠকে জানানো হয়, ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটিতে দল সমর্থিত প্রার্থী পক্ষে কাজ করতে ১৫টি সংসদীয় আসনে পৃথক স্বেচ্ছাসেবক কমিটি ও এ দুই কমিটিকে দেখভাল করতে ২টি নির্বাচন পরিচালনা কমিটি গঠন করা হবে।

সূত্র জানায়, রুদ্ধদ্বার বৈঠকে প্রথমে চট্টগ্রাম সিটি নির্বাচনে আওয়ামী লীগের একক প্রার্থী করা নিয়ে আলোচনার সূত্রপাত করেন সভাপতিম-লীর সদস্য এবং গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন। তিনি বলেন, এ সিটিতে রাজনৈতিক বিবেচনায় করেই দলীয় প্রার্থী ঠিক করা উচিত। যার পক্ষে দলের সব পর্যায়ের নেতাকর্মীরা মাঠে নামবেন তাকেই সমর্থন দেয়া উচিত। কারণ দলীয় প্রার্থীকে জয়লাভ করাতে হলে সঠিক প্রার্থীকেই মনোনয়ন দিতে হবে। না হলে বিগত নির্বাচনের মতো এবারও পরাজয় হবে। জবাবে প্রধানমন্ত্রী আ জ ম নাছির উদ্দিনের মেয়র প্রার্থিতার ব্যাপারে ইতিবাচক সাড়া দিয়ে বলেন, কালকে (আজ) বিকেলে চট্টগ্রামের সব পর্যায়ের নেতাদের ডেকে কথা বলা হবে।

বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু, বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ, সাবেক মন্ত্রী সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত, কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী, স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম, গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন, শেখ ফজলুল করিম সেলিম, এ্যাডভোকেট সাহারা খাতুন, সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ডাঃ দীপু মনি, জাহাঙ্গীর কবির নানক, প্রচার সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ, ঢাকার এমপি একেএম রহমত উল্লাহ প্রমুখ।

সূত্র জানায়, বৈঠকে ঢাকা সিটি নির্বাচন প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, আমরা নানা প্রতিকূল অবস্থার মধ্য দিয়ে সময় পার করছি। এখন নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে। নিজেদের কারণে অন্যের হাতে ক্ষমতা চলে যাবে এমন অবস্থা মেনে নেয়া হবে না। দল যাকে সমর্থন দেবে তাকে জয়ী করতে নিজ নিজ অবস্থান থেকে কাজ করতে হবে। ঢাকার ১৫টি নির্বাচনী এলাকায় ১৫টি নির্বাচন পরিচালনা কমিটি গঠন করতে হবে। দুজন কেন্দ্রীয় নেতা ও স্ব স্ব আসনের দলীয় এমপিরা নেতৃত্ব দেবেন। যেখানে দলীয় এমপি নেই সেখানে থানার সভাপতি বা সাধারণ সম্পাদক দায়িত্ব পালন করবেন। এসব কমিটিকে সঠিকভাবে পরিচালনা করতে পৃথক দুটি নির্বাচন পরিচালনা কমিটি গঠন করা হবে।

প্রকাশিত : ২০ মার্চ ২০১৫

২০/০৩/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

প্রথম পাতা



ব্রেকিং নিউজ: