কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৩ ডিসেম্বর ২০১৬, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

বাসে বস্তাবন্দী শিশুর লাশের পরিচয় মিলেছে

প্রকাশিত : ১৮ মার্চ ২০১৫

স্টাফ রিপোর্টার ॥ রাজধানীর বনানীতে যাত্রীবাহী বাসের সিটের নিচ থেকে উদ্ধার বস্তাবন্দি শিশুর লাশের পরিচয় মিলেছে। নিহত শিশুর নাম শহিদুল ইসলাম ইমন (৬)। সে গাজীপুরের মোঘল খাল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিশু শ্রেণীর ছাত্র। তার বাবা আফতাব উদ্দিন ফেরি করে কাঁচামাল বিক্রি করেন। মা রিনা বেগম গার্মেন্টস শ্রমিক। তাঁরা মোঘল খালের মোল্লাপাড়া এলাকার আনোয়ার মোল্লার বাড়িতে ভাড়া থাকতেন। এদিকে এ ঘটনায় পুলিশ বাড়ির মালিক আনোয়ার মোল্লার ছেলে শাকিলকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে।

উল্লেখ্য, সোমবার বিকেলে বনানীর কাকলী বাসস্ট্যান্ডে ‘দেশবাংলা’ যাত্রীবাহী বাসের সিটের নিচ থেকে বস্তাবন্দী লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। দুই নারী ওই বস্তা নিয়ে বাসটিতে উঠেছিল। হঠাৎ ওই দুই নারীকে দেখতে না পেয়ে সিটের নিচে ওই বস্তা দেখে যাত্রীরা বোমা বোমা বলে চিৎকার শুরু করেন। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে সিটের নিচ থেকে ওই বস্তা উদ্ধার করে। প্রথমে অজ্ঞাত হিসেবে শিশুটির লাশ ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়। মঙ্গলবার বিকেলে শিশুটির বাবা আফতাব উদ্দিন ও চাচা রফিকুল ইসলাম ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ মর্গে এসে শিশু ইমনের লাশ শনাক্ত করেন।

নিহতের চাচা রফিকুল জানান, ইমনের বাবার বাড়ি ময়মনসিংহের গফরগাঁও থানার নিগুআঁড়ি গ্রামে। দুই বোন ও এক ভাইয়ের মধ্যে ইমন সবার ছোট। রবিবার বিকেল পাঁচটায় বাসার সামনে মাঠে খেলতে গিয়ে ইমন নিখোঁজ হয়। তিনি জানান, ওই ঘটনায় সংশ্লিষ্ট থানায় জিডি করতে গেলে পুলিশ জিডি নেয়নি। পরে মঙ্গলবার বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে অজ্ঞাত শিশুর লাশ উদ্ধারের খবর পেয়ে তাঁরা বনানী থানায় আসেন। সেখানে ইমনের পরনের কাপড় ও জুতা দেখে ঢাকা মেডিক্যাল মর্গে ছুটে আসেন।

বনানী থানার ওসি ভূঁইয়া মাহবুব হাসান জানান, শাকিলের মোবাইলে ফোন আসার বিষয়টি রহস্যজনক। এ ঘটনার সঙ্গে সম্পৃক্ততার অভিযোগে বাড়িওয়ালার ছেলে শাকিলেকে আটক করা হয়। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। এদিকে ময়নাতদন্ত শেষে শিশু ইমনের লাশ বিকেলে ময়মনসিংহে নিয়ে যাওয়া হয়।

প্রকাশিত : ১৮ মার্চ ২০১৫

১৮/০৩/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

শেষের পাতা



ব্রেকিং নিউজ: