কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৪ ডিসেম্বর ২০১৬, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

দশ মাসে দুর্ঘটনায় নিহত ২৩ শতাধিক আহত

প্রকাশিত : ১৮ মার্চ ২০১৫
  • বাগেরহাট-মংলা-খুলনা সড়ক

স্টাফ রিপোর্টার, বাগেরহাট ॥ বাগেরহাট-মংলা-খুলনা মহাসড়কে সড়ক দুর্ঘটনা ক্রমশ বাড়ছে। গত ১০ মাসে এই মহাসড়কে কমপক্ষে ২১টি দুর্ঘটনায় অন্তত ২৩ জন নিহত এবং শতাধিক ব্যক্তি আহত হয়েছেন। মহাসড়কের একমাত্র কাটাখালী ছাড়া গুরুত্বপূর্ণ কোন স্ট্যান্ড বা মোড়ে ট্রাফিক পুলিশ না থাকায় দুর্ঘটনা বাড়ছে। তাছাড়া কাটাখালী ট্রাফিক আইল্যান্ডটিও ভগ্ন দশায় বছরের পর বছর পড়ে আছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, একের পর এক সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণহানির ঘটনা বৃদ্ধি পেলেও সড়ক দুর্ঘটনা রোধের জন্য জেলা ট্রাফিক বা হাইওয়ে পুলিশ প্রশাসন তেমন কোন উদ্যোগ নজরে পড়ে না। তাছাড়া অদক্ষ চালক, ত্রুটিপূর্ণ যানবাহন, অসচেতনতার কারণে সড়ক দুর্ঘটনা আশাঙ্কাজনক হারে বৃদ্ধি পাচ্ছে। এ অবস্থায় স্থানীয় জনসাধারণ মহাসড়কের কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ স্থানে ট্রাফিক পুলিশ মোতায়েনের দাবি করেছেন।

এ সড়কে যানবাহনের চলাচল পূর্বের তুলনায় অনেক গুণ বেড়েছে। কিন্তু কাটাখালী বাসস্ট্যান্ড, টাউন নওয়াপাড়া, মোড় বাসস্ট্যান্ড, সিএ্যান্ডবি বাজার বাসস্ট্যান্ড, ফকিরহাট বিশ্বরোড মোড়, চুলকাঠি বাসস্ট্যান্ড, ফয়লা বাজার বাসস্ট্যান্ড ও ভাগা বাসস্ট্যান্ডে কোন ট্রাফিক পুলিশ নেই। গুরুত্বপূর্ণ এ স্ট্যান্ড বা মোড়গুলোতে যদি ট্রাফিক পুলিশ থাকত তবে সড়ক দুর্ঘটনা অনেকাংশে কমে আসত বলে অনেকেরই মত দেন।

একের পর এক সড়ক দুর্ঘটনায় শুধু প্রাণহানিই হচ্ছে না, এক একটি পরিবারও নিঃস্ব হচ্ছে। তারপরও পুলিশ প্রশাসনের টনক নড়ছে না।

কাটাখালী হাইওয়ে থানা পুলিশ জানায়, জনবল সঙ্কটের কারণে ইচ্ছা থাকা সত্ত্বেও সড়ক দুর্ঘটনা রোধে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করা সম্ভব হচ্ছে না।

নিহত পুলিশ সদস্যের পরিবারকে তিন লাখ টাকা প্রদান

স্টাফ রিপোর্টার, সিরাজগঞ্জ ॥ সিরাজগঞ্জে দুর্ঘটনায় নিহত পুলিশ কনস্টেবল মোস্তাফিজুর রহমানের পরিবারকে ৩ লাখ টাকার অনুদান দেয়া হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুরে পুলিশ মহাপরিদর্শক তহবিলের অনুদানের নগদ ৩ লাখ টাকা প্রদান করেন পুলিশ সুপার এসএম এমরান হোসেন। তার নিজ কার্যালয়ে নিহতের স্ত্রী মোছাঃ তাজমুন নাহার ট্রপি ও মা মনোয়ারা বেগমের হাতে এ টাকা প্রদান করা হয়। অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোকতার হোসেন, ডিবি ইন্সপেক্টর নাসির উদ্দিন, রিজার্ভ অফিসার নুরুল ইসলাম এ সময়ে উপস্থিত ছিলেন। উল্লেখ্য, গত ১২ মার্চ ভোরে বঙ্গবন্ধু সেতুর পশ্চিম পাড়ে মহাসড়কের সীমান্তবাজার এলাকায় নাশকতাবিরোধী দায়িত্ব পালন কালে বাসের নিচে চাপা পড়ে বগুড়া জেলার সারিয়াকান্দি উপজেলার গোদাগাড়ি গ্রামের ওই কনস্টেবল নিহত হন।

প্রকাশিত : ১৮ মার্চ ২০১৫

১৮/০৩/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

দেশের খবর



ব্রেকিং নিউজ: