কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৪ ডিসেম্বর ২০১৬, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

সভাপতি পদে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই

প্রকাশিত : ১৭ মার্চ ২০১৫
  • সুপ্রীমর্কোট বার নির্বাচন

স্টাফ রিপোর্টার ॥ সুপ্রীমকোর্ট আইনজীবী সমিতির ২০১৫-১৬ মেয়াদের নির্বাচনের সভাপতি পদে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হচ্ছে। রাত পৌনে দুটোয় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ১ হাজার ৮শ’ ভোট গণনা শেষ হয়েছে। এর মধ্যে সভাপতি পদে বিএনপি-জামায়াত সমর্থক নীল প্যানেলের খন্দকার মাহবুব হোসেন ৯শ’ ১৪ ভোট পেয়ে মাত্র ৭৪ ভোটে এগিয়ে আছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ সমর্থক সাদা প্যানেলের সভাপতি প্রার্থী ইউসুফ হোসেন হুমায়ুন পেয়েছেন ৮শ’ ৪০ ভোট। অন্যদিকে সাধারণ সম্পাদক পদে নীল প্যানেলের প্রার্থী মাহাবুব উদ্দিন খোকন ৯শ’ ৬৯ ভোট পেয়ে ১শ’ ৪৬ ভোটে এগিয়ে আছেন। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী সাদা প্যানেলের প্রার্থী মোমতাজ উদ্দিন আহমেদ মেহেদী পেয়েছেন ৮শ’ ২৩ ভোট। এছাড়া একটি সহ-সভাপতি ও তিনটি সদস্য পদে সরকার সমর্থক সাদা প্যানেল এগিয়ে রয়েছে বলে জানা গেছে।

এর আগে সোমবার বিকেল পাঁচটায় দুই দিনব্যাপী ভোটগ্রহণ সমাপ্ত হয়। পরে রাত দশটা থেকে ভোট গণনা শুরু হয়ে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত রাত দেড়টায় ভোট গণনা চলছিল। গত রবি ও সোমবার দুই দিনই সকাল দশটা থেকে মাঝে এক ঘণ্টা বিরতি দিয়ে বিকেল পাঁচটা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ চলে।

সুপ্রীমকোর্ট আইনজীবী সমিতির নির্বাচন উপ-কমিটির আহ্বায়ক এ্যাডভোকেট হারুনুর রশিদ জানান, এবারের নির্বাচনে ভোটার ছিলেন সমিতির ৪ হাজার ৩শ’ ৫৫ সদস্য। এরমধ্যে ৩ হাজার ৫২৯ ভোটারই ভোট দিয়েছেন। এ নির্বাচনে সরকার সমর্থক সম্মিলিত আইনজীবী সমন্বয় পরিষদ ও ২০ দলীয় জোট সমর্থক জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ঐক্য পরিষদ প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে। ১৪টি পদের বিপরীতে দুই প্যানেলের ২৮ জন প্রার্থী হয়েছেন। এছাড়াও প্যানেলের বাইরে সভাপতি পদে একজন ও সম্পাদক পদে একজন করে প্রার্থী রয়েছেন।

এদিকে, এবারের নির্বাচনে প্রার্থীদের পাশাপাশি ভোটের মাঠে প্রচারে নামেন আওয়ামী লীগ ও বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা ও প্রভাবশালী সাবেক ও বর্তমান মন্ত্রী-এমপিরা। তাঁরা দু’দিনই সকাল থেকে সুপ্রীমকোর্ট প্রাঙ্গণে দলীয় প্রার্থীদের পক্ষে প্রচার চালিয়েছেন।

সম্মিলিত আইনজীবী সমন্বয় পরিষদের সাদা প্যানেলে সভাপতি পদে নতুন মুখ আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য ইউসুফ হোসেন হুমায়ুন এবং সম্পাদক পদে দলের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য বারের সাবেক সম্পাদক মোঃ মোমতাজ উদ্দিন আহমদ মেহেদী প্রার্থী হয়েছেন।

অপরদিকে জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ঐক্য পরিষদের নীল প্যানেলের নেতৃত্ব দিচ্ছেন বারের বর্তমান সভাপতি ও বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা খন্দকার মাহবুব হোসেন এবং বিএনপির যুগ্ম-মহাসচিব ও বারের বর্তমান সম্পাদক এএম মাহবুব উদ্দিন খোকন। তাঁরা এবারও যথাক্রমে সভাপতি ও সম্পাদক পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

মাঠে ছিলেন প্রভাবশালী নেতারা ॥ নিজ দলের মনোনীত প্রার্থীদের বিজয়ী করতে মরিয়া ছিলেন আওয়ামী লীগ ও বিএনপির হাইকমান্ডও। ভোটগ্রহণ চলাকালীন দুই দিনই কেন্দ্রীয় নেতা, সাবেক ও বর্তমান মন্ত্রী-এমপিরা উপস্থিত থেকে ভোট চেয়েছেন নিজেদের প্রার্থীদের জন্য।

আওয়ামী লীগ সমর্থিত আইনজীবী প্যানেল সম্মিলিত আইনজীবী সমন্বয় পরিষদের ব্যানারে দ্বিতীয় দিনে অবস্থান নেন সুপ্রীমকোর্টের সিনিয়র আইনজীবী ও সাবেক মন্ত্রী ব্যারিস্টার এম আমীর উল ইসলাম, সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এ্যাডভোকেট সাহারা খাতুন, সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী এ্যাডভোকেট শামসুল হক টুকু, সাবেক মন্ত্রী এ্যাডভোকেট আব্দুল মতিন খসরুসহ অনেকে। জাতীয় সংসদের সাবেক ডেপুটি স্পীকার কর্নেল (অব) শওকত আলী সোমবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে ভোট দিতে সুপ্রীমকোর্টে আসেন। এছাড়া সুপ্রীমকোর্টে অবস্থানরত অন্যান্য নেতাও সুপ্রীমকোর্টের আইনজীবী। তাঁরা নিজেদের ভোট প্রদানের পাশাপাশি অন্য ভোটারদের কাছ থেকে নিজ দলের মনোনীত প্রার্থীর জন্য ভোট কামনা করছেন। উভয়পক্ষের ভিআইপিরাই তাঁদের সাদা ও নীল প্যানেলের প্যান্ডেলে অবস্থান করেন।

প্রকাশিত : ১৭ মার্চ ২০১৫

১৭/০৩/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

প্রথম পাতা



ব্রেকিং নিউজ: