আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৬ ডিসেম্বর ২০১৬, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, মঙ্গলবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

রাজশাহীতে বোমা ফাটিয়ে অবরোধকারীরা ভীতি সৃষ্টি করছে

প্রকাশিত : ১৭ মার্চ ২০১৫
  • জামায়াত-শিবিরের অভিনব কৌশল

স্টাফ রিপোর্টার, রাজশাহী ॥ চলমান অবরোধ-হরতালে রাজশাহীতে আর ন্যূনতম সাড়া নেই। পিকেটাররাও মাঠে নেই। অনেক আগে থেকেই আত্মগোপনে চলে গেছে বিএনপি ও জামায়াতের শীর্ষ নেতারা। জনরোষে কোণঠাসা কথিত আন্দোলনকারী বিএনপি-জামায়াতের নেতারা ‘পলাতক’ থাকায় দিশা পাচ্ছে না মাঠপর্যায়ের কর্মীরা। তাই আন্দোলন জিইয়ে রাখতে এখন প্রতিদিন ককটেল মহড়া চলছে রাজশাহীতে।

ভ্রাম্যমাণ এসব জামায়াত-শিবিরের দুর্বৃত্তরা অভিনব কৌশলে কথিত আন্দোলন জিইয়ে রেখে জনমনে ভীতি সৃষ্টি করতে প্রতিদিন ককটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়ে ত্রাস সৃষ্টি করে পালিয়ে যাচ্ছে। বিশেষ করে সরকারী স্থাপনা ও স্পর্শকাতর এলাকায় দূর থেকে একটি করে ককটেল ও বোমা বিস্ফোরণ ঘটিয়ে লাপাত্তা হচ্ছে দুর্বৃত্তরা। গত এক সপ্তাহ ধরে রাজশাহীর বিভিন্ন সরকারী দফতর, ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে দিনের শুরুতে অথবা সন্ধ্যায় ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটানো হচ্ছে। পুলিশের বক্তব্য, এসব ভ্রাম্যমাণ দুর্বৃত্তদের কাজ। কথিত আন্দোলনে গণমানুষের সাড়া না পেয়ে সুযোগ বুঝে ককটেল ও বোমা বিস্ফোরণ ঘটিয়ে আন্দোলন জিইয়ে রাখা ও জনমনে ভীতি সঞ্চারের চেষ্টা করছে আন্দোলনকারী জামায়াত-শিবিরের কর্মীরা। সর্বশেষ রাজশাহীতে বোমা বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটানো হয় সোমবার বেলা ১০টার দিকে রাজশাহী শিক্ষা বোর্ডের ভেতর। ভ্রামমাণ দুর্বৃত্তরা মোটরসাইকেলে এসে রাস্তা থেকে বোমা নিক্ষেপ করে পালিয়ে যায়।

বোমাটি বোর্ডের অভ্যন্তরে ফুল বাগানের কাছে গিয়ে বিস্ফোরিত হয়। তবে এ ঘটনায় কোন হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। এ ঘটনায় বোর্ডের কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়লেও পরে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়। এর আগের দিন রবিবার সন্ধ্যায় রাজশাহী নগরীর শালবাগান এলাকায় আলম ফিলিং স্টেশনের কাছে একইভাবে ভ্রাম্যমাণ দুর্বৃত্তরা মোটরসাইকেলে এসে বোমা নিক্ষেপ করে। বোমাটি বিস্ফোরিত হলেও কোন ক্ষয়ক্ষতি হয়নি। কিছু সময়ের জন্য আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে মাত্র।

এর আগের দিন সন্ধ্যায় নগরীর নিউমার্কেট এলাকায় সাবেক শিল্পমন্ত্রী ও রাজশাহী-১ (তানোর- গোদাগাড়ী) আসনের সাংসদ ওমর ফারুক চৌধুরীর নির্মাণাধীন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের সামনে শক্তিশালী বোমা বিস্ফোরণ হয়। এ সময় জনবহুল এলাকার পথচারীদের মধ্যে চরম আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়লেও কোন ক্ষয়ক্ষতি হয়নি। এ ঘটনার একদিন আগে বৃহস্পতিবার রাতে রাজশাহী কেন্দ্রীয় কারাগারের প্রধান ফটকে একই কায়দায় ভ্রাম্যমাণ দুর্বৃত্তরা শক্তিশালী বোমা বিস্ফোরণ ঘটায়। এ সময় সেখানে দায়িত্বরত কারারক্ষী মিজানুর রহমান বোমার স্পিøন্টারে আহত হন। এ ঘটনার পর থেকে কারাফটক ও অভ্যন্তরে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়। কারারক্ষীরা জানান, দ্রুতগামী মোটরসাইকেলে এসে কারাফটক লক্ষ্য করে বোমা নিক্ষেপ করে দুর্বৃত্তরা। বোমার বিকট শব্দে কোন কিছু বুঝে উঠার আগেই তারা সটকে পরে। রাজশাহী মহানগর পুলিশের মুখপাত্র সহকারী কমিশনার ইফতে খায়ের আলম জানান, অবরোধকারী চক্র জনরোষে টিকতে না পেরে কৌশলে বিভিন্ন দফতরের সামনে দুর থেকে বোমা কিংবা ককটেল ফাটিয়ে আতঙ্ক সৃষ্টির চেষ্টা করছে।

প্রকাশিত : ১৭ মার্চ ২০১৫

১৭/০৩/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

দেশের খবর



ব্রেকিং নিউজ: