আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৭ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বুধবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

ঝিমিয়ে পড়েছে তদন্ত ॥ এখনও মোটিভ জানা যায়নি

প্রকাশিত : ১৬ মার্চ ২০১৫
  • শফিউল হত্যাকাণ্ড

স্টাফ রিপোর্টার, রাজশাহী ॥ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ও বাউল সাধক একেএম শফিউল ইসলাম হত্যা মামলার তদন্ত ঝিমিয়ে পড়েছে। চাঞ্চল্যকর এ হত্যাকা-ের চার মাসেও অগ্রগতি নেই তদন্তে। ১৭ জন গ্রেফতার হলেও রহস্যজনকভাবে আড়ালে থেকে গেছে এ হত্যাকা-ের মোটিভ। তবে মামলাটি এখন মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ তদন্ত করছে।

৫ জনকে আটক করে খুনের মোটিভ উদ্ধারের দাবি করেছিল র‌্যাব। তারা বলেছিল বিশ্ববিদ্যালয়ের এক নারী কর্মকর্তার সঙ্গে খারাপ আচরণ করার প্রতিশোধ নিতে এ হত্যাকা- ঘটিয়েছিল ওই ৫ খুনী। সম্প্রতি রেশমা নামের ওই কর্মকর্তাকেও গ্রেফতার করে পুলিশ।

এদিকে, দীর্ঘ চার মাসেও আলোচিত এ হত্যাকা-ের ঘটনায় তদন্তের অগ্রগতি না থাকা ও চার্জশীট দেয়ার ব্যাপারে পুলিশের উদ্যোগ ঝিমিয়ে পড়ায় চরম ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতির সভাপতি কামরুল হাসান মজুমদার। তিনি বলেন, পুলিশ মামলার তদন্ত নিয়ে গড়িমসি করছে। এতদিন পার হলেও বিচার তো দূরের কথা হত্যাকা-ের রহস্য উদঘাটন করতে পারেনি পুলিশ। পুলিশের এমন কার্যক্রম বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমাজকে হতাশ করেছে বলে জানান মজুমদার।

মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের ওসি জাহিদুর রহমান বলেন, এ হত্যাকা-ের মূল পরিকল্পনাকারী হিসেবে সন্দেহভাজন আব্দুস সালাম পিন্টু ও তার স্ত্রী নাসরিন আখতার রেশমা গ্রেফতার রয়েছে। পিন্টুকে পুলিশ হেফাজতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলেও রেশমাকে এখনও পুলিশ হেফাজতে নেয়া হয়নি। তাকে পুলিশ হেফাজতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করলে হত্যাকা-ের মোটিভ বেরিয়ে আসতে পারে বলে ধারণা ওসি জাহিদুর রহমানের।

এর আগে এ হত্যাকা-ের ঘটনায় পুলিশ প্রথমে ১১ জনকে গ্রেফতার করে। এছাড়াও এ হত্যাকা-ের ঘটনায় ৫ জনকে গ্রেফতার করে রাজশাহী ও ঢাকা র‌্যাব। যাদের সাংবাদিকদের সামনে হাজির করে র‌্যাব দাবি করেই এরাই অধ্যাপক শফিউল হত্যাকা-ের সঙ্গে সরাসরি জড়িত ছিল। এ হত্যাকা-ের পরিকল্পনাকারী হিসেবে জেলা যুবদলের আহ্বায়ক আনোয়ার হোসেন উজ্জ্বলের নামও আসে। যদিও ঘটনার পর থেকে যুবদল নেতা উজ্জ্বল এখনও পলাতক রয়েছে।

প্রকাশিত : ১৬ মার্চ ২০১৫

১৬/০৩/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

দেশের খবর



ব্রেকিং নিউজ: