আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৬ ডিসেম্বর ২০১৬, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, মঙ্গলবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

ভিন্ন রূপে হার্টথ্রব আনুশকা

প্রকাশিত : ১২ মার্চ ২০১৫

বলিউড

সারা পৃথিবীর ফিল্মভক্তদের কাছে বলিউড জগত যেন অলৌকিক স্বপ্নময় আবেশে জড়ানো এক বিনোদনস্থান। সর্বোচ্চ বিনোদনের মাধ্যম হিসেবে বলিউডের খ্যাতি বিশ্বজোড়া। কি নেই এই ফিল্ম জগতে? মন মাতানো নাচ, ভিন্ন ধরনের গান, মন্ত্রমুগ্ধকর সংলাপ ও কাহিনী সমৃদ্ধ স্টোরি আর এই জগতের বাসিন্দাদের কল্পনাময় জীবনযাপন! এই কাক্সিক্ষত কল্পজগতের একজন হতে তো আর কম আরাধনা করতে হয় না! অভিনয়ের সকল শাখাতে তো আছেই, আরও দরকার গুণ, গ্লামার ও মানুষের দৃষ্টি আকর্ষণের মতো অদ্বিতীয় ক্ষমতা। তবে এই বলিউডপাড়ায় অভিনেত্রীদের মধ্যে খুব অল্প সময়ের মধ্যে মজবুত আসন গাড়তে পেরেছেন গোটা কয়েক জন।

নিজের অভিনয় প্রতিভা আর লাবণ্যময় সৌন্দর্যে ফিল্মি দুনিয়ায় প্রবেশের শুরুতেই সবাইকে তাক লাগিয়ে দেয়া অভিনেত্রী কে, বলতে পারেন? ডেব্যু ফিল্মেই ভিন্নধর্মী চরিত্রায়ন আর সঙ্গে বলিউড কাঁপানো লাখো তরুণ-তরুণীর স্বপ্নের পুরুষ শাহরুখ খান, যেন মেঘ না চাইতেই বৃষ্টি।

তবে ফিল্মিভক্তরা এবার ঠিকই অনুমান করতে পেরেছেন কে এই হার্টথ্রব বলিউড অভিনেত্রী? ২০০৮ সালের আদিত্য চোপড়ার ‘রাব নে বানা দে জড়ি’তে বলিউড কিং-এর প্রেমিকা তানি সোহানি কিংবা বর্তমানে সুদর্শন ক্রিকেটার বিরাট কোহলির বাস্তব প্রেমিকা যাই হোক না কেন, তিনি শুধুই আনুশকা শর্মা।

আনুশকা ভক্তদের জন্যে সবচেয়ে খুশির খবর এই যে, আসছে ১৩ মার্চ হিন্দি থ্রিলার ফিল্ম ‘এন এইচ-১০’ নিয়ে নতুনভাবে বড় পর্দায় আভির্ভূত হচ্ছে আনুশকা শর্মা। ফ্যানটম ফিল্মের প্রযোজনায় নাভদিপ সিং-এর পরিচালনায় এই থ্রিলার ধাঁচের ফিল্মে আনুশকার সহঅভিনেতা হিসেবে আছে নীল ভুপালাম। তবে মজার বিষয় হলো, এই ফিল্মে প্রযোজক হিসেবে ডেব্যু হচ্ছে হার্টথ্রব অভিনেত্রী আনুশকা শর্মার।

৪০৩ কিমি. দীর্ঘ ন্যাশনাল হাইওয়ে-১০ নিয়ে এই অশরীরী ফিল্মের কাহিনী আবর্তিত হয়েছে যেটি দিল্লী থেকে শুরু করে হরিয়ানার ভেতর দিয়ে চলে বাহাদুরগড়, রহতাক, হিসার, ফাতেবাদ, সিরশা হয়ে পাকিস্থান সীমান্ত দিয়ে পাঞ্জাবে গিয়ে শেষ হয়েছে। এক নব দম্পতি রাস্তা ট্রিপের সময় এক দল সহিংস অপরাধীর মাধ্যমে আক্রান্ত হওয়া এবং এরপর ঘটে যাওয়া বিভিন্ন লৌহমষক ঘটনা নিয়ে গল্পটি তৈরি করা হয়েছে। নব দম্পতি মিরারূপী আনুশকা আর অর্জুন চরিত্রের নীল গুরগাও এ স্থায়িভাবে বাসবাস করে। হঠাৎ মধ্যরাত্রে মিরা পার্টি শেষে ফেরার সময় একদল অজানা অপরাধীর মাধ্যমে আক্রান্ত হয় যদিও একপর্যায়ে সেখান থেকে সে পালাতে সক্ষম হয়। আর এই দিকে অর্জুন নিজেকে দোষারোপ করতে থাকে সেদিন মিরার সঙ্গে না থাকার জন্য এবং তাকে সমস্থ বিষয় ভোলানোর জন্যে মরুভূমি হলিডেতে এক হাইওয়ে ধাবায় ডিনার করানোর জন্যে থামে। কিন্তু সেই সময়েই অর্জুন অদূরেই একদল ক্রিমিনালের দ্বারা এক যুবতীকে তুলে নিয়ে যাওয়া দেখতে পায়। অর্জুন তখনই এই সুযোগ লুফে নেয় এবং অনাকাক্সিক্ষত বিপদের দিকে ধাবিত হতে থাকে...। মডেলিং জগতে ক্যারিয়ার শুরু করা এই গ্লামারাস অভিনেত্রী ডেব্যু ফিল্মেই চার চারবার নমিনেটেড হয়ে অর্জন করেন শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রীর জন্যে ফিল্মফেয়ার পুরস্কার। এর পর একে একে ভক্তদের উপহার দেন সাড়াজাগানো হিন্দিফিল্ম ‘ব্রান্ড বাজা বারাত’, ‘যাব তাক হ্যায় জান’ আর ভারসেটাইল বলিউড অভিনেতা আমির খানের ‘পিকে’র মতো ব্যবসাসফল ফিল্ম। ২০১০ সালে রোমান্টিক কমেডি ঘরনার উচ্চাভিলাষী বিবাহের পরিকল্পক হিসেবে সুদর্শন রণবীর কাপুরের সঙ্গে জুটিবদ্ধ হয়ে করা ‘ব্রান্ড বাজা বারাত’ সমালোচকদের প্রশংসা লাভ করে এবং অর্জন করে ফিল্মফেয়ার পুরস্কার। তবে রাজকুমার হিরানির ধর্মীয় বিদ্রƒপাত্মক কমেডি ফিল্ম ‘পিকে’-তে জগত জননী আনুশকার ভিনগ্রহবাসী পিকে আমির খানের সঙ্গে অনবদ্য অভিনয় দর্শকগণ লুফে নেয় অতি সহজেই। সমালোচক শৈবাল চট্টোপাধ্যায় আনুশকা সম্পর্কে মন্তব্য করেছেন যে, ‘একজন দুষ্ট স্বভাবের কবিতা প্রেমী মেয়ে যার মন জানে অন্যান্য হিন্দি ফিল্ম নায়িকাকে কতটুকু অনুমতি দেয়া হয়।’ পান্থ আফজাল

প্রকাশিত : ১২ মার্চ ২০১৫

১২/০৩/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: