হালকা কুয়াশা, তাপমাত্রা ১৮.৯ °C
 
৮ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

শাশায় বিনিয়োগকারীদের স্বপ্নভঙ্গ

প্রকাশিত : ১১ মার্চ ২০১৫

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ পুঁজিবাজারে বস্ত্র খাতের নতুন তালিকাভুক্ত কোম্পানি শাশা ডেনিমস লিমিটেডে বিনিয়োগকারীদের স্বপ্ন ভঙ্গ হয়েছে। লেনদেন শুরুর চতুর্থ দিন মঙ্গলবারে প্রধান বাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে দিনশেষে কোম্পানিটির প্রতিটি শেয়ারের দর দাঁড়ায় ৩৭ দশমিক ২০ টাকায়। সারাদিনে কোম্পানিটির মোট ২৭ লাখ ৯০ হাজার ৩১৮টি শেয়ার লেনদেন হয়েছে, যার বাজার মূল্য ছিল ১০ কোটি ৫২ লাখ টাকা। দিনটিতে

খোঁজ খবর নিয়ে জানা গেছে, বিনিয়োগকারীদের আশঙ্কা শেয়ারটির দর অফার মূল্যের নিচে নেমে যায় কি না। সে ক্ষেত্রে মুনাফার পরিবর্তে তাদের লোকসানের কবলে পড়তে হবে। গত একবছরে অন্তত নতুন লেনদেন শুরুর পর কোন কোম্পানির ক্ষেত্রে এমন পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়নি।

উল্লেখ্য, শাশা ডেনিমস ১০ টাকা অভিহিত মূল্যের সঙ্গে ২৫ টাকা প্রিমিয়ামসহ ৩৫ টাকা মূল্যে শেয়ার ছাড়ে বাজারে। পুঁজিবাজারের চিত্র অনুযায়ী লেনদেনের প্রথম সপ্তাহে দর বাড়লেও এক্ষেত্রে তার ব্যতিক্রম ঘটেছে।

বিনিয়োগকারীদের মতে, শাশা ডেনিমসের মূল্য সংবেদনশীল তথ্য সম্পর্কে আগে থেকে না জানার কারণেই তারা এই শেয়ারে বিনিয়োগ করেছে। নাম প্রকাশ না করার শর্তে পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ এ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) একটা দুর্বল কোম্পানিকে প্রিমিয়ামসহ অনুমোদন দিয়ে বিনিয়োগকারীদের ঠকিয়েছে। তিনি বলেন, এই শেয়ারে দুই মাসের বেশি সময় বিনিয়োগ করে আমরা পুরোপুরি লোকসান না হলেও কোন মুনাফা করতে পারেনি। ইব্রাহিম অভি নামের এক বিনিয়োগকারী বলেন, শুরু থেকেই বুঝতে পারছিলেন এই কোম্পানির দর খুব বেশি বাড়বে না। যার কারণে প্রথম দিনের প্রথম ১০ মিনিটের মধ্যে প্রতিটি শেয়ার ৩৯ টাকায় বিক্রি করেছেন। ব্রোকারেজ হাউজের কমিশন বাদে ৭ হাজার টাকায় খাটিয়ে দুই মাসে মাত্র ৫শ’ টাকা মুনাফা পেয়েছি, যা এই বাজারের সঙ্গে মানানসই নয়।

পুঁজিবাজার বিশ্লেষকদের মতে, শাশা ডেনিমসের প্রত্যাশা অনুযায়ী দর না হওয়ার পেছনে ৩টি কারণ রয়েছে। প্রথমত, কোম্পানিটি সর্বশেষ প্রান্তিকে যে ইপিএস করেছে তা আগের বছরের তুলনায় কমেছে। গত ৯ মাসে (জানুয়ারি ’১৪- সেপ্টেম্বর ’১৪) অর্থবছরে কোম্পানির ইপিএস হয়েছে মাত্র ৯৮ পয়সা। ২০১৩ সালে এই কোম্পানির ইপিএস ছিল ২ টাকা ২৪ পয়সা। দ্বিতীয়ত, কোম্পানিটি গত ৩ মাসে (জুলাই ’১৪-সেপ্টেম্বর ’১৪) লোকসান থেকে মুনাফায় ফিরেছে। আর কোম্পানিটি আগের বছর লোকসান করেছিল বিষয়টি লেনদেনের আগের দিন প্রকাশ হওয়ায় বিনিয়োগকারীদের আস্থায় চিড় ধরেছে বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা।

ডিএসইর তথ্য অনুযায়ী, আলোচিত বছরে কোম্পানিটি কর পরিশোধের পর মুনাফা করেছে ৮ কোটি ৯০ লাখ টাকা। আর শেয়ারপ্রতি আয় করেছে ১ টাকা ৮৫ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে কোম্পানিটি লোকসান করেছিল ৪ কোটি ২০ লাখ টাকা। আর শেয়ারপ্রতি লোকসান করেছিল ৮৮ পয়সা।

প্রকাশিত : ১১ মার্চ ২০১৫

১১/০৩/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: