রৌদ্রজ্জ্বল, তাপমাত্রা ২৩.৯ °C
 
৮ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

তিন কোটি টাকার যন্ত্রপাতি ॥ ৩৫ লাখে বিক্রির চেষ্টা

প্রকাশিত : ১০ মার্চ ২০১৫
  • বরিশাল পাউবোর যন্ত্রাংশ

স্টাফ রিপোর্টার, বরিশাল ॥ পানি উন্নয়ন বোর্ড বরিশালের অব্যবহৃত যন্ত্রপাতিসহ প্রায় ৩শ’ প্রকারের ৩ কোটি টাকা মূল্যের যন্ত্রাংশ প্রায় ৩৫ লাখ টাকা মূল্যে বিক্রির চেষ্টা করছেন সংশ্লিষ্ট অফিসের কতিপয় কর্মকর্তারা। ইতোমধ্যে নামমাত্র মূল্যে এসব মেশিনারিজ একটি প্রতিষ্ঠানকে বরাদ্দ দেয়ার সকল প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

সাধারণ ঠিকাদাররা অভিযোগ করেন, পাউবোর বরিশাল অফিসের কতিপয় কর্মকর্তা ও এক শ্রমিকলীগ নেতার কারসাজিতে এ মালামাল স্বল্পমূল্যে বিক্রির চেষ্টা চলছে। পানি উন্নয়ন বোর্ড সূত্রে জানা গেছে, ২০১৩ সালে ৫৮টি অব্যবহৃত ডিজেল লিস্টার মেশিন নামমাত্র মূল্যে বিক্রির চেষ্টা করা হয়েছিল। ওই সময় ঠিকাদারদের বিরোধিতা আর চরম হট্টগোলের কারণে পুরো পক্রিয়া স্থগিত করা হয়েছিল। সূত্রে আরও জানা গেছে, স্থগিত থাকা ওই ৫৮টি মেশিন নতুন করে বিক্রির কার্যক্রম চলছে। ৫৮টি ডিজেল লিস্টার মেশিনের মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে মাত্র ১৯ লাখ ৭৫ হাজার ৭শ’ টাকা। ঠিকাদাররা অভিযোগ করেন, এসব মেশিনের মূল্য খোলাবাজারে টেন্ডার হলে কমপক্ষে ২ কোটি টাকা ছাড়িয়ে যাবে। অভিযোগে আরও জানা গেছে, পাউবোর বরিশাল অফিসের নির্বাহী প্রকৌশলী আজিজুল হক ও স্থানীয় এক রাজনৈতিক নেতায় গোপন আঁতাতে এসব মালামাল একটি প্রতিষ্ঠানের কাছে বিক্রির সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। অপরদিকে একই সঙ্গে গত বছর সার্ভে শেষে এখানকার নতুন কিন্তু অব্যবহৃত ১২টি ডিজেল লিস্টার মেশিন ও ২৯৫ প্রকার যন্ত্রাংশ বিক্রির সিদ্ধান্ত হয়। টেন্ডার কিংবা নিলাম ছাড়াই এর মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে মাত্র ১৩ লাখ ৫৮ হাজার ৭১৫ টাকা ৫৫ পয়সা। তবে ঠিকাদাররা অভিযোগ করেন, ওইসব মালামালের বর্তমান বাজার মূল্যও ১ কোটি টাকার অধিক।

বরিশাল পানি উন্নয়ন বোর্ডের শ্রমিকলীগ সভাপতি খালেক মৃধা বলেন, চলতি মাসের মধ্যেই পানির দরে এসব মেশিন বিক্রির জন্য নির্বাহী প্রকৌশলী আজিজুল হক বর্তমানে ঢাকায় অবস্থান করছেন। নতুন করে পূর্বের ৫৮টি মেশিনও বিক্রির পাঁয়তারা চলছে। তিনি বলেন, প্রায় ৩ কোটি টাকার সরকারী মালামাল প্রকাশ্যে টেন্ডার কিংবা নিলাম ছাড়া এভাবে পানির দরে বিক্রি করা সম্পূর্ণ বেআইনী। এ ব্যাপারে পানি উন্নয়ন বোর্ড বরিশালের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী রেজাউল করিম বলেন, নতুন ১১টি মেশিনারিজ বিক্রির অনুমোদনের চেষ্টা করা হচ্ছে। পুরনো ৫৮টিও বিক্রির কার্যক্রম চলছে। তিনি আরও বলেন, মালামালগুলো অতি পুরনো। এগুলোর বিক্রয় মূল্য নির্ধারণে সারাদেশ যাচাই বাছাই করা হয়েছে। তবে বিনা টেন্ডারে এসব মালামাল বিক্রির বিষয়ে তিনি কোন মন্তব্য করতে রাজি হননি।

পানি উন্নয়ন বোর্ড বরিশালের নির্বাহী প্রকৌশলী আজিজুল হক নিজেকে নির্দোষ দাবি করে বলেন, একটি মহল দীর্ঘদিন থেকে পুরো মালামাল হরিলুট করতে চেয়েছিল। তাদের কথায় রাজি না হওয়ায় তারা আমার বিরুদ্ধে মিথ্যে অপবাদ রটাচ্ছে। তবে তিনিও বিনা টেন্ডারে উল্লেখিত মালামাল বিক্রির বিষয়টি এড়িয়ে যান।

প্রকাশিত : ১০ মার্চ ২০১৫

১০/০৩/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

দেশের খবর



ব্রেকিং নিউজ: