মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১১ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

আজ চট্টগ্রামের মেয়র প্রার্থী ঠিক করবে আওয়ামী লীগ

প্রকাশিত : ১০ মার্চ ২০১৫
  • মহিউদ্দিনের ভাগ্য পরীক্ষা

স্টাফ রিপোর্টার, চট্টগ্রাম অফিস ॥ চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের আসন্ন নির্বাচনে মেয়র পদে মনোনয়ন লাভে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন স্থানীয় ১৪ দলের সমর্থন লাভের পর আজ মঙ্গলবার আরেক পরীক্ষার মুখোমুখি হচ্ছেন নগর আওয়ামী লীগ সভাপতি সাবেক মেয়র এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী। আজ অনুষ্ঠিত হবে নগর আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভা। এতে যোগ দেবেন দলের ওয়ার্ডসহ সকল পর্যায়ের দেড় শতাধিক কাউন্সিলর। এ সভায় দলের পক্ষে মেয়র প্রার্থিতা নিয়ে আলোচনা হবে। বর্ধিত সভায় যিনি চূড়ান্তভাবে তৃণমূলের নেতাদের সমর্থন যিনি লাভ করবেন তার নামই কেন্দ্রের কাছে পাঠানো হবে। এক্ষেত্রে ১৪ দলের সমর্থন লাভের পর বর্ধিত সভায় মহিউদ্দিন চৌধুরীর সমর্থন পাওয়ার সম্ভাবনা বেশি বলে দলীয় সূত্রে জানানো হয়েছে। বর্ধিত এ সভায় মেয়র পদে সম্ভাব্য প্রার্থীদের ভাগ্য পরীক্ষা হিসেবেই ধরে নেয়া হয়েছে। হাত তোলা বা ভোটাভুটি হলেও মহিউদ্দিন চৌধুরীর জয়ী হওয়ার সম্ভাবনা বেশি মনে করছেন তাঁর সমর্থকরা। প্রসঙ্গত, আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে মেয়র পদে প্রার্থী হতে ইচ্ছুকদের মধ্যে রয়েছেনÑ এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী, আ জ ম নাছির উদ্দিন, নুরুল ইসলাম বিএসসি ও আবদুচ ছালাম।

নগর আওয়ামী লীগ সূত্রে জানা যায়, আজ মঙ্গলবারের বর্ধিত সভায় অন্যান্য আলোচনার পর গুরুত্বপূর্ণ এজেন্ডা রাখা হয়েছে আসন্ন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে মেয়র পদে দলের প্রার্থিতা চূড়ান্ত করে এ সুপারিশ ঢাকায় প্রেরণ। ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের জন্য আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থীর নাম ঘোষিত হয়ে যাওয়ায় সেখানে এক প্রকার গণসংযোগ শুরু হয়ে গেছে। কিন্তু চট্টগ্রামে প্রার্থিতা চূড়ান্ত না হওয়ায় তৃণমূলের নেতাকর্মীদের মধ্যে এখনও কর্মচাঞ্চল্য আসেনি। এ বিষয়টি বিবেচনায় রেখে চট্টগ্রাম ১৪ দল ও নগর আওয়ামী লীগও মেয়র প্রার্থী ঠিক করার ওপর গুরুত্ব দিচ্ছে। ১৪ দলের পর আওয়ামী লীগ থেকেও মহিউদ্দিন চৌধুরী সমর্থন লাভ করলে তিনি পঞ্চম বারের মতো মেয়র পদে প্রার্থী হতে কেন্দ্রের সমর্থন চাইবেন।

উল্লেখ্য, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সম্প্রতি চট্টগ্রামে সেনাবাহিনীর একটি অনুষ্ঠানে যোগ দিতে এলে তাঁর কাছে চট্টগ্রামের মেয়র প্রার্থী বিষয়ে জানতে চাওয়া হয়েছিল। জবাবে তিনি বলেছিলেন, মেয়র প্রার্থী কে হবেন তা চট্টগ্রামের নেতারাই ঠিক করবেন। এরপর থেকে মনোনয়নপ্রত্যাশী নেতারা যে যার মতো করে তৎপরতা শুরু করেন। তবে এক্ষেত্রে এগিয়ে রয়েছেন সাবেক মেয়র এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী।

আওয়ামী লীগের অভ্যন্তরীণ সূত্রে জানা যায়, আজ মঙ্গলবার বিকেলে চট্টগ্রাম জেলা পরিষদ মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত নগর কমিটির বর্ধিত সভা। এতে যোগ দেবেন আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা। ৪১টি ওয়ার্ডে নেতৃবৃন্দসহ প্রায় দেড় শ’ প্রতিনিধি সভায় উপস্থিত হবেন। এতে সিটি নির্বাচনকে সামনে রেখে আলোচনা এবং মেয়র প্রার্থীর বিষয়ে সিদ্ধান্ত হতে পারে। গুরুত্বপূর্ণ এ সভায় সংশ্লিষ্ট উপস্থিত থাকার জন্য দলের নগর কমিটির পক্ষ থেকে অনুরোধ জানানো হয়েছে। এদিকে, গত রবিবার চট্টগ্রাম ১৪ দলের সভায় মহিউদ্দিন চৌধুরীর নাম সর্বসম্মতভাবে মেয়র পদে প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নের জন্য সমর্থন দানের পর বিক্ষিপ্তভাবে দলের কতিপয় নেতা তাদের নেতিবাচক প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন। কেউ বলেছেন, এভাবে প্রার্থিতা চূড়ান্ত করার কোন অবকাশ নেই। কেউ বলেছেন, আওয়ামী লীগপ্রধান শেখ হাসিনাই প্রার্থীর নাম চূড়ান্ত ঘোষণা দেবেন। আবার কেউ বলেছেন, এ ধরনের সভার কোন বৈধতা নেই। দলের বিভিন্ন সূত্রে এ ব্যাপারে তাঁদের পাল্টা প্রক্রিয়ায় জানিয়েছেন, খোদ প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশেই তৃণমূল পর্যায় থেকে নাম চূড়ান্ত করার আহ্বান জানানোর কারণে ১৪ দল, আওয়ামী লীগের ওয়ার্কিং ও বর্ধিত সভায় প্রার্থীর নাম চূড়ান্ত করে কেন্দ্রে পাঠানোর প্রক্রিয়া গ্রহণ করা হয়েছে। তারই পদক্ষেপ হিসেবে ১৪ দলের সভা অনুষ্ঠিত হয় এবং এতে সর্বসম্মতভাবে মহিউদ্দিন চৌধুরীর নাম আগামী মেয়র পদে মহিউদ্দিনের নাম চূড়ান্ত করা হয়েছে। এতে সমালোচনা ও ভিন্নমত পোষণের কোন অবকাশ নেই।

উল্লেখ্য, প্রধান নির্বাচন কমিশনার কাজী রাকিবউদ্দিন আহমেদ সম্প্রতি সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন আগামী জুন মাসের মাঝামাঝি সময়ের মধ্যে অনুষ্ঠানের বাধ্যবাধকতা রয়েছে।

২০১০ সালের ১৭ জুন অনুষ্ঠিত হয়েছিল চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচন। নির্বাচিত পরিষদের প্রথম সভা অনুষ্ঠিত হয় ঐ বছরের ২৭ জুলাই। সে হিসেবে ঐ দিনই বর্তমান পরিষদের মেয়াদ শেষ হয়ে যাবে। নিয়মানুযায়ী মেয়াদ শেষ হওয়ার প্রথম ১৮০ দিনের মধ্যে নির্বাচন করতে হয়। আগামী জুন মাসে রোজা থাকায় কমিশন এর আগেই সুবিধামতো সময়ে নির্বাচন অনুষ্ঠানের চিন্তাভাবনা করছে। সে হিসেবে নির্বাচন অতি সন্নিকটে।

এদিকে, ১৪ দলের এ সিদ্ধান্ত ঘোষণার পর তাঁর প্রতিক্রিয়া জানতে চাওয়া হলে মহিউদ্দিন চৌধুরী জনকণ্ঠকে জানান, বরাবরের মতো তিনি ১৪ দলের সমর্থনে নাগরিক কমিটির ব্যাপারে প্রার্থী হবেন। ১৪ দলের সর্বসম্মত এ সিদ্ধান্তের প্রতি তিনি কৃতজ্ঞতা জানান এবং নগরবাসীকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে চট্টগ্রামের উন্নয়নে অবদান রাখার জন্য আহ্বান জানান। ইতোপূর্বে তাঁকে নিয়ে নানা আলোচনা-সমালোচনা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, মানুষ হিসেবে তাঁর ভুলত্রুটি যে ছিল না তা নয়। সবকিছুকে শুধরে এবার তিনি চট্টগ্রামবাসীর স্বার্থে কাজ করতে তৎপর হবেন।

প্রকাশিত : ১০ মার্চ ২০১৫

১০/০৩/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: