রৌদ্রজ্জ্বল, তাপমাত্রা ২৩.৯ °C
 
৯ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

উখিয়া সীমান্তে দালাল বিজিবি গোলাগুলি, কমান্ডার আহত

প্রকাশিত : ৭ মার্চ ২০১৫
  • ১৮ রোহিঙ্গা আটক

স্টাফ রিপোর্টার, কক্সবাজার ও নিজস্ব সংবাদদাতা, উখিয়া ॥ উখিয়ার বালুখালী সীমান্তে অবৈধ অনুপ্রবেশকারী ১০৮ রোহিঙ্গা আটককে কেন্দ্র করে দালাল ও বিজিবির মধ্যে গোলাগুলির ঘটনা ঘটেছে। দালালচক্রের গুলিতে ক্যাম্প কমান্ডার ফজলুল হক আহত হন। তাকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। শুক্রবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে পানবাজার এলাকায় রোহিঙ্গাদের আটকের পর এ গোলাগুলির ঘটনা ঘটে। বিজিবির দাবি, গুলিবিনিময় শেষে তাদের আটক করা হয়।

বিজিবির ১৭ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল খন্দকার সাইফুল আলম সাংবাদিকদের জানান, স্থানীয় সংঘবদ্ধ দালালচক্র বিপুলসংখ্যক রোহিঙ্গাকে অনুপ্রবেশ করাচ্ছেÑ এমন সংবাদ পেয়ে অভিযান চালানো হয়। বালুখালী পানবাজার এলাকায় দুটি জীপ (চাঁদের) গাড়িতে করে কুতুপালং ক্যাম্পে রোহিঙ্গাদের পাচারের সময় বিজিবি সদস্যরা তাদের আটক করে। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে দালালচক্র বিজিবি সদস্যদের লক্ষ্য করে গুলি চালায়। বিজিবিও পাল্টা গুলি ছুড়ে তার জবাব দেয়। পরে ১০৮ রোহিঙ্গা এবং শাহ

আলমগীর (৩৫) নামে এক দালালকে আটক করে বিজিবি। দালালদের গুলিতে গুরুতর আহত হন বিজিবি সুবেদার ফজলুল হক। তাঁর ঘাড়ের বাম পাশে গুলি লাগে। আহতাবস্থায় ফজলুলকে উদ্ধার করে প্রথমে উখিয়া হাসপাতাল ও পরে সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

ঘটনার পর থেকে পুলিশ ও বিজিবি দালালদের আটক করতে অভিযান শুরু করে। আটক রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে ফেরত পাঠানোর প্রক্রিয়া চলছে বলে বিজিবি সূত্র জানায়।

এ ঘটনার জন্য বিজিবি সদস্যরা ওই এলাকার বিএনপি নেতা ও পালংখালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান গফুর উদ্দিন চৌধুরীকে দায়ী করে। সংঘর্ষে জড়িত অভিযোগে রোহিঙ্গাদের বহনকারী একটি জীপের মালিককে ঘটনাস্থল থেকে আটক করা হয়।

প্রকাশিত : ৭ মার্চ ২০১৫

০৭/০৩/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

প্রথম পাতা



ব্রেকিং নিউজ: