মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১০ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

টিআইএন জালিয়াতি রোধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে

প্রকাশিত : ৬ মার্চ ২০১৫

জসিম উদ্দিন ॥ করদাতা নিবন্ধন নম্বর (টিআইএন) জালিয়াতি রোধে কঠোর ব্যবস্থা নিতে যাচ্ছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)। এক বাণিজ্য সংগঠনের ৭শ’ সদস্যের টিআইএন জালিয়াতির প্রেক্ষিতে এখন দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা নিতে যাচ্ছে এনবিআর। এদিকে এফবিসিসিআইয়ের সদস্য সকল বাণিজ্য সংগঠন ও চেম্বারের সভাপতিদের ই-টিআইএন গ্রহণ ও যথাসময়ে রিটার্ন দাখিল করতে অভ্যন্তরীণ সম্পদ বিভাগের সচিব ও এনবিআর চেয়ারম্যান মোঃ নজিবুর রহমান নির্দেশনা দিয়েছেন।

বুধবার তাঁর স্বাক্ষরিত আধা-সরকারী পত্র (ডিও) দেয়া হয়েছে এফবিসিসিআইয়ের ৩৫১ সদস্য বাণিজ্য সংগঠন ও বিভিন্ন চেম্বারের সভাপতিকে।

ডিও লেটারে এনবিআর চেয়ারম্যান এফবিসিসিআইয়ের সদস্যদের করদাতা নিবন্ধন নম্বর বা ই-টিআইএন গ্রহণ করা ও যথাসময়ে রিটার্ন দাখিল করার বিষয়ে আন্তরিক সহযোগিতা কামনা করে বলেন, দেশের উন্নয়ন অভিযাত্রা অব্যাহত রাখার স্বার্থে, বিশেষ করে রূপকল্প ২০২১ ও ২০৪১ বাস্তবায়নের জন্য প্রয়োজনীয় কর রাজস্ব আহরণে বিভিন্ন চেম্বার/ট্রেড এ্যাসোসিয়েশন অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ও প্রশংসনীয় অবদান রাখছে। তাই সবাইকে ই-টিআইএন-এর মাধ্যমে যথাযথভাবে আয়কর রিটার্ন দাখিল ও আয়কর দিয়ে জাতীয় উন্নয়নে ভূমিকা রাখার আহ্বান জানান তিনি।

জানা যায়, আয়কর অধ্যাদেশের ৭৫(১এ) (ডি) ধারার বিধান অনুযায়ী প্রত্যেক চেম্বার অব কমার্স এ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজ এবং যে কোন বাণিজ্য সংগঠনের সদস্যের ই-টিআইএন থাকা ও যথাসময়ে আয়কর রিটার্ন দাখিল করা বাধ্যতামূলক।

তবে, এনবিআরের পর্যবেক্ষণে দেখা যায় আইনের এমন বাধ্যবাধকতা থাকা সত্ত্বেও বিভিন্ন চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রিজ ও বাণিজ্য সংগঠনের অনেক সদস্যের ই-টিআইএন নেই। আবার অনেকে সময়মতো আয়কর রিটার্ন দাখিল করছেন না।

সম্প্রতি এনবিআরের এক অনুসন্ধানে বেরিয়ে আসে ভয়াবহ চিত্র, বাংলাদেশ ইলেক্ট্রিক্যাল এ্যাসোসিয়েশনের ৪ হাজার সদস্যের টিআইএন যাচাই করে দেখা যায় ৭শ’ সদস্য টিআইএন জালিয়াতি করছে। এদের মধ্যে রয়েছে ভুয়া টিআইএন ব্যবহার ও একজন অন্যের টিআইএন ব্যবহার করছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক, এনবিআরের উর্ধতন এক কর্মকর্তা বলেন, ৭শ’ সদস্য টিআইএন জালিয়াতির বিষয়টি তাদের প্রাথমিক অনুসন্ধানে ধরা পড়েছে। এজন্য অত্যন্ত সতর্কতার সঙ্গে তারা আরও যাচাই বাছাই করছেন। তিনি বলেন, এটা অত্যন্ত স্পর্শকাতর ইস্যু। কোনভাবেই যেন একজন নিরপরাধ ব্যক্তি ক্ষতিগ্রস্ত না হয়। কারণ টিআইএন জালিয়াতির বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিতে যাচ্ছে এনবিআর। এনবিআর-এর ওই কর্মকর্তা জানান, প্রচলিত আইনে শাস্তির পরিমাণ পর্যালোচনা করে আরও কঠোর শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়ার কথাও ভাবছে এনবিআর। তিনি বলেন, এসব অপরাধীর বিরুদ্ধে এমন দৃষ্টান্তমূলক ব্যবস্থা নেয়া হবে যাতে ভবিষ্যতে কেউ এমন অপরাধ করতে উৎসাহী না হয়।

প্রকাশিত : ৬ মার্চ ২০১৫

০৬/০৩/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: