কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৪ ডিসেম্বর ২০১৬, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

দারুণ জয়, উজ্জীবিত বাংলাদেশ

প্রকাশিত : ৫ মার্চ ২০১৫, ১২:৫৬ পি. এম.
দারুণ জয়, উজ্জীবিত বাংলাদেশ

স্টফ রিপোর্টার ॥ ওয়ানডেতে নিজেদের সবচেয়ে বড় লক্ষ্য তাড়া করে স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে দারুণ এক জয় পেয়েছে বাংলাদেশ। প্রথমে ৩১৮ রানের বিশাল পাহাড় টপকে অনেকটা সহজ জয় তুলে নেয় বাংলাদেশ। এই জয়ে কোয়ার্টার-ফাইনালের স্বপ্ন আরেকটু উজ্জ্বল হলো মাশরাফি-সাকিবদের।

তামিম ইকবাল, মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের দৃঢ়তাভরা ব্যাটিংয়ে শুরুটা দারুণ হয় বাংলাদেশের। পরে মুশফিকুর রহিম, সাকিব আল হাসান ও সাব্বির রহমানের চমৎকার ব্যাটিংয়ে ১১ বল হাতে রেখেই ৪ উইকেট হারিয়ে জয়ের লক্ষ্যে পৌঁছে যায় বাংলাদেশ। ফলে বাংলাদেশ ৬ উইকেটের বিশাল এক জয় পায়।

শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত রানের গতি কখনও পড়তে দেয়নি বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা। বড় লক্ষ্য তাড়া করতে গিয়ে ম্যাচের কোন সময়ই মনে হয়নি চাপে পড়েছে টাইগার বাহিনী।

বৃহস্পতিবার নেলসনের স্যাক্সটন ওভালে ৩১৯ রানের বড় লক্ষ্য তাড়া করতে নামার আগেই একটা ধাক্কা খায় বাংলাদেশ। ফিল্ডংয়ের সময় চোট পাওয়া উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান এনামুল হক ব্যাটিংয়ে নামতে পারেননি।

এনামুলের জায়গায় তামিমের সঙ্গে ইনিংস উদ্বোধন করেন সৌম্য সরকার। মাত্র ৫ রানে তিনি বিদায় নিলে শুরুতেই অস্বস্তিতে পড়ে বাংলাদেশ।

তবে দ্বিতীয় উইকেটে তামিম ও মাহমুদুল্লাহর ১৩৯ রানের জুটিতে প্রতিরোধ গড়ে বাংলাদেশ। বিশ্বকাপে যে কোন উইকেটে এটাই বাংলাদেশের সর্বোচ্চ রানের জুটি। এর আগের বড় জুটিটি ছিল মুশফিক ও সাকিবের। তাও এবারের আসরেই আফগানিস্তানের বিপক্ষে ১১৪ রানের জুটি গড়েছিলেন এই দু’জনে।

ইয়ান ওয়ার্ডলর লেগস্টাম্পের অনেক বাইরের একটি বলে বোল্ড হয়ে মাহমুদুল্লাহর বিদায়ে ভাঙ্গে ২১ দশমিক ৪ ওভার স্থায়ী দ্বিতীয় উইকেট জুটি। ৬২ বলে খেলা এই ডানহাতি ব্যাটসম্যান ৬২ রানের ইনিংসটি ৬টি চার ও ১টি ছক্কায় গড়া।

মুশফিকের সঙ্গে ৫৭ রানের আরেকটি জুটি গড়ে দলকে এগিয়ে নিতে থাকেন তামিম। মাত্র ৫ রানের জন্য শতক পাননি এই বাঁ-হাতি ব্যাটসম্যান। জস ডেভির বলে এলবিডব্লিউর ফাঁদে পড়া তামিমের (৯৫) ১০০ বলের ইনিংসটি সাজানো ৯টি চার ও ১টি ছক্কায়।

২০১ রানে তৃতীয় ব্যাটসম্যান হিসেবে তামিমের বিদায়ের কোন ছাপ বাংলাদেশ ইনিংসে পড়তে দেননি মুশফিক ও সাকিব।

৪২ বলে ৬০ রানের দাপুটে ইনিংস খেলেন মুশফিক। ৬টি চার ও দুটি ছয়ের সাহায্যে অনবদ্য ইনিংস খেলে তিনি বিদায় নেয়ার সময় বাংলদেশের ৭২ বলে প্রয়োজন ছিল ৭২ রান।

মুশফিকের ৪৬ রানের জুটি গড়া সাকিব সাব্বির রহমানকে নিয়ে বাকি কাজটুকু সহজেই সারেন। অবিচ্ছিন্ন পঞ্চম উইকেটে ৬১ বলে ৭৫ রানের জুটি গড়েন এই দু’জনে। তাতেই বিশ্বকাপে প্রথমবারের তিনশ’ রানের লক্ষ্য তাড়া করে জয়ের কৃতিত্ব দেখায় বাংলাদেশ।

৫২ রানে অপরাজিত থাকেন সাকিব। সাব্বির (৪০ বলে অপরাজিত ৪২) পরপর দুটি বল ঠেকিয়ে এই অলরাউন্ডারকে অর্ধশতক করার সুযোগ করে দেন। পরের ওভারের প্রথম বলেই চার হাঁকিয়ে অর্ধশতকে পৌঁছানোর সঙ্গে দলকে জয়ও এনে দেন তিনি।

বৃহস্পতিবার নেলসনের স্যাক্সটন ওভালে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে ৮ উইকেটে ৩১৮ রান করে স্কটল্যান্ড।

যদিও শুরুটা ভাল হয়নি স্কটল্যান্ডের। তৃতীয় ওভারেই ক্যালাম ম্যাকলয়েডকে হারায় তারা। মাশরাফি বিন মুর্তজার বলে কাভারে মাহমুদুল্লাহর হাতে ধরা পড়েন ম্যাকলয়েড।

দশম ওভারে আঘাত হানেন তাসকিন আহমেদ। হ্যামিশ গার্ডিনারকে সৌম্য সরকারের ক্যাচে পরিণত করেন এই তরুণ পেসার।

৩৮ রানে দুই উইকেট হারিয়ে চাপেপড়া স্কটল্যান্ড প্রতিরোধ গড়ে কোয়েটজার ও ম্যাট মাচানের ব্যাটে। তৃতীয় উইকেটে ৭৮ রানের জুটি গড়েন এই দু’জন। প্রথমবারের মতো বল করতে এসেই ১৪.১ ওভার স্থায়ী জুটি ভাঙ্গেন সাব্বির রহমান। মাচানের ফিরতি ক্যাচ নিয়ে ওয়ানডেতে নিজের প্রথম উইকেট নেন এই লেগস্পিনার।

চতুর্থ উইকেটে অধিনায়ক প্রেস্টন মমসেনের সঙ্গে কোয়েটজারের ১৪১ রানের দারুণ জুটিকে বড় সংগ্রহের দিকে এগিয়ে যায় স্কটল্যান্ড। ৩৮ বলে ৩৯ রান করে মমসেন নাসির হোসেনের শিকারে পরিণত হলে ভাঙ্গে ১৮.৫ ওভার স্থায়ী বিপজ্জনক জুটি।

নাসিরের দ্বিতীয় শিকারে পরিণত হওয়ার আগে ১৫৬ রানের দুর্দান্ত এক ইনিংস খেলেন কোয়েটজার। বিশ্বকাপের ইতিহাসে স্কটল্যান্ডের প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে শতক করেন এই উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান।

বিশ্বকাপে সহযোগী দেশের প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে দেড়শ’ করার কৃতিত্ব দেখান কোয়েটজার। তাঁর ১৩৪ বলের ইনিংসটি ১৭টি চার ও ৪টি ছক্কা সমৃদ্ধ।

ম্যাথু ক্রসের সঙ্গে অ্যান্ডি বেরিংটনের ৩৯ রানের জুটিতে তিনশ’ রান পার হয় স্কটল্যান্ডের সংগ্রহ। ১৬ বলে ২৬ রান করা বেরিংটনকে মুশফিকুর রহিমের গ্লাভসবন্দী করে নিজের দ্বিতীয় উইকেট নেন তাসকিন।

তাসকিনের সেই ওভারের প্রথম বলে জীবন পেলেও শেষ বলে আর পারেননি ক্রস। সাব্বির রহমানের ক্যাচে পরিণত হয়ে বিদায় নেন তিনি। ৪৩ রানে ৩ উইকেট নিয়ে তাসকিনই বাংলাদেশের সবচেয়ে সফল বোলার।

প্রকাশিত : ৫ মার্চ ২০১৫, ১২:৫৬ পি. এম.

০৫/০৩/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: