কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৩ ডিসেম্বর ২০১৬, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

হিট গান মানেই অরিজিৎ সিং

প্রকাশিত : ৫ মার্চ ২০১৫

মিউজিক

ভারতের মুর্শিদাবাদের ছেলে অরিজিৎ। জন্ম : ২৫ এপ্রিল, ১৯৮৭। ছোটবেলায় নিজেই গাইতেন, আবার নিজেই শুনতেন নিজের বেসুরো গলায় গাওয়া গান। কিন্তু কে জানত সেদিনে যে নিতান্তই শখের বশে গান গাইত, তাঁর গান আজ পুরো বিশ্বকে মাতিয়ে রাখবে? হ্যাঁ, এরপর অনেকটা সময় পেরিয়েছে। দিন শেষে রাত এসেছে। তারপর ভোর। এরই মাঝে অরিজিৎ সিং নিজেকে তৈরি করেছেন সময়ের অনুকূলে ‘গানের রেলগাড়ি’ চালানোর যোগ্য চালক হিসেবে। প্রয়োজনে নিজেকে কখনও ভেঙ্গেছেন, আবার কখনও বা গড়েছেন। শুরুটা স্টেজশো দিয়ে। মাতিয়েছেন ভারতের অসংখ্য গানের মঞ্চ। এরপর ঠিক করলেন জীবনে প্রতিষ্ঠিত গায়ক হবেন। তারই ধারাবাহিকতায় ২০০৫ সালে অংশ নিলেন জনপ্রিয় টিভি চ্যানেল সনি আয়োজিত রিয়েলিটি সিঙ্গিং সিরিজ ‘ফেম গুরুকুল’-এ। সেখানে একে একে সব প্রতিযোগীকে পেছনে ফেলে টপ ছয়জন প্রতিযোগীর একজন হন অরিজিৎ। কিন্তু দুর্ভাগ্যবশত তিনি চ্যাম্পিয়ন হতে পারেননি। চূড়ান্ত বিজয়ী না হওয়ার অতৃপ্ত বেদনা তাঁকে কুরে কুরে খেতে থাকে প্রতিক্ষণ। এ জন্য তিনি ২০০৬ সালে দু’চোখ জোড়া রঙিন স্বপ্ন আর অদম্য সাহস নিয়ে মুম্বাইতে আসেন। কাজ শুরু করেন কুমার তাওরানির মিউজিক কোম্পানিতে। সেখানে বছর খানেক কাজ করার পর মিউজিক ডিরেক্টর শঙ্কর এহসান লয়ের সঙ্গে কিছুদিন কাজ করেন। বাড়তে থাকে অভিজ্ঞতা, পরিচিতি। তখন থেকে পুরোদমে শুরু করে দিলেন ফ্রিল্যান্সিং। ভাগ্যদেবতা বোধহয় তাঁর আশপাশেই ছিলেন। এ জন্য তাঁকে প্রতিষ্ঠিত হতে ততটা বেগ পেতে হয়নি।

একে একে কাজ করে গেছেন জনপ্রিয় সব মিউজিক ডিরেক্টর আর চলচ্চিত্র নির্মাতাদের সঙ্গে। কুড়িয়েছেন যশ-খ্যাতি-নাম। পেয়েছেন অগ্রজদের আন্তরিক আশীর্বাদ, সহযোগিতা। অনুজদের হৃদয় উজাড় করা ভালবাসা। দর্শকদের উপহার দিয়ে গেছেন হৃদয়ছোঁয়া সুরে গাওয়া অসংখ্য গান। তিনি নিজেকে শুধু বলিউডের জন্য তৈরি করেননি। তৈরি করেছেন টালিউড আর তেলেগু ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির জন্যও। মাতিয়ে রেখেছেন সুরের জালে গোটা বিশ্বকে। তবে তাঁর শুরুটা মিউজিক ডিরেক্টর শঙ্কর এহসান লয়ের হাত ধরে। তিনি প্রথম কণ্ঠ দেন ‘হাইস্কুল মিউজিক্যাল-২’ সিনেমার ‘অল ফর ওয়ান’ গানে। এছাড়াও তিনি কণ্ঠ দিয়েছেন ইন্ডিয়ান টিভিশো ‘মধুবালা : এক ইশ্ক এক জুনুন’-এর টাইটেল সং ‘হাম হ্যায় দিওয়ানি’তে, জনপ্রিয় বাংলা টেলিভিশন সিরিয়াল ‘তোমায় আমায় মিলে’র টাইটেল গানে এবং ভারতীয় টিভি চ্যানেল ‘জি বাংলা’য় ইন্ডিয়ান ক্রিকেট টিমের সাবেক সফল অধিনায়ক সৌরভ গাঙ্গুলী উপস্থাপিত জনপ্রিয় টিভি অনুষ্ঠান ‘দাদাগিরি’র টাইটেল গানে। তবে এতসব সফলতাকে পেরিয়ে সফলতার আরেক শিহরিত এভারেস্ট জয় করেছে ব্লক বাস্টার হিট সিনেমা ‘আশিকি-২’-এ গাওয়া ‘তুম হি হো’ গানটি। আমরা পেয়েছি নতুন এক অরিজিৎ সিংকে এ গানের মাধ্যমে। গানটি কুড়িয়েছে অন্তহীন জনপ্রিয়তা।

বলিউডে তাঁর কণ্ঠ দেয়া উল্লেখযোগ্য গানগুলো হচ্ছে- ‘হাইস্কুল মিউজিক্যাল-২’ সিনেমার ‘অল ফর ওয়ান’, ‘মার্ডার টু’ সিনেমার ‘ফির মহব্বত’, ‘ফনিক্স ফেইজ-১’ সিনেমার ‘ক্যা কারো সাজনি’, ‘প্লেয়ার্স’ সিনেমার ‘ঝুম ঝুম তা হু ম্যায়’, ‘সাংহাই’ সিনেমার ‘দুয়া’, ‘১৯২০ : ইভিল রিটার্নস’ সিনেমার ‘উসকা হি বানা’, ‘বরফি’ সিনেমার ‘ফির লে আইয়্যা দিল’, ‘সাওয়ালি সি রাত’, ‘ককটেল’ সিনেমার ‘ইয়ারিআন’, ‘এজেন্ট বিনোদ’ সিনেমার ‘রাবতা (আনপ্লাগড)’, ‘রাবতা (কুছ তো হ্যায়)’, ‘রাবতা (নাইট ইন এ মোটেল)’, ‘রাবতা (শিয়া রাতে)’, ‘থ্রি জি’ সিনেমার ‘খালবালি’, ‘আশিকি-২’ সিনেমার ‘তুম হি হো’, ‘মেরি আশিকি’, ‘চাহু ম্যায় ইয়্যা না’, ‘হাম মার জায়েঙ্গি’, ‘মিল না হ্যায় মুঝসে আইয়্যি’, ‘আছান নেহি হ্যায়’, ‘ইয়ে জাওয়ানি হ্যায় দিওয়ানি’ সিনেমার ‘দিল্লিওয়ালি গার্লফ্রেন্ড’, ‘কাবিরা’, ‘চেন্নাই এক্সপ্রেস’ সিনেমার ‘কাশ্মির ম্যায়, তু কানইয়াকুমারী’ ইত্যাদি।

টালিউডে গাওয়া তাঁর জনপ্রিয় গানগুলো হচ্ছে- ‘বোঝে না সে বোঝে না’ সিনেমার ‘বোঝেনা সে বোঝে না’, ‘নারে না’, ‘সাজনা (রিপ্রাইজ)’, ‘তিন কন্যা’ সিনেমার ‘গোলেমালে’, ‘কানামাছি’ সিনেমার ‘মন বাওড়ে’, ‘হাওয়া বদল’ সিনেমার ‘দিনক্ষণ মাপা আছে’, ‘মনে পড়লে’, ‘ভয় দেখাস না’, ‘মিসেস সেন’ সিনেমার ‘ঘর আজা’, ‘চুপি চুপি’, ‘কেয়ার অফ স্যার’ সিনেমার ‘থেমে যায়’, ‘বস’ সিনেমার ‘মন মাঝি রে’, ‘ইচ্ছে যতো উড়িয়ে দেবো’, ‘প্রলয়’ সিনেমার ‘রোশনি এলো’, ‘ঘুম পাড়ানির গান’, ‘বাংলা নাচে ভাংড়া’ সিনেমার ‘কলেজ সং’, ‘রংবাজ’ সিনেমার ‘কি করে তোকে বলব’, ‘বেঁচে থেকে লাভ কি বল’ ইত্যাদি।

এ পর্যন্ত তিনি অসংখ্য গুণী মিউজিক ডিরেক্টরদের সঙ্গে কাজ করেছেন তন্মধ্যে, শংকর এহসান লয়, প্রিতম চক্রবর্তী, মিঠুন, বিশাল শেখর, জিৎ গাঙ্গুলী, সঞ্জয় লীলা বানসালি উল্লেখযোগ্য। কণ্ঠ দিয়েছেন শ্রেয়া ঘোষাল, সুনিধি চৌহান, পলক মুছাল, তুলশী কুমার, মোনালী ঠাকুর, অন্বেষা, উজ্জায়নি মুখার্জী, জুন ব্যানার্জীর মতো গুণী নামী শিল্পীর সঙ্গেও। পুরস্কার হিসেবে ঝুলিতে রয়েছে অপ্সরা ফিল্ম এ্যান্ড টেলিভিশন গিল্ড এ্যাওয়ার্ড, বলিউড হাঙ্গামা সার্ফাস চয়েজ মিউজিক এ্যাওয়ার্ড, ফিল্ম ফেয়ার এ্যাওয়ার্ড, গ্লোবাল ইন্ডিয়ান মিউজিক একাডেমি এ্যাওয়ার্ড, ইন্টারন্যাশনাল ইন্ডিয়ান ফিল্ম একাডেমি এ্যাওয়ার্ড, মিরচি মিউজিক এ্যাওয়ার্ড, আরএমআইএম পুরস্কার এ্যাওয়ার্ড, স্ক্রিন এ্যাওয়ার্ড, জি সিনে এ্যাওয়ার্ড, গানা এ্যাওয়ার্ড, আইবিএন লাইভ মুভি এ্যাওয়ার্ড, মাসালা এ্যাওয়ার্ড, ইন্ডিয়ান সিনেমা ম্যাগাজিন ইউকে এ্যাওয়ার্ডসহ চল্লিশোর্ধ মূল্যবান সব এ্যাওয়ার্ড নমিনেশন। জনপ্রিয় এ সঙ্গীত তারকা ভালবেসে বাল্যবন্ধু কোয়েল রায়ের সঙ্গে বিয়ের পিঁড়িতে বসেন ২০১৪ সালের ২০ জানুয়ারি। মিউজিক্যাল চড়াই-উৎরাই পেরিয়ে নিরন্তর ছুটে চলেছে, চলবে অরিজিৎ সিংর গানের রেলগাড়ি এমনটাই প্রত্যাশা ভক্তদের।

প্রকাশিত : ৫ মার্চ ২০১৫

০৫/০৩/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: