মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
৯ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

পাকিস্তান ও অস্ট্রেলিয়ার বড় জয়

প্রকাশিত : ৫ মার্চ ২০১৫

শাকিল আহমেদ মিরাজ ॥ বিশ্বকাপে বুধবার নিজ নিজ ম্যাচে জয় পেয়েছে পাকিস্তান ও অস্ট্রেলিয়া। নেপিয়ারে ১২৯ রানে সংযুক্ত আরব আমিরাতকে হারিয়েছে পাকিস্তান। আর পার্থে বিশ্বকাপ ইতিহাসের রেকর্ড সর্বোচ্চ ২৭৫ রানের জয়ের পথে আফগানিস্তানকে উড়িয়ে দিয়েছে স্বাগতিক অস্ট্রেলিয়া! একতরফা দুটি ম্যাচেই জয় পেয়েছে ফেবারিটরা। চতুর্থ ম্যাচে টানা দ্বিতীয় জয়ে ‘জায়ান্টকিলার’ আয়ারল্যান্ডকে পেছনে ফেলে পুল ‘বি’এর চতুর্থ স্থানে উঠে এসেছে মিসবাহ-উল হকের পাকিস্তান। অন্যদিকে সমান খেলায় ২ জয় ও ১ ম্যাচের পয়েন্ট (৫) ভাগাভিগ করে পুল ‘এ’র তৃতীয় স্থানে অসিরা।

বিশ্বকাপে পাকিস্তানের শুরুটা এবার মোটেই ভাল ছিল না। প্রথম ম্যাচেই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ভারতের কাছে ৭৬ রানে, এরপর ওয়েস্ট ইন্ডিজের কাছে ১৫০ রানের বিশাল হারে কোণঠাসা হয়ে পড়ে তারা। জিম্বাবুইয়ের বিপক্ষে ২০ রানের কষ্টের জয়ে ঘুরে দাঁড়ানো পাকিরা কাল খেলেছে ফেবারিটের মতোই। নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৬ উইকেটে ৩৩৯ রানের বড় স্কোর গড়ার পর আরবদের ৮ উইকেটে ২১০ রানে বেঁধে রাখে মিসবাহবাহিনী। বড় সংগ্রহের রূপকার শেহজাদ। সেঞ্চুরি না পেলেও ১০৫ বলে ৯৩ রানের চমৎকার ইনিংস খেলে ম্যাচসেরা হন এই ওপেনার। এছাড়া হারিস সোহেল ৭০, মিসবাহ ৬৫, শোয়েব মাকুসদ ৪৫, ও ‘বুম বুম’ আফ্রিদি মাত্র ৭ বলে অপরাজিত ২১ রান করে দলকে চ্যালেঞ্জিং স্কোর এনে দেন।

শেষ নয় ওয়ানডে ইনিংসে শেহজাদের এটি তার চতুর্থ হাফ সেঞ্চুরি ইনিংস। আর ৪৯ বলে ৪ চার ও ২ ছক্কায় ৬৫ রানের পথে মিসবাহর এটি দ্বিতীয় দ্রুততম হাফ সেঞ্চুরি (৪১ বলে ৫০)। আমিরাতের হয়ে পেসার মানজুলা গুরুগে ৪ উইকেট। জবাব দিতে নেমে পাক বোলারদের বিপক্ষে মোটেই স্বচ্ছন্দ ছিল না আমিরাত ব্যাটসম্যানরা। ২৫ রানের মধ্যে ৩ উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে তারা। অভিজ্ঞ খুররম খান ৪৩, ফর্মের তুঙ্গে থাকা শাইমান আনোয়ার ৬২ ও আট নম্বরে নামা আমজাদ জাভেদ ৩৩ বলে ৫ চার ও ২ ছক্কায় ৪০ রান করে ব্যবধান কমান মাত্র। পাকিস্তানের হয়ে সোহেল খান, ওয়াহাব রিয়াজ ও শহীদ আফ্রিদি নেন ২টি করে উইকেট। সনাথ জয়াসুরিয়ার পর ইতিহাসের দ্বিতীয় ক্রিকেটার হিসেবে ওয়ানডেতে ৮ হাজার রান ও ৩শ’র বেশি উইকেট নেয়ার কৃতিত্ব দেখান ‘বুম বুম’ আফ্রিদি।

পার্থের অপর ম্যাচে আফগানদের নিয়ে ছেলে খেলা করেছে চারবারের চ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়া। ম্যাচের নায়ক ডেভিড ওয়ার্নারের দুরন্ত সেঞ্চুরির ওপর ভর করে ৬ উইকেটে ৪১৭ রান সংগ্রহ করে অস্ট্রেলিয়া। এবার তো বটেই, বিশ্বকাপ ইতিহাসেরই দলীয় সর্বোচ্চ রানের নতুন রেকর্ড এটি। আগের ৪১৩/৫- ২০০৭ বিশ্বকাপে বারমুডার বিপক্ষে যা করেছিল ভারত। দ্বিতীয় উইকেটে স্মিথকে নিয়ে যোগ করেন ২৬০ রান- অস্ট্রেলিয়ার ওয়ানডে ইতিহাসের সর্বোচ্চ রানের জুটি এটি। আগে যেটি ছিল রিকি পন্টিং ও শেন ওয়াটসনের- ২০০৯ সালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে অবিচ্ছিন্ন ২৫২ রান করেছিলেন তারা। স্মিথ ৯৫ ও গ্লেন ম্যাক্সওয়েল ৩৯ বলে ৬ চার ও ৭ ছক্কায় খেলেন ৮৮ রানের টর্নেডো ইনিংস! এরপর ৩৭.৩ ওভারে আফগানিস্তানকে ১৪২ রানে গুটিয়ে দিয়ে তুলে নেয় ২৭৫ রানের বিশাল জয়- বিশ্বকাপ ইতিহাসে রানের হিসেবে বড় জয়ের রেকর্ড এটি। তারকা পেসার মিচেল জনসন ৪টি, মিচেল স্টার্ক ও জোস হ্যাজলউড নেন ২টি করে উইকেট। (রেকর্ড ও বিশ্বকাপের সব খবর খেলার পাতায়)

প্রকাশিত : ৫ মার্চ ২০১৫

০৫/০৩/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

প্রথম পাতা



ব্রেকিং নিউজ: