মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১১ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

রেকর্ড গড়ে রানের মিছিলে হাশিম আমলা

প্রকাশিত : ৪ মার্চ ২০১৫
রেকর্ড গড়ে রানের মিছিলে হাশিম আমলা

জাহিদুল আলম জয় ॥ চার শ’ রান যেন ডাল-ভাত দক্ষিণ আফ্রিকার কাছে! বিষয়টি আগেও দেখা গেছে। চলমান বিশ্বকাপেও দলটির ব্যাটসম্যানদের মধ্যে রানের পাহাড় গড়ার প্রবণতা লক্ষ্য করা যাচ্ছে। একেক ম্যাচে এক এক ব্যাটসম্যান যেমন অনন্য কীর্তিগাথা রচনা করছেন, তেমনি দল হিসেবেও রেকর্ডের পর রেকর্ড গড়ে চলেছে প্রোটিয়াসরা।

সিডনিতে ২৭ ফেব্রুয়ারি ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে ৫ উইকেটে ৪০৮ রান করে রেকর্ড গড়ে দক্ষিণ আফ্রিকা। ওই ম্যাচে একাধিক গৌরবময় রেকর্ডের সারথি হন দলটির অধিনায়ক এবি ডি ভিলিয়ার্স। দিনকয়েক বাদে মঙ্গলবার আবারও জ্বলে ওঠেন আফ্রিকান ব্যাটসম্যানরা। এবার আয়ারল্যান্ডের বিরুদ্ধে নিজেদের আগের রেকর্ড ভেঙ্গে দক্ষিণ আফ্রিকা সংগ্রহ করে ৪ উইকেটে ৪১১ রান। আর রেকর্ড গড়েন ওপেনার হাশিম আমলা ও তিন নম্বরে ব্যাটিংয়ে নামা ফাফ ডু প্লেসিস। দু’জনই তুলে নেন সেঞ্চুরি। হাশিম আমলা করেন ক্যারিয়ারসেরা ১৫৯ রান। আর ডু প্লেসিসের ১০৯ করেন। এটি প্লেসিসের বিশ্বকাপে প্রথম শতরান।

চার শতাধিক রান করার ক্ষেত্রে দক্ষিণ আফ্রিকা সবচেয়ে এগিয়ে। কী বিশ্বকাপ, কী ওয়ানডে সবখানেই এক নম্বরে প্রোটিয়াসরা। মঙ্গলবারের ইনিংসহ বিশ্বকাপ ক্রিকেটে এ পর্যন্ত চার শ’র বেশি দলীয় সংগ্রহ হয়েছে মাত্র তিনটি। এর মধ্যে দু’টিই দক্ষিণ আফ্রিকার। দু’টিই আবার মাত্র তিনদিনের ব্যবধানে। চলমান বিশ্বকাপেই ২৭ ফেব্রুয়ারি ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে ৪০৮ রান করেছিল আফ্রিকা। এবার তারা করেছে ৪১১ রান। এটি বিশ্বকাপের ইতিহাসের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ দলীয় সংগ্রহ। ২০০৭ সালের বিশ্বকাপে পোর্ট অব স্পেনে বারমুডার বিরুদ্ধে প্রথমে ব্যাট করে ৪১৩ রান করেছিল ভারত। বিশ্বকাপে যা সর্বোচ্চ দলীয় সংগ্রহ।

ওয়ানডে ক্রিকেটে এ পর্যন্ত ১৪টি চার শ’র বেশি রানের দলীয় সংগ্রহ হয়েছে। এখানেও আধিপত্য আফ্রিকানদের। যৌথভাবে সর্বোচ্চ পাঁচবার ৪০০ রানের মাইলফলক স্পর্শ করে দক্ষিণ আফ্রিকা। এর মধ্যে গত জানুয়ারি মাসে জোহানেসবার্গে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে করা ২ উইকেটে ৪৩৯ রান ওয়ানডেতে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ দলীয় সংগ্রহ। শ্রীলঙ্কার ৯ উইকেটে ৪৪৩ রান ওয়ানডেতে এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বড় দলীয় সংগ্রহ। ২০০৬ সালের ৪ জুলাই হল্যান্ডের বিরুদ্ধে এ কীর্তিগাথা রচনা করেছিল লঙ্কানরা। আফ্রিকানদের মতোই পাঁচবার চার শ’র বেশি দলীয় সংগ্রহ গড়েছে ভারতও। অর্থাৎ ১৪টি সেরা ইনিংসের মধ্যে ১০টিই ভারত ও দক্ষিণ আফ্রিকার দখলে। বাকি চারটির মধ্যে দু’টি শ্রীলঙ্কার ও একটি করে অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডের।

আগের ম্যাচে অধিনায়ক এবি ডি ভিলিয়ার্সের তা-ব দেখেছিল ক্রিকেটবিশ্ব। মঙ্গলবার এই মিছিলে যোগ দেন হাশিম আমলা। প্রোটিয়াস ওপেনারের ক্যারিয়ারসেরা ১৫৯ রানের ইনিংসটি এসেছে ১২৮ বলে। ১৬টি চার আর চারটি ছক্কায় ইনিংসটি সাজান তিনি। এটি তাঁর ক্যারিয়ারের ২০তম সেঞ্চুরি। এর মধ্য দিয়ে গৌরবময় রেকর্ডও গড়েছেন আমলা। ভারতের তারকা ব্যাটসম্যান বিরাট কোহলির রেকর্ড ভেঙ্গে এখন সবচেয়ে কম ইনিংসে ২০ সেঞ্চুরির মালিক আমলা। ক্যানবেরার ম্যানুকা ওভালে আয়ারল্যান্ডের বিরুদ্ধে মাত্র ১০ রানে জীবন পাওয়া আমলা ক্যারিয়ারের ১১১ নম্বর ওয়ানডে ও ১০৮ ইনিংসে ২০তম শতক তুলে নেন। সবচেয়ে কম ইনিংসে ২০ শতক করার রেকর্ড গড়ার পথে কোহলি খেলেন ১৩৩টি ইনিংস। কোহলির রেকর্ড কেড়ে নেয়া নতুন নয় ৩১ বছর বয়সী আমলার জন্য! কিছুদিন আগেই ওয়ানডেতে সবচেয়ে কম ইনিংসে পাঁচ হাজার রানে পৌঁছে ওয়েস্ট ইন্ডিজের ব্যাটিং কিংবদন্তি ভিভ রিচার্ডস ও কোহলির রেকর্ড ভাঙেন তিনি। ওয়ানডেতে দ্রুততম পাঁচ হাজার রান করার পথে দ্রুততম ২ হাজার, ৩ হাজার ও ৪ হাজার রানের রেকর্ডও ভেঙ্গে ছিলেন আমলা। এর মধ্যে ৩ ও ৪ হাজার রানের রেকর্ড তিনি কেড়ে নিয়েছিলেন রিচার্ডসের কাছ থেকে।

কম যাননি ডু প্লেসিসও। বিধ্বংসী মেজাজে সেঞ্চুরিটি না আসলেও তাঁর ১০৯ রানের ইনিংসটি বিশ্বকাপে প্রথম সেঞ্চুরির স্বাদ দিয়েছে। প্লেসিস ইনিংসটি সাজান ১০ চার ও এক ছয়ে। সবমিলিয়ে ওয়ানডেতে এটি ৩০ বছর বয়সী প্লেসিসের চতুর্থ শতক। আমলা ও প্লেসিস রেকর্ড জুটিও গড়েন। তাদের ২৪৭ রানের জুটিটি বিশ্বকাপে দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে দ্বিতীয় উইকেটে সর্বোচ্চ রানের জুটি।

প্রকাশিত : ৪ মার্চ ২০১৫

০৪/০৩/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



ব্রেকিং নিউজ: