মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১০ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

আইনজীবী সমিতির ২৬ বছর আগের সিদ্ধান্তে অচলাবস্থা চট্টগ্রাম আদালতে ॥ পণ্ড তলব

প্রকাশিত : ৩ মার্চ ২০১৫

স্টাফ রিপোর্টার, চট্টগ্রাম অফিস ॥ চট্টগ্রামে হরতালের মধ্যে আদালতের কার্যক্রমে অংশ না নেয়ার ২৬ বছর আগের সিদ্ধান্তের পক্ষে-বিপক্ষে অবস্থান নিয়েছেন আওয়ামী লীগ ও বিএনপি সমর্থিত আইনজীবীরা। সোমবারও বেশ ক’জন বিচারক এজলাসে বসেন। তবে আইনজীবীরা অংশ না নেয়ায় কোন মামলার শুনানি হয়নি। তবে বিচারকগণ খাস কামরার পরিবর্তে এজলাসে বসেই তাঁদের নিয়মিত আদেশগুলো প্রদান করেন। এদিকে সমিতির সেই পুরনো সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছেন সাধারণ আইনজীবীরা। সিদ্ধান্ত বাতিলের পক্ষে অবস্থান গ্রহণকারী সরকার সমর্থক আইনজীবীরা সোমবার এক তলবি সভা শুরু করলেও বিএনপি সমর্থক আইনজীবীদের হৈ হট্টগোলের মধ্যে তা ভ-ুল হয়ে যায়।

চট্টগ্রাম জেলা পিপি এ্যাডভোকেট আবুল হাশেম সাংবাদিকদের বলেন, টানা প্রায় ৫৬ দিনের হরতাল ও অবরোধে সাধারণ আইনজীবীদেরও দূরবস্থার মধ্যে পড়তে হয়েছে। আদালতে বিচার কার্যক্রম বন্ধ থাকায় আইনজীবীদের আয় রোজগারও বন্ধ হয়ে গেছে। ফলে তাদের কষ্টের মধ্যে দিনযাপন করতে হচ্ছে।

তিনি বলেন, বিচারকগণ এজলাসে বসতে শুরু করেছেন, এটি একটি শুভ উদ্যোগ। কিন্তু সমিতির সিদ্ধান্ত না থাকায় আইনজীবীরা শুনানি কার্যক্রমে অংশগ্রহণ করছেন না। অধিকাংশ সাধারণ আইনজীবী আদালতের কার্যক্রমে অংশগ্রহণ করার পক্ষে বলে উল্লেখ করে তিনি ২৬ বছর আগে নেয়া সিদ্ধান্ত বাতিলের পক্ষে মত ব্যক্ত করেন।

উল্লেখ্য, ১৯৮৯ সালে চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবী সমিতি হরতালে আদালতের কার্যক্রমে অংশগ্রহণ না করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে। তখন ছিল এরশাদের শাসনামল। বিশেষ পরিস্থিতিতে ওই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করলেও তা চলে আসছে। হরতাল আহ্বান হলেই চট্টগ্রামের আইনজীবীরা আদালতে উপস্থিত হন না। কিন্তু বর্তমানে যেভাবে লাগাতার চলছে, তাতে ওই সিদ্ধান্তের কারণে আইনজীবীরাই ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন।

আইনজীবী সমিতির ২৬ বছর আগের সিদ্ধান্ত বাতিলের পক্ষে অবস্থানকারীরা সোমবার এক তলবি সভায় মিলিত হন। এতে বিএনপি ও জামায়াতপন্থী আইনজীবীরা হামলা চালায় বলে অভিযোগ রয়েছে। তলবি সভায় সভাপতিত্ব করেন বিএনপিপন্থী আইনজীবী এ্যাডভোকেট এজেডএম মঈনুল হক চৌধুরী। সমিতির তিন নম্বর মিলনায়তনে আয়োজিত এ সভায় অংশ নেন দুই শতাধিক আইনজীবী। কয়েকজন আইনজীবী বক্তব্যও রাখেন। হঠাৎ ২০ দলীয় জোটের সমর্থক ৭০-৮০ জন আইনজীবী মিলনায়তনে ঢুকে পড়েন। এ সময় তারা ছিলেন মারমুখী। হট্টগোল ও চেয়ার ছোড়াছুড়িতে সভা প- হয়ে যায়। প্রসঙ্গত, গত ৬ জানুয়ারি থেকে প্রায় দুই মাস ধরে অচল হয়ে আছে চট্টগ্রাম আদালত। এ অবস্থায় বিচারপ্রার্থী এমনকি সাধারণ আইনজীবীদেরও দুর্ভোগ চরমে উঠেছে। বর্তমানে সরকার সমর্থক এবং সাধারণ আইনজীবীদের বিরাট অংশ আদালতের কার্যক্রমে অংশগ্রহণের পক্ষে। গত রবিবার থেকে বিচারকগণও এজলাসে বসতে শুরু করেছেন। কিন্তু আইনজীবী সমিতির সিদ্ধান্ত এবং পাশাপাশি বিএনপিপন্থীদের বাধার মুখে অচলাবস্থা বজায় রয়েছে।

প্রকাশিত : ৩ মার্চ ২০১৫

০৩/০৩/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

শেষের পাতা



ব্রেকিং নিউজ: