মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
৯ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

টাইগারদের টার্গেটে এখন ইংল্যান্ড

প্রকাশিত : ২ মার্চ ২০১৫
টাইগারদের টার্গেটে এখন ইংল্যান্ড

মিথুন আশরাফ ॥ আর কাউকে নয়, ইংল্যান্ডকে হারাও; এ আওয়াজ উঠে গেছে এখনই। শুধু ইংলিশদের হারালেই যে বিশ্বকাপে কোয়ার্টার ফাইনালে খেলার স্বপ্ন পূরণ হয়ে যাবে বাংলাদেশের।

প্রশ্ন উঠতে পারে, কিভাবে? কোয়ার্টার ফাইনালে ওঠার পথে একটি কঠিন হিসেব আছে বাংলাদেশের সামনে। আছে আরেকটি সহজ হিসেব। আগে কঠিন হিসেবটিই দেখা যাক। বাকি থাকা তিন ম্যাচের যে কোন দুটিতে জিতলেই হবে। তখন বাংলাদেশের পয়েন্ট হবে ৭। নকআউট পর্বে খেলার সম্ভাবনা থাকা ইংল্যান্ড বাকি থাকা ২ ম্যাচে জিতলেও পয়েন্ট হবে ৬। বাংলাদেশ চলে যাবে কোয়ার্টার ফাইনালে। আছে একটি সহজ হিসেবও। একটি ম্যাচ জিতলেই হয়ে যায় বাংলাদেশের। যদি সেই জয়টি আসে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে। তখন বাংলাদেশের পয়েন্ট হবে ৫। ইংল্যান্ড বাকি থাকা দুই ম্যাচের একটিতে জিতলে হবে ৪ পয়েন্ট। তখনও বাংলাদেশ কোয়ার্টার ফাইনালে উঠে যাবে। বোঝাই যাচ্ছে, এখন শুধু ইংল্যান্ডকে হারাতে পারলেই বাংলাদেশের কোয়ার্টার ফাইনালে খেলার স্বপ্ন সফল হয়ে যাবে।

হিসেব এ রকম, কোয়ার্টার ফাইনালে ওঠার পথে এখন শুধু একটি হিসেব নিয়ে ভাবলেই হয় বাংলাদেশের। অন্য কোন হিসেবে না গিয়ে বাকি তিন ম্যাচের মধ্যে একটি ম্যাচ জিততে পারলেই হয়ে যায়। শুধু ইংল্যান্ডকে হারাতে পারলেই কোয়ার্টার ফাইনালে উঠে যাবে বাংলাদেশ। তখন স্কটল্যান্ড, নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে হার হলেও অসুবিধা নেই।

ধরে নেয়া যাক, বাংলাদেশের যে তিন ম্যাচ বাকি আছে, এর মধ্যে স্কটল্যান্ড ও নিউজিল্যান্ডের কাছে হারল বাংলাদেশ। কিন্তু জিতল ইংল্যান্ডের বিপক্ষে। তখন বাংলাদেশের পয়েন্ট হবে ৫। ইংল্যান্ডের বাকি আছে ২ ম্যাচ। বাংলাদেশ ও আফগানিস্তানের বিপক্ষে ইংল্যান্ডের খেলা রয়েছে। ধরে নেয়া যাক, আফগানিস্তানের বিপক্ষে জিতল ইংল্যান্ড, কিন্তু হারল বাংলাদেশের বিপক্ষে। তখন ইংল্যান্ডের পয়েন্ট হবে ৪। বাংলাদেশ চলে যাবে কোয়ার্টার ফাইনালে। রবিবার শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ইংল্যান্ডের হারেই এমন হিসেব দাঁড় হয়ে গেছে। এ্যাডিলেডে ৯ মার্চ বাংলাদেশ-ইংল্যান্ড ম্যাচ রয়েছে। হিসেব অনুযায়ী এ ম্যাচে যে দল জিতবে, তারাই আসলে ‘এ’ গ্রুপ থেকে কোয়ার্টার ফাইনালে উঠে যাবে। বাংলাদেশ জিতলেই এখন হয়ে যায়।

বিশ্বকাপে এখন বাংলাদেশের পয়েন্ট আছে ৩। ৩ ম্যাচে এই পয়েন্ট পেয়েছে বাংলাদেশ। ১ জয়, ১ হার ও ১ ম্যাচ বৃষ্টিতে পরিত্যক্ত হয়। ইংল্যান্ডের পয়েন্ট রয়েছে ২। ৪ ম্যাচে ১ জয় ও ২ হারে এ পয়েন্ট পেয়েছে ইংলিশরা। এখন বাংলাদেশের বাকি রয়েছে তিন ম্যাচ। ইংল্যান্ডের বাকি রয়েছে ২ ম্যাচ। বাংলাদেশের বাকি থাকা তিন ম্যাচের মধ্যে স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে জিতবে মাশরাফিবাহিনী, তা ধরেই নেয়া হচ্ছে। ঠিক তেমনি আফগানিস্তানের বিপক্ষে জয় পাবে ইংল্যান্ড, তাও অনুমিতই। কোন অঘটন না ঘটলে সবার হিসেবে এমনটিই আসার কথা। তখন বাংলাদেশের ৫ ও ইংল্যান্ডের হবে ৪ পয়েন্ট।

ইংল্যান্ডের বাকি থাকবে আর একটি ম্যাচ। সেই ম্যাচটিতে ইংল্যান্ডের প্রতিপক্ষ বাংলাদেশ। ম্যাচটিতে ইংল্যান্ড জিতলে হবে ৬ পয়েন্ট। তখন ইংল্যান্ড চলে যাবে কোয়ার্টার ফাইনালে। আর যদি বাংলাদেশ জিতে, চলে যাবে নকআউট পর্বে।

বৃহস্পতিবার স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে, ৯ মার্চ ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ও ১৩ মার্চ নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে বাংলাদেশের খেলা রয়েছে। স্বাভাবিকভাবে স্কটল্যান্ডকে হারানোর তালিকায় রাখলেও নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে বাংলাদেশ জিততে পারবে না, তাও ধরে নেয়া যায়। স্বাগতিক দল নিউজিল্যান্ড। আবার বিশ্বকাপে সবচেয়ে উজ্জ্বল নৈপুণ্যও তাদের। সবার আগে কোয়ার্টার ফাইনালে খেলা নিশ্চিত করে নিয়েছে কিউইরা। এ দলটির বিপক্ষে বাংলাদেশ জয় পাবে, তা কেউই মনে করছে না। জয় পেতে পারে, এমন আশা সবসময়ই থাকে।

যদি স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে জয়, নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে হার হয় তাহলে বাংলাদেশের পয়েন্ট থাকবে ৫। নিউজিল্যান্ড, ইংল্যান্ডের কাছে বাংলাদেশ হারলে তখন স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে জিতলেও নকআউট পর্বে খেলতে পারবে না বাংলাদেশ। কিন্তু স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে হার হলেও যদি ইংল্যান্ডকে হারানো যায় তাহলেই নকআউট পর্বে খেলার স্বপ্ন সফল হয়ে যাবে বাংলাদেশের।

বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডের অবনতিই যেন শুধু চোখে পড়ছে। এমনও ক্ষীন ধারণা করা হচ্ছে, আবার না আফগানিস্তানের বিপক্ষেই হেরে যায় ইংল্যান্ড! তাহলে তো কথাই নেই। তখন শুধু স্কটল্যান্ডকে হারালেই বাংলাদেশের স্বপ্ন সফল হয়ে যাবে। ইংল্যান্ড, নিউজিল্যান্ড ম্যাচ নিয়ে ভাবতেই হবে না। সমস্যা হচ্ছে একটি জায়গাতেই, ইংল্যান্ডের পরের ম্যাচটিই বাংলাদেশের বিপক্ষে। আফগানিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচটি নিয়ে পরে ভাববে ইংল্যান্ড। এর আগে বাংলাদেশ নিয়েই তাদের ভাবতে হচ্ছে। বাংলাদেশও কী এখন ইংল্যান্ডকে নিয়েই ভাবতে শুরু করে দিয়েছে না?

শ্রীলঙ্কা-ইংল্যান্ড ম্যাচ যখন হচ্ছে, তখন যেন বাংলাদেশী ক্রিকেটপ্রেমীদের দৃষ্টি সেই ম্যাচের দিকেই ছিল। এ ম্যাচে ইংল্যান্ডের হার যে বাংলাদেশের জন্য অনেক কাজে দেবে। মাঠে ভাল খেলতে হবে ক্রিকেটারদেরই। জয়ও তুলে নিতে হবে। তবে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে হারে ইংল্যান্ড আরও বিধ্বস্ত হয়ে গেল। যা ইংলিশ ক্রিকেটারদের আত্মবিশ্বাসও কমিয়ে দেবে। বাংলাদেশের জন্য যা অনেক বেশি দরকার। এ সুযোগে ইংল্যান্ডকে হারিয়ে দিতে পারলেই তো হলো। আগে ৩ পয়েন্ট থাকায় এখন শুধু এ একটি ম্যাচ জয়েই বাংলাদেশ চলে যাবে কোয়ার্টার ফাইনালে।

প্রকাশিত : ২ মার্চ ২০১৫

০২/০৩/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



ব্রেকিং নিউজ: