মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১১ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

যশোরে একটি পরিবার দলীয় প্রতিপক্ষের হুমকিতে সন্ত্রস্ত

প্রকাশিত : ২ মার্চ ২০১৫
  • সংবাদ সম্মেলনে বিচার দাবি

স্টাফ রিপোর্টার, যশোর অফিস ॥ যশোরের ঝিকরগাছায় দলীয় প্রতিপক্ষের অত্যাচারে দিশেহারা হয়ে পড়েছে একটি পরিবার। নির্যাতনের শিকার পরিবারটির এক সদস্যকে হত্যা ছাড়াও মিথ্যা মামলা ও অব্যাহত হুমকিতে তারা আতঙ্কিত জীবনযাপন করছেন।

ঘটনার শিকার ঝিকরগাছার নাভারণ ইউনিয়নের কুন্দিপুর গ্রামের বাসিন্দা রুস্তম মিয়া জানান, বিগত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থীর পক্ষে ভোট করায় দলীয় বিদ্রোহী প্রার্থীর লোকজন তাদের জীবনকে দুর্বিষহ করে তুলেছে। রবিবার বেলা ১২টায় প্রেসক্লাব মিলনায়তনে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ অভিযোগ করেন।

রুস্তম মিয়া জানান, ঝিকরগাছা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী ছিলেন মনিরুল ইসলাম ও বিদ্রোহী প্রার্থী মুসা মাহমুদ (বর্তমানে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক)। নির্বাচনে তিনি আওয়ামী লীগের প্রার্থী মনিরুল ইসলামের পক্ষে কাজ করেছিলেন।

রুস্তম মিয়া অভিযোগ করেন, নির্বাচনে কেন্দ্রে জাল ভোট প্রদান ও ব্যালট পেপার কেটে নেয়ার চেষ্টা তারা প্রতিরোধ করেছিলেন। তাই ভোটের পর থেকে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীর লোকজন তাদের হত্যা করে লাশ গুম করে দেয়ার হুমকি দিয়ে আসছে। ভোটের পর বিভিন্ন সময়ে তাদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলা চালিয়ে লুটপাট করেছে। কুপিয়ে ও পিটিয়ে পরিবারের সদস্যদের আহত করা হয়েছে। এ ঘটনায় রুস্তম মিয়ার চাচা আব্দুর রাজ্জাক বাদী হয়ে ২০১৪ সালের ১৮ মে মামলা করলে আসামিরা ক্ষিপ্ত হয়ে তার ভাই আওরঙ্গজেব ও হুমায়ুনের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলা চালায়।

এর কয়েকদিন পর আসামিরা তাদের বিরুদ্ধে উল্টো মিথ্যা মামলা দায়ের করে। একইসঙ্গে চাচার দায়ের করা মামলা প্রত্যাহারের চাপ সৃষ্টি করে। গত এক বছরে রুস্তম মিয়ার পরিবারের সদস্যদের নামে ছয়টি মিথ্যা ও ভিত্তিহীন মামলা দায়ের করা হয়েছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি। এছাড়া পরিবারের সদস্যদের হত্যার হুমকি দিয়ে আসছে আসামিরা। একপর্যায়ে গত ২২ জানুয়ারি হত্যাকা-ের শিকার হয় রুস্তমের ভাই হুমায়ুন। পুলিশ তার ক্ষত-বিক্ষত লাশ উদ্ধার করে। এ হত্যাকা-েও ওই চক্রটি জড়িত বলে তিনি জানান। এ ঘটনায় ২৩ জানুয়ারি রুস্তমের ভাই আওরঙ্গজেব বাদী হয়ে ১৩ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেন। হত্যাকা-ের পর প্রায় ৪০ দিন পার হলেও মামলার ৫ নম্বর আসামি বাবলুর রহমান ছাড়া কেউ গ্রেফতার হয়নি। বরং হত্যা মামলার আসামিদের হুমকিতে চরম নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছে বাদীর পরিবার। আর খুনীদের বাঁচাতে মামলার বাদী ও স্বজনদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলায় চার্জশিট দেয়া হয়েছে বলেও অভিযোগ করেন রুস্তম আলী।

প্রকাশিত : ২ মার্চ ২০১৫

০২/০৩/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

দেশের খবর



ব্রেকিং নিউজ: